×

খবর

পাকিস্তানে তাপমাত্রা ছাড়াল ৫২ ডিগ্রি

Icon

প্রকাশ: ২৯ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : তীব্র তাপপ্রবাহের কবলে পাকিস্তান। গতকাল সোমবার দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় সিন্ধু প্রদেশের ঐতিহাসিক শহর মহেঞ্জোদারোর তাপমাত্রা ৫২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে (১২৫.৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট) পৌঁছেছিল বলে জানিয়েছে পাকিস্তানের আবহাওয়া অফিস। খবর আনাদোলুর।

পাকিস্তান আবহাওয়া বিভাগের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা শহীদ আব্বাস রয়টার্সকে বলেছেন, ২৫০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে নির্মিত সিন্ধু সভ্যতার সময়কালের প্রতœতাত্ত্বিক স্থানগুলোর জন্য পরিচিত শহর মহেঞ্জোদারোতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে- যা এখন পর্যন্ত এই মৌসুমের সর্বোচ্চ দৈনিক তাপমাত্রার রেকর্ড।

বর্তমানে মহেঞ্জোদারো সিন্ধু প্রদেশের একটি ছোট শহর আর এই শহরের আবহাওয়া প্যাটার্ন হলো- গ্রীষ্মকালে ব্যাপক গরম, শীতকালে মৃদু শীত এবং নিম্ন বৃষ্টিপাত, অর্থাৎ প্রায় মরু আবহাওয়া। তবে ছোটো শহর হলেও এখনো মার্কেট, বেকারি, চায়ের দোকান, মেশিন-ইলেকট্রনিক্স মেরামতসহ বিভিন্ন দোকানে রীতিমতো সরগরম থাকে মহেঞ্জোদারো। কিন্তু বর্তমান অসহনীয় গরম-তাপপ্রবাহে দোকানপাটে ভিড় নেই বলেই চলে।

শহরের একটি চা দোকানের মালিক ওয়াজিদ আলী (৩২) রয়টার্সকে বলেন, ‘প্রচণ্ড গরমে ঘর থেকে বের হচ্ছে না। প্রতিদিন রেস্তোরাঁ খুলে আমি অলস হয়ে বসে থাকি, তবে কাস্টমার আসছে না।’

মহেঞ্জোদারোর স্থানীয় চিকিৎসক মুশতাক আহমেদ বলেন, অতি গরম আবহাওয়া থেকে বাঁচতে লোকজন খুব বেশি প্রয়োজন না থাকলে বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন না।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফের জলবায়ুবিষয়ক উপদেষ্টা রুবিনা খুরশীদ আলম বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তন ও উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণে যেসব দেশ নিয়মিত বিভিন্ন আবহাওয়াগত দুর্যোগের শিকার হচ্ছে, সেসব দেশের তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে পাকিস্তান।

পাকিস্তানের আবহাওয়া দপ্তরের শীর্ষ নির্বাহী সরদার সরফরাজ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, পাকিস্তানের ইতিহাসে সর্বোচ্চ দৈনিক তাপমাত্রার রেকর্ড ৫৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ২০১৭ সালে দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ বেলুচিস্তানে এই তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। পাকিস্তানের সর্বোচ্চ দৈনিক তাপমাত্রার রেকর্ডের পাশাপাশি এটি এশিয়ার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এবং বিশ্বের চতুর্থ সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড।

তিনি আরো জানান, কয়েকদিনের মধ্যে মহেঞ্জোদারো এবং আশেপাশের অঞ্চলে তাপপ্রবাহ কমে যাবে, তবে পাকিস্তানের বৃহত্তম শহর করাচিসহ সিন্ধুর অন্যান্য অঞ্চলে আরেকটি তাপপ্রবাহ আঘাত হানবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App