×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

খবর

চট্টগ্রামে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালিত

‘যোগাসন দুই দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অবিচ্ছেদ্য অংশ’

Icon

প্রকাশ: ২২ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম অফিস : বর্ণিল আয়োজনে চট্টগ্রামে পালিত হলো দশম আন্তর্জাতিক যোগ দিবস। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট নাগরিকদের পাশাপাশি যোগাসনে উৎসাহী নানা বয়সী ৮শ মানুষ অংশ নেন। গতকাল শুক্রবার বিকালে নগরের টাইগারপাসের নেভি কনভেনশন হলে আয়োজন করা এই অনুষ্ঠানের ।

এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য ছিল ‘ইয়োগা ফর সেলফ অ্যান্ড সোসাইটি’ বা ‘যোগাসন নিজের এবং সমাজের জন্য’। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন চট্টগ্রামে নিযুক্ত ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার ডা. রাজীব রঞ্জন। তিনি বলেন, যোগাসন ভারত ও বাংলাদেশের যৌথ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। এটি দুই দেশের মধ্যে শক্তিশালী সাংস্কৃতিক ও জনগণের মধ্যে সম্পর্কের জন্য একটি ঐক্যবদ্ধ শক্তি। যোগাসন বিশ্বের কাছে ভারতের একটি উপহার। কিন্তু এটি এখন সবাই গ্রহণ করছেন এবং এভাবে এটি একটি সাধারণ ঐতিহ্যে পরিণত হয়েছে। যোগের অনুশীলন তার তিনটি স্তম্ভ আসন (শরীরের ভঙ্গি), প্রাণায়াম (শ্বাসের ব্যায়াম) এবং ধ্যান যোগের মাধ্যমে মন এবং শরীরকে একীভূত করে আধুনিক সমাজের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে এবং এর জনপ্রিয়তা দ্রুত বাড়ছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, একটি শান্ত, সৃজনশীল এবং তৃপ্তিপূর্ণ জীবন যাপন করার উপায় হলো যোগ। এটি উত্তেজনা এবং মানসিক উদ্বেগ পরাস্ত করার পথ দেখাতে পারে।

যোগ দিবসের অনুষ্ঠানে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের পরিচালনায় যোগ অনুশীলন করা হয়। ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার ডা. রাজীব রঞ্জন কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন এবং এ ধরনের সব সংস্থাকে বাংলাদেশে সুস্থ জীবনের উপায় হিসাবে যোগকে প্রচার করার জন্য এবং যোগের মাধ্যমে বিশ্ব শান্তি, সম্প্রীতি, প্রেম এবং আধ্যাত্মিকতার বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার জন্য অভিনন্দন জানান।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ টি এম পেয়ারুল ইসলাম, ইস্পাহানি গ্রুপের চেয়ারম্যান মির্জা সালমান ইস্পাহানি, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি সালাহউদ্দিন মো. রেজা, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর (অব.) এমদাদুল ইসলাম, একুশে পদকপ্রাপ্ত সমাজসেবক রফিক আহমদ, চেম্বার পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, চসিক কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, নিছার উদ্দিন মঞ্জু, রুমকি সেন গুপ্ত প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আহ্বানে সাড়া দিয়ে ২০১৪ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ ২১ জুনকে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। সেই থেকে যোগব্যায়াম এবং স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিভিন্ন কার্যক্রম ও কর্মসূচির মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালিত হয়ে আসছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App