×

খবর

সংশোধন হবে শুদ্ধাচার কৌশল

নতুন আচরণবিধি শিগগিরই চূড়ান্ত হচ্ছে সচিব সভায়

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : ১৯৭৯ সালের সরকারি কর্মচারী আচরণ বিধিমালা যুগোপযোগী করে নতুন বিধিমালা শিগগিরই চূড়ান্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন। একই সঙ্গে ২০১২ সালের শুদ্ধাচার কৌশল সংশোধন করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সচিব সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে শুরু হওয়া সচিব সভা শেষ হয় সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ মিনিটে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী যখন প্রথম সচিব সভা করেন তখন আমাদের কাছে একটি নির্দেশনা এসেছিল, আমরা যেন বছরে অন্তত দুটি সচিব সভা করি। তাতে আমরা হিসাব করেছিলাম যে, জুলাই মাসে আমরা একটি সচিব সভা করব। জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম, প্রথম সভার যে বাস্তবায়ন অগ্রগতি সেটি জানতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে চিঠি দিয়েছিলাম। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা আজকের সভাটি করেছি।

সভায় গত সভার বাস্তবায়ন অগ্রগতি আলোচনা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা শুদ্ধাচার বিষয়ে কিছু আলোচনা করেছি। বাজেট বাস্তবায়ন এবং নির্বাচনী ইশতেহার নিয়েও আলোচনা হয়েছে। এছাড়া আমাদের কিছু দাপ্তরিক কাজে প্রধানমন্ত্রী সময়ে সময়ে যে নির্দেশনাগুলো দিয়েছিলেন সেগুলো যেন যতœ সহকারে সিরিয়াসলি অনুসরণ করা হয় সে ব্যাপারে সভায় পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সভায় বিশেষ কোনো নির্দেশনা বা শুদ্ধাচার বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কি না- জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা আলোচনা করেছি, আমাদের যে শুদ্ধাচার কৌশলটি আছে সেটি প্রায় ১২ বছর হয়ে গেছে। এটি এখন আমরা আপডেট করার চিন্তা-ভাবনা করছি। এ প্রসঙ্গে আলোচনা হয়েছে। ১৯৭৯ সালের সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা যুগোপযোগী করা নিয়ে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে মাহবুব হোসেন বলেন, আমাদের একটি আচরণবিধি ছিল ১৯৭৯ সালের, সেটিকে আপডেট করার কার্যক্রম চলছিল। তার অগ্রগতি কী, সেটি আমরা জেনেছি। আশা করছি দ্রুত সেটি চূড়ান্ত হয়ে যাবে। এর আগেও এ বিধিমালাটি আপডেট করার কথা বলা হয়েছিল। এটি আসলে কবে চূড়ান্ত হবে- এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আমাকে জানানো হয়েছে এটি খুব দ্রুতই চূড়ান্ত করা হবে। আশা করছি খুব দ্রুতই হবে।

‘সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা, ১৯৭৯’ অনুযায়ী ৫ বছর পর পর সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদ বিবরণী দাখিল এবং স্থাবর সম্পত্তি অর্জন বা বিক্রির অনুমতি নেয়ার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু সরকার বিধিমালাটি বাস্তবায়ন করছে না। উচ্চ আদালত এ বিধিমালাটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে সরকারি কর্মচারীদের সম্পদের হিসাব নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছে। সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতি নিয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কি না, স¤প্রতি কয়েকজন কর্মকর্তা বা সাবেক কর্মকর্তার দুর্নীতির তথ্য সামনে এসেছে- এ বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, না। সুনির্দিষ্ট কিছু আলোচনা করিনি। এত সচিব নিয়ে তো আমরা এ জাতীয় বিষয়ে আলোচনা করব না।

সচিবরাই তো মন্ত্রণালয়গুলো নিয়ন্ত্রণ করবেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, হ্যাঁ। কিন্তু আমরা এক-দুজনের অপকর্ম নিয়ে, কোনো একটি অভিযোগ নিয়ে তো এত সচিব ডেকে এনে আলোচনা করব না। এটি তো খুব স্বাভাবিক বিষয়। সরকারি কর্মকর্তাদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়, এ ধরনের কোনো আলোচনা হয়েছে কি না- জানতে চাইলে মাহবুব হোসেন বলেন, না। এরকম কোনো আলোচনা হয়নি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App