×

খবর

কদমতলী থেকে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

Icon

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানীর কদমতলী জাপানি বাজার এলাকার একটি বাসা থেকে কুলসুম ওরফে স্বর্ণালী (২২) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার মৃতদেহটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনে কদমতলী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কামরুন নাহার উল্লেখ করেন, গত ছয় মাস যাবত জাপানি বাজার ৯ নম্বর রোডের ফ্রেন্ডশিপ টাওয়ারের একটি ফ্ল্যাটে স্বামী-স্ত্রী মিলে ভাড়া থাকতেন। তবে বিয়ের পর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না। প্রায়ই ঝগড়া হতো তাদের। এর জের ধরে গতকাল সোমবার বাসার গেস্ট রুমে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাঁস দেন কুলসুম। পরবর্তী সময়ে খবর পেয়ে বাসা থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সুরতহাল প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়, প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যা মনে হলেও বিস্তারিত তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলার মিজমিজি এলাকার মো. নাসিরের মেয়ে কুলসুম। তার মা তাসলিমা বেগম জানান, টিকটকের মাধ্যমে ফুয়াদ নামে এক ছেলের সঙ্গে কুলসুমের পরিচয় হয়। সেখান থেকে প্রেমের সম্পর্ক হলে ৮ মাস আগে পালিয়ে বিয়ে করে তারা। বিয়ের পর থেকে কোথায় থাকত তাও জানায়নি পরিবারকে। মাঝেমাঝেই কুলসুমকে নির্যাতন করত ফুয়াদ। গত বৃহস্পতিবার স্বামীর বাসা থেকে পালিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জে বাবার বাড়িতে চলে যায় সে। তখন তার ওপর নির্যাতনের সব কিছু বাবা-মাকে জানায়।

কিন্তু নিরুপায় কুলসুম গত শুক্রবার সকালে আবার ঢাকায় স্বামীর কাছে চলে আসে। তিনি জানান, কুলসুম স্বামীর বাসায় ফিরে আসার পর তার কাছে জানতে পারে, সে লুকিয়ে বাবার বাসায় গিয়েছিল। এটি জানার পর ফুয়াদ গত রবিবার রাতে শাশুড়িকে ফোন করে রাগারাগি করে। কুলসুমকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। সবশেষ সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ তাদের ফোন করে জানায়, কুলসুম মারা গেছে। পরবর্তি সময়ে তারা কদমতলীর ওই বাসায় গিয়ে মেয়ের লাশ দেখতে পান। স্বামী ফুয়াদই তাকে মেরে ফেলেছে বলে অভিযোগ বাবা-মায়ের।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App