×

খবর

দুবাইয়ে প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

দক্ষ জনশক্তি রপ্তানির লক্ষ্যে প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেয়া হবে

Icon

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 দক্ষ জনশক্তি রপ্তানির লক্ষ্যে  প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেয়া হবে

সাইফুল ইসলাম তালুকদার, ইউএই থেকে : মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দক্ষ জনশক্তি রপ্তানির লক্ষ্যে দেশভিত্তিক প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি। তিনি বলেন, যে দেশে যে ধরনের জনবলের চাহিদা আছে সেই দেশে সেই ধরনের জনবল পাঠানো হবে। সেই লক্ষ্যে আমরা চাহিদাভিত্তিক বা দেশভিত্তিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেব। গতকাল শনিবার দুবাইয়ের হায়াত রিজেন্সিতে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের যেসব কোম্পানি জনশক্তি আমদানি করে থাকে তাদের মধ্য থেকে প্রথম সারির ১৭টি কোম্পানির চেয়ারম্যান বা প্রধান নির্বাহীকে এই মতবিনিময় সভায় আমন্ত্রণ জানানো হয়। সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর, প্রতিমন্ত্রীর সফরসঙ্গী প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ খায়রুল আলম এবং একান্ত সচিব মামুনুর রহমান, দুবাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন ও কনস্যুলেটের কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বেশির ভাগ কোম্পানি ভিসা প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রিতার অভিযোগ করে। কর্মীদের ভাষাদক্ষতা ও আইটি দক্ষতার উন্নয়ন দরকার বলেও জানানো হয়। প্রতিমন্ত্রী এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে ইস্যুগুলো সমাধানের উদ্যোগ নেবেন বলে জানান। আলোচকরা বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আরো বেশি জনশক্তি নেয়ার আহ্বান জানান। সেই সঙ্গে অদক্ষ জনশক্তি ভিসা চালু করার ব্যাপারে ইউএই সরকারের সঙ্গে আলাপ-আলোচনার উদ্যোগ নিতেও আহ্বান জানানো হয়।

বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের সভা : এর আগে গত শুক্রবার দুবাইয়ে রেডিসন ব্লু হোটেলে স্থানীয় প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী। বৈধভাবে বিদেশে আসা এবং বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রবাসীবান্ধব এই সরকার প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠানোর ক্ষেত্রে ২ দশমিক ৫ শতাংশ প্রণোদনা দিচ্ছে। আগামীতে তা আরো বাড়বে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আপনারা ব্যাপকভাবে রেমিট্যান্স পাঠিয়ে সহযোগিতা করলে খুব শিগগির স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মিত হবে। বিমানবন্দরে প্রবাসীদের হয়রানি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে সরকারের যথেষ্ট সুদৃষ্টি রয়েছে। তারপরও কোনো প্রবাসী হয়রানি হলে আমরা এর ব্যবস্থা নেব। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে অত্যন্ত আন্তরিক। প্রবাসীদের হয়রানি বন্ধের লক্ষ্যে তিনি দিকনির্দেশনা দিয়েছেন, আমরা সেভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

দুবাইয়ে বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের সভাপতি মাহতাবুর রহমান নাসিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য এস এ কে একরামুজ্জামান, আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. খায়রুল আলম ও দুবাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন। আরো বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কমার্শিয়াল কাউন্সিলর আশীষ কুমার সরকার, দুবাইয়ে বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের সিনিয়র সহসভাপতি সিআইপি আইয়ুব আলী বাবুল ও সহসভাপতি মোহাম্মদ রাজা মল্লিক, বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল আজমানের সাধারণ সম্পাদক সিআইপি মো. হেলাল উদ্দিন, বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল ফুজিরার সভাপতি সাইফুর রহমান প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১০ লাখেরও বেশি বাংলাদেশি রয়েছেন। তারা এই দেশটিতে ব্যবসাবাণিজ্যেও ব্যাপক সুনাম বয়ে আনছেন। সরকারও প্রবাসীবান্ধব। প্রবাসীদের সুবিধা-অসুবিধা নিয়েও সরকার সব সময় ভালো কথা বলছেন। এতে তারাও বেশ আশ্বস্ত বোধ করেন। এক্ষেত্রে আমিরাত থেকে ব্যাপক রেমিট্যান্স যাচ্ছে দেশে। রেমিট্যান্স পাঠানোর ক্ষেত্রে আমিরাত দ্বিতীয় অবস্থানে আছে।

এনআরবি সিআইপি নির্বাচিত হওয়ার ক্ষেত্রেও আমিরাত শীর্ষে। অথচ প্রবাসীরা দেশে এনবিআর কর্তৃক ইনকাম ট্যাক্সের অজুহাতে নানাভাবে হয়রানি হচ্ছেন। আর এক্ষেত্রে অর্থ দিয়ে খুশি করতে পারলে সব সমাধান হয়ে যায়। তবে সচেতন প্রবাসীরা এমনটি আশা করেন না। কারণ দেশ উন্নয়নের ক্ষেত্রে এটি একটি অন্তরায়। তাই এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেন প্রবাসীরা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App