×

খবর

মণিপুরে নতুন করে সহিংসতায় গৃহহীন ২ হাজার মানুষ

Icon

প্রকাশ: ১২ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় মণিপুর রাজ্যে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। এতে রাজ্যের জিরিবাম জেলা থেকে অন্তত দুই হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। তাদের অনেকে পাশের রাজ্য আসামের সাচার এলাকায় আশ্রয় নিয়েছেন। ফলে ওই রাজ্যের নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্কাবস্থায় রাখা হয়েছে।

আসামের বিধানসভার লখিপুর আসনের সদস্য কৌশিক রায় বলেছেন, তার আসনসংলগ্ন মণিপুরের জিরিবাম থেকে অন্তত এক হাজার মানুষ সাচারে আশ্রয় নিয়েছেন। এই সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

ইতোমধ্যে সাচারের এসপি নুমাল মাহাত্তা বলেছেন, লখিপুরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। সেখানে বিশেষ কমান্ডো মোতায়েন করা হয়েছে।

জিরিবামের হমার মিজো ভেংয়ের এক বাসিন্দা এখন সাচারে আশ্রয় নিয়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, জিরিবামে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ায় অনেকে পরিবার-পরিজন নিয়ে পালিয়ে এসেছেন। ৬ জুন নৌকায় করে জিরি নদী পার হয়ে তারা আসামে আশ্রয় নিয়েছেন। ওই বাসিন্দা বলেন, তিনি পালিয়ে এলেও সহিংসতার মধ্যেই তার পরিবারের সদস্যরা জিরিবামে রয়ে গেছেন।

ওই বাসিন্দা আরো বলেন, ‘জিরিবাম থেকে আশ্রয়প্রার্থীদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। আমি যেখানে আছি, সেখানে প্রায় ৪০০ মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। জানি না, আমরা আবার কখন নিজের বাড়ি ফিরে যেতে পারব।’

গতকাল মণিপুরের জিরিবাম জেলা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা বলেন, জেলার মধ্যেই ৬টি আশ্রয়কেন্দ্রে ৯১৮ ব্যক্তি আশ্রয় নিয়েছেন। অনেকে ক্রীড়া কমপ্লেক্স ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিচ্ছেন।

এসব আশ্রয়প্রার্থীর একজন হলেন- মধুপুরের সুবিতা ওকরাম। তিনি জিরিবামের এক ক্রীড়া কমপ্লেক্সে আশ্রয় নিয়েছেন। সুবিতা বলেন, ‘আমরা গত বৃহস্পতিবার নিজে থেকেই বাড়ি ছেড়েছি। কারণ, আমরা শুনেছি, জঙ্গিরা আমাদের গ্রাম ঘিরে ফেলেছে।’

সবিতা আরও বলেন, ‘আমরা বড়বেক্রা থানায় আশ্রয় চেয়েছিলাম। তবে এরপর আমরা খবর পাই, আমাদের বাড়িঘরে আগুন দেয়া হয়েছে। এরপর আমাদের আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। এখন জানি না, আমরা বাড়ি ফিরে যেতে পারব কিনা।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App