×

পাঠকের কলাম

স্বাধীনতা তুমি কতদূর

Icon

মোহাম্মদ আবদুর রহমান

প্রকাশ: ১৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 স্বাধীনতা তুমি কতদূর
বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে আলোচিত বিষয়ের মধ্যে ফিলিস্তিন ইস্যু অন্যতম। পৃথিবীর প্রত্যেক প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছে স্বাধীনতাকামী ফিলিস্তিনিদের আর্তনাদ। ইসরায়েলের ধ্বংসযজ্ঞের বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় বইছে পৃথিবীব্যাপী। ইতোমধ্যে যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রসিদ্ধ বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু তারপরও নেতানিয়াহুর ধ্বংসযজ্ঞ বন্ধ হচ্ছে না ফিলিস্তিনের বুকে। প্রায় ১৫ হাজার শিশুসহ মোট ৩৫ হাজারেরও বেশি নিরপরাধ ফিলিস্তিনির জীবন নিয়েও ক্ষান্ত হয়নি ইসরায়েলি বাহিনী। পৃথিবীবাসী দেখছে মানবাধিকার লঙ্ঘনের এক চরম দৃষ্টান্ত। কেবল মুসলমানরা নয়, ইহুদি এবং খ্রিস্টানরাসহ বিভিন্ন ধর্মের মানুষ আজ প্রতিবাদ করছে। ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধ শেষ করতে সবচেয়ে বেশি আলোচিত হয় দ্বি-রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের বিষয়টি। কিন্তু বছরের পর বছর চলে গেল, এর কোনো সমাধান আজো হয়নি। শুধু ফিলিস্তিনিদের রক্তে ভরে যাচ্ছে ইতিহাসের পাতা, এখন স্বাধীনতার সূর্য ওঠার কোনো আশা দেখা যাচ্ছে না। এদিকে মানবতার সেবক পশ্চিমা শাসকগোষ্ঠী নেতানিয়াহুকে সমর্থন দিচ্ছে, এর মাধ্যমে পশ্চিমা শাসকগোষ্ঠীর মুখোশ উন্মোচন হয়ে গেছে সারা বিশ্বের শান্তিকামী মানুষের কাছে। তবে কি ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতার জন্য লড়াইয়ের দায়িত্ব শুধু হামাসের? মানবাধিকার লঙ্ঘনের মতো অভিযোগগুলো বিভিন্ন বিশ্ব সংবাদ মাধ্যমে উঠে এলেও কারো তেমন কোনো সাড়াশব্দ নেই, পশ্চিমা বিশ্ব দেখেও না দেখার ভান করে আছে। মুসলিম বিশ্বই বা কতটুকু এগিয়ে আসছে এর সমাধানে। একটু লক্ষ্য করলেই দেখা যাবে শুধু ধর্মীয় বিশ্বাসে নয়, মুসলমানদের মধ্যে রাজনৈতিক বিভাজনও প্রবল। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো যদি একসঙ্গে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারত, তাহলে ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতার স্বপ্ন আরো তাড়াতাড়ি বাস্তব হতো। তবে বর্তমানে যেভাবে বিশ্বব্যাপী ইসরায়েলবিরোধী মনোভাব ছড়িয়ে পড়ছে, তাতে নেতানিয়াহু চাপের মধ্যে পড়তে পারে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি ও ফ্রান্সের আধিপত্যের কারণে এই চলমান সংঘাত ক্রমে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের পথ খুলে দিচ্ছে বলে অনেকের আশঙ্কা। উপরিউক্ত দেশগুলো ইসরায়েলের পক্ষে নগ্ন সমর্থন দিলেও মুক্তিকামী সংগঠন হামাস দমে যায়নি, তাদের মুক্তি সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে, হয়তো পৌঁছে যাবে তাদের মূল লক্ষ্যের দিকে। হয়তো আজ না হয় কাল ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার সূর্য উঠবেই। সেদিন আর শোনা যাবে না নিপীড়িতদের চিৎকার, বোমার শব্দে ঘুম ভাঙবে না অবুঝ শিশুর, এমন দিনের অপেক্ষায় আছে সারা বিশ্বের শান্তিকামী মানুষ। মোহাম্মদ আবদুর রহমান : শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App