×

খবর

ওবায়দুল কাদের

মামলার পর আদালত ঠিক করবেন বেনজীরকে কখন গ্রেপ্তার করা হবে

Icon

প্রকাশ: ০১ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

মামলার পর আদালত ঠিক করবেন  বেনজীরকে কখন গ্রেপ্তার করা হবে

কাগজ প্রতিবেদক : জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পত্তি অর্জনে অভিযুক্ত পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদের দেশত্যাগের বিষয়ে কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, বেনজীর আহমেদ বিচার প্রক্রিয়ার মধ্যেই আছেন। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) মামলা করার পর আদালত ঠিক করবেন, কখন তাকে গ্রেপ্তার করবেন, জেলে পাঠাবেন। গতকাল শুক্রবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

বেনজীর আহমেদের গ্রেপ্তার হওয়া উচিত কিনা- সাংবাদিকদের এমন এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটার তো প্রক্রিয়া আছে। সেই প্রক্রিয়ায় দুদক তদন্ত করছে। দুদক যদি মামলা করে, মামলা করার পর আদালত ঠিক করবেন, কখন গ্রেপ্তার করবেন, জেলে পাঠাবেন। বিচার প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে হবে। আমরা সরকার কী আদেশ দেব?

অনেক গণমাধ্যম জানাচ্ছে যে বেনজীর আহমেদ সপরিবারে দেশত্যাগ করেছেন। তাকে আগেই গ্রেপ্তার করা উচিত ছিল কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমি এটা জানি না, এটা এখনো পরিষ্কার নয়। বেনজীর আহমেদ তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে এরই মধ্যে টাকা তুলে ফেলেছেন বলে জানা যাচ্ছে। এমন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এসব বিষয়ে যেহেতু আমি অবহিত নই, এটা আইনের বিষয়। দুদক বলছে, তারা টের পেয়েছে, দুদক সেটা প্রমাণ করুক।

সরকার সৎ সাহস দেখাচ্ছে : ওবায়দুল কাদের বলেন, দুর্নীতি কেউ করে থাকতে পারেন। সেটা তার ব্যক্তিগত বিষয়। আমার কথা হচ্ছে সরকার এখানে নির্বিকার কিনা? সরকার এখানে সৎ সাহস দেখাচ্ছে। দুর্নীতির বিচার হচ্ছে, তদন্ত হচ্ছে। সরকার তো বিএনপির মতো ইনফিরিওরিটি কমপ্লেক্স (হীনম্মন্যতায়) ভুগে নাই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইনফিরিওরিটি কমপ্লেক্স সংস্কৃতিটা গড়ে তোলেননি।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে সব খবর আছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি মন্ত্রী যদি কোনো দুর্নীতি করি, সেটা কি বিনা বিচারে শেষ হয়ে যাবে? প্রধানমন্ত্রীর কাছে সব খবর আছে, কারা, কী করছেন। তিনি সব খবর রাখেন এবং সবার খবর রাখেন। তিনি তার অফিসেরও কিছু লোকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছেন। বিএনপির আমলে এমন কোনো লোকের শাস্তি হয়েছে?

আমরা আমাদের গণতন্ত্র নিয়ে আছি : বাংলাদেশে শেখ হাসিনা সবাইকে কারাগারে রেখে বিপুল ব্যবধানে জিতেছেন- ভারতে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এমন মন্তব্য করেছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভারতের নির্বাচনকালে তারা তাদের প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার জন্য যেসব কথা বলে বা বলবে, আজ যে বক্তব্য তারা দেয়, সেটা ভোটের ক্ষতি হচ্ছে মনে করলে তা সংশোধন করেও বলে। নির্বাচনকালীন বক্তব্য নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না। তিনি বলেন, আমরা যা আছি, আমরাই। আমরা আমাদের গণতন্ত্র নিয়ে আছি। পৃথিবীর অনেক দেশের চেয়েও আমাদের গণতন্ত্র চর্চা ঘরেও ভালো, বাইরেও ভালো।

দুর্নীতিতে বিএনপি নেতাদের নাম আগে আসবে : সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদ ও বেনজীর আহমেদের মতো যারা দুর্নীতিগ্রস্ত আছেন, তাদের তালিকা করার কথা জানিয়েছে বিএনপি। বিএনপি বলছে, এমন বেনজীর-আজিজ সারা বাংলাদেশে অসংখ্য সৃষ্টি করেছে আওয়ামী লীগ। এই প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, লিস্ট করলে তো প্রথমে বিএনপি নেতাদের নাম লিখতে হবে। কারণ, দুর্নীতি-লুটপাটের শিরোমণি তারা। বিএনপি নেতাদের নাম আগে আসবে। তারপরে অন্য লিস্ট দেখা যাবে।

বিএনপির নিজের ঘরেই গণতন্ত্র চর্চা নেই উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির গঠনতন্ত্র পড়েছেন? মির্জা ফখরুল কত বছর ধরে তার গঠনতন্ত্রকে লঙ্ঘন করে মহাসচিব হিসেবে আছেন? তারা নিজের ঘরেই গণতন্ত্র চর্চা করেন না, দেশে গণতন্ত্র কীভাবে প্রতিষ্ঠা করবেন? মির্জা ফখরুলের কি বৈধ অধিকার রয়েছেন? তার গঠনতন্ত্র তিনি লঙ্ঘন করেছেন। সম্মেলন ছাড়া মহাসচিব কত বছর, সেটা আগে জিজ্ঞাসা করুন।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, মির্জা আজম, আফজাল হোসেন, শিক্ষা সম্পাদক শামসুননাহার চাঁপা, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App