×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

খবর

এমপি আনার হত্যা

প্রশ্ন এড়িয়ে যাচ্ছেন ফয়সাল-মোস্তাফিজ

Icon

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : কলকাতার সঞ্জীবা গার্ডেন্সে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডের এখন পর্যন্ত মাস্টারমাইন্ড হিসেবে আখতারুজ্জামান শাহিনের নাম আসছে। কিলিং মিশনে জড়িতদের গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে এই শাহিনের সংশ্লিষ্টতার বিষয়েই সবার আগে জানতে চাচ্ছেন। চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থেকে গ্রেপ্তার ফয়সাল আলী ও মোস্তাফিজুর রহমানকে গ্রেপ্তারের পর রিমান্ডে এনে শাহিন সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্ন করেছে তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা। কিন্তু রিমান্ডের প্রথম দিনে শাহিন সম্পর্কে মুখ খোলেননি তারা। নানা কৌশলে তারা প্রশ্নগুলো এড়িয়ে গিয়ে শুধু স্বীকার করেছেন শাহিনের বসুন্ধরার ফ্ল্যাটে গিয়েছিলেন। আর এই হত্যাকাণ্ডে তারা জড়িত হয়েছেন শিমুল ভূঁইয়ার মাধ্যমে।

গতকাল শুক্রবার তদন্ত-সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। সূত্র জানায়, রিমান্ডের প্রথম দিন গতকাল কয়েক দফা ফয়সাল ও মোস্তাফিজকে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। কিন্তু এখনো তারা নতুন কোনো তথ্য দেননি। তবে স্বীকার করেছেন, শিমুল ভূঁইয়াই তাদের টাকার বিনিময়ে এই হত্যাকাণ্ডে যুক্ত করে। কিন্তু কত টাকা তাদের পাওয়ার কথা ছিল, টাকাটা শিমুল ভূঁইয়া নাকি শাহিন দিতে চেয়েছিলেন; শাহিনের ফ্লাটে আর কেউ ছিলেন কিনা; হত্যাকাণ্ডে আর কারা জড়িত- এমন প্রশ্নগুলোর কোনো উত্তর দেননি তারা। তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন- রিমান্ডের জিজ্ঞাসাবাদে তারা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেবেন। বেরিয়ে আসতে পারে অন্য কারো নামও।

উল্লেখ্য, গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে ভারতে যান এমপি আনোয়ারুল আজীম আনার। ওঠেন পশ্চিমবঙ্গের বরাহনগর থানার মণ্ডলপাড়া লেনে গোপাল বিশ্বাস নামে এক বন্ধুর বাড়িতে। পরদিন চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন আনোয়ারুল আজীম।

২২ মে হঠাৎ খবর ছড়ায়, কলকাতার পার্শ্ববর্তী নিউটাউন এলাকায় সঞ্জীবা গার্ডেন্স নামে একটি আবাসিক ভবনের বিইউ ৫৬ নম্বর রুমে আনোয়ারুল আজীম খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় ২২ মে ঢাকার শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা করেন তার মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন।

এই মামলায় পৃথক অভিযানে মোট ৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ। কলকাতায় দায়ের হওয়া হত্যা মামলায় দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে সেখানকার সিআইডি। গত বুধবার আনার হত্যা মামলায় চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থেকে গ্রেপ্তার ফয়সাল আলী ও মোস্তাফিজুর রহমানের ৬ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App