×

খবর

লাশ দাফনে অপর ছেলের বাধা

সন্তানের বিরুদ্ধে মাকে হত্যার অভিযোগ

Icon

প্রকাশ: ০১ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

নাসির উদ্দিন জর্জ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি : শ্রীপুরে মা রাহিলা খাতুনকে (৯৬) নির্যাতন করে সম্পত্তি লিখে না দেয়ায় ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে মাকে হত্যার অভিযোগে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে মেঝো ভাই আব্দুল হাই। এ ঘটনায় মায়ের লাশ দাফনেও বাধা দেয় অভিযোগকারী ভাই। গত বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের টেপিরবাড়ী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্তরা হলো বৃদ্ধার ছোট ছেলে ইলিয়াস (৫০) এবং তার স্ত্রী ফাতেমা খাতুন (৪৫)। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা বাড়িতে তালা দিয়ে পালিয়েছে। মৃত্যুর একদিন পেরিয়ে গেলেও ওই বৃদ্ধার লাশ এখনো দাফন করতে পারেনি তার স্বজনরা।

আব্দুল হাই লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন তার মায়ের নামে অনেক সম্পত্তি রয়েছে। অভিযুক্ত ছোট ভাই ইলিয়াস মাকে তার কাছে রেখে অন্যান্য ভাই-বোনদের অগোচরে পূর্বেও তার নিজের এবং স্ত্রী ফাতেমা খাতুনের নামে ১৩-১৪ বিঘা জমি লিখে নিয়েছে। ওই ঘটনায় তিনি আদালতে মামলা দায়ের করেন যা বর্তমানে গাজীপুর আদালতে চলমান রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার আমরা আদালতে গেলে কৌশলে তারা মাকে জোর করে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে নিয়ে আবারো চার বিঘা জমি লিখে নেয়। জমি লিখে দিতে রাজি না হওয়ায় মাকে শারীরিক নির্যাতন করে মেরে ফেলার হুমকি দেন। অভিযুক্ত ভাই ও তার স্ত্রী মাকে প্রায় সময়ই শারীরিক নির্যাতন করত। পরে বিষয়টি জানতে পেরে আমরা অন্যান্য ভাই-বোন একাধিকবার মাকে ছোট ভাই ইলিয়াসের বাড়ি থেকে আনার চেষ্টা করেলেও সে আমাদের মাকে আমাদের সঙ্গে দেয়নি এবং মার সঙ্গে যোগাযোগ করতে বাধা দেয়। পরে যোগাযোগের চেষ্টা করলে আমাদের মারপিটসহ খুন জখমের হুমকি দিয়ে ভয়ভীতি দেখায়। বিষয়টি স্থানীয়দেরও তারা অবগত করে।

গত বুধবার ছোট ভাই আমার মাকে তার বাড়ি থেকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় এবং পরবর্তীতে রাত ১০টার দিকে প্রাইভেটকারে মাকে নিয়ে তার বাড়িতে আসে। বাড়িতে প্রবেশ করার সময় তার বাড়ির সিকিউরিটি লাইট বন্ধ রাখে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে খবর পাই আমার মা মারা গেছে। পরে সে ও তার স্ত্রী দ্রুত লাশ দাফনের ব্যবস্থা করতে থাকে। মৃত্যু অস্বাভাবিক বলে মনে হচ্ছে না। তার মায়ের মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ থাকায় এবং দাফনে বাধা দেয়ায় পুলিশ বৃদ্ধার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

মায়ের মৃত্যুর জন্য ছোট ভাইকে অভিযুক্ত করে বৃদ্ধার মেঝো ছেলে আব্দুল হাই বলেন, নির্যাতনের কারণেই তার মায়ের মৃত্যু হয়েছে এবং তার মায়ের লাশ দাফনে বাধা দেন তিনি। মায়ের মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ থাকায় ছোট ভাই ও তার স্ত্রীকে অভিযুক্ত করে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। সমাধান না হওয়া পর্যন্ত লাশ দাফন করতে দেবেন না বলেও জানান। তার মায়ের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। গোসল করানোর সময় এটা দেখা গেছে। তবে এ ঘটনায় বৃদ্ধার বড় ছেলের কোনো অভিযোগ নেই।

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাখাওয়াত হোসেন এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিক পরিচয় শুনে ক্ষেপে যান। তিনি কোনো তথ্য দিতে না চাইলে বিভিন্ন প্রশ্নের পর লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করেন এবং বৃদ্ধার মরদেহ ময়নাতদন্তের গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর সত্যতা নিশ্চিত করেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App