×

খবর

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী

ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা ভেবে পলিথিন বর্জন করতে হবে

Icon

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা ভেবে পলিথিন বর্জন করতে হবে

কাগজ প্রতিবেদক : বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ও পরিবেশের কথা চিন্তা করে পাট খাতের উন্নয়নে কাজ করতে হবে। প্লাস্টিক ও পলিথিন বর্জন করতে হবে। পরিবেশকে দূষণ ও ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে হবে। কাজেই রাইস মিলারদের বলব শতভাগ পাটের তৈরি বস্তা ব্যবহার করুন। একেকটি চালের বস্তার ওজন ৪০০ গ্রামের মতো। চালের সঙ্গে বস্তার দামও পেয়ে যাচ্ছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার রংপুর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জেলার পাট চাষি, মিল মালিক, ব্যবসায়ী ও পাট খাত-সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। পাট অধিদপ্তর ও জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারের উদ্যোগে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান বাবলু, জাকির হোসেন সরকার, নাছিমা জামান ববি, সাবেক সংসদ সদস্য হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া এবং বস্ত্র ও পাট সচিব মো. আব্দুর রউফ।

বস্ত্রমন্ত্রী বলেন, দেশের অর্থনীতিতে পাটের হারানো ঐতিহ্য পুনরুদ্ধার ও পরিবেশবান্ধব পাটজাত পণ্যের বহুমুখী ব্যবহার বাড়াতে হবে। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়েছেন।

নানক বলেন, পাটকল মালিকদের বলব ৫০ কেজি চালের বস্তা ছাড়াও ২৫ থেকে ৩০ কেজির বস্তা তৈরি করুন। যেহেতু বেশির ভাগ পরিবারে মাসে ২৫ থেকে ৩০ কেজি চাল লাগে।

পাটের বীজ উৎপাদনের বিষয়ে মন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, সোনালি আঁশের দেশ বাংলাদেশ, পাট বীজের জন্য এখন প্রতিবেশী দেশের ওপর নির্ভরশীল। পাট বীজের চাহিদার প্রায় তিন-চতুর্থাংশ বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়। আমরা মাত্র এক-চতুর্থাংশ পাট বীজ উৎপাদন করি।

মন্ত্রী বলেন, পাট অধিদপ্তরের আওতায় উন্নত প্রযুক্তিনির্ভর পাট ও পাট বীজ উৎপাদনের জন্য একটি প্রকল্প নেয়া হয়েছে। এর আওতায় ৩৬টি জেলার ১৫০টি উপজেলায় পাট বীজ উৎপাদন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

পরে মন্ত্রী রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারে (জেডিপিসি) আয়োজিত বহুমুখী পাট পণ্য মেলা-২০২৪ এর উদ্বোধন করেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App