×

খবর

এমপি নিক্সনকে শোকজ

৫ থানার ওসিকে প্রত্যাহারের নির্দেশ ইসির

Icon

প্রকাশ: ২৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের তৃতীয় ধাপের নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে শেষ করার জন্য পাঁচ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রত্যাহারের জন্য পুলিশ মহাপরিদর্শককে নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গতকাল সোমবার ইসির উপসচিব মো. মিজানুর রহমান নির্দেশনাটি পাঠিয়েছেন।

একই সঙ্গে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মজিবুর রহমান চৌধুরীকে (নিক্সন) কারণ দর্শানোর নোটিস (শোকজ) দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা জিয়াউল হক খান।

পাঁচ থানার ওসি প্রত্যাহারের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠানের জন্য কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি), চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ, চট্টগ্রামের চন্দনাইশ থানার অফিসার ইনচার্জ এবং আনোয়ারা থানার অফিসার ইনচার্জকে সংশ্লিষ্ট রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ে আজই (গতকাল সোমবার) সংযুক্ত করে সংশ্লিষ্ট থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শককে (তদন্ত) ৩১ মে পর্যন্ত দায়িত্ব দেয়ার জন্য কমিশন সিদ্ধান্ত দিয়েছে।

এছাড়া পটুয়াখালী জেলার দুমকী থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্বাচন শেষ না হওয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ে গতকাল থেকে সংযুক্ত করে সংশ্লিষ্ট থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শককে (তদন্ত) দায়িত্ব দেয়ার জন্য নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত দিয়েছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রয়োজনীয় কার্যক্রম নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে জানাতে বিনীতভাবে অনুরোধও করা হয়েছে চিঠিতে।

এমপি নিক্সন চৌধুরীকে শোকজ : নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মজিবুর রহমান চৌধুরীকে (নিক্সন) কারণ দর্শানোর নোটিস (শোকজ) দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। গতকাল তাকে নোটিসটি পাঠানো হয়েছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তা জিয়াউল হক খান এতে উল্লেখ করেন- আপনি মজিবুর রহমান চৌধুরী, সংসদ সদস্য ফরিদপুর-৪। সদরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী মো. শহিদুল ইসলাম ‘আনারস’ প্রতীকের (শহিদুল ইসলাম) বিপক্ষে আপনার একটি অডিও/ভিডিও ক্লিপের বক্তব্য হোয়াটসঅ্যাপে অবহিত করেছেন এবং এ সংক্রান্ত বিষয়ে বিভিন্ন মিডিয়াতেও প্রচার হয়েছে। এছাড়া ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০১৪ উপলক্ষে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী মোখলেছুর রহমান ‘ঘোড়া’ প্রতীক আপনার বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন। এ সংক্রান্ত আচরণবিধি লঙ্ঘন বিষয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

যেহেতু উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর বিধি-২ এর উপবিধি (১৪) অনুযায়ী আপনি ‘সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি।’ উল্লেখ, বিধি-২২ এর উপবিধি (১) ও (২) অনুযায়ী সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নির্বাচনপূর্ব সময়ে নির্বাচনী এলাকায় প্রচারণায় বা নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন না।

সেহেতু উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর বিধি-২২ এর উপবিধি (১) ও (২) এবং বিধি-১৮ অনুযায়ী এবং অন্যান্য প্রাপ্ত নথিগুলোতে, আপনার আচরণবিধি লঙ্ঘিত হয়েছে মর্মে প্রতীয়মান হয়েছে। এ অবস্থায় আপনি সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হওয়া সত্ত্বেও কেন নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন? তার সুনির্দিষ্ট লিখিত ব্যাখ্যা, আগামী ২৮ মে বিকাল ৪টার মধ্যে উপজেলা নির্বাচন অফিসার, ভাঙ্গা সদরপুর ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হলো। অন্যথায় আপনার বিরুদ্ধে এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করা হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App