×

খবর

মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

নারীদের শোষণ বঞ্চনা নিরসনে সরকার তৎপর

Icon

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

নারীদের শোষণ   বঞ্চনা নিরসনে  সরকার তৎপর

‘নারী-পুরুষ সমতা রুখতে পারে সহিংসতা’ স্লোগান নিয়ে গতকাল মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের সভাকক্ষে মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন রিমির সভাপতিত্বে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ এবং যৌতুকবিরোধী কার্যক্রম পরিচালনা সংক্রান্ত সমন্বয় কমিটির এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধের সমন্বিত পরিকল্পনা গ্রহণ, সারাদেশে যৌতুকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার নিমিত্তে সমন্বিত পরিকল্পনা গ্রহণ এবং নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে জাতীয় কর্মপরিকল্পনা-২০১৮-২০৩০ বাস্তবায়নের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ নিয়ে কমিটির সদস্যদের মধ্যে আলোচনা করা হয়।

নারী পাচার, যৌন হয়রানি ও অন্য সব ধরনের শোষণ বঞ্চনা অবসানে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগের কথা বলতে গিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা ১৪টি ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টার স্থাপন, ৬৭টি ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেল স্থাপন, জাতীয় পর্যায়ে একটি ডিএনএ প্রোফাইলিং ল্যাব, বিভাগীয় পর্যায়ে ৮টি ডিএনএ স্ক্রিনিং ল্যাব, টোল ফ্রি ১০৯ হেল্পলাইন স্থাপন, ন্যাশনাল ও রিজনাল ট্রমা কাউন্সিলিং সেন্টার স্থাপন, ৬টি সেল্টার হোম স্থাপন এবং জয় মোবাইল অ্যাপস তৈরি করেছি।

সামাজিক নিরাপত্তা কার্যক্রম আওতায় গৃহীত কর্মসূচি সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঠডই কর্মসূচির আওতায় বর্তমানে ১০ লাখ ৪০ হাজার নারীকে প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে চাল দেয়া হচ্ছে, গঈইচ কর্মসূচির আওতায় সারাদেশে ১৫ লাখ ৪ হাজার জন মাকে প্রতিমাসে ৮০০ টাকা করে দেয়া হচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কিশোর-কিশোরী ক্লাবের মাধ্যমে সমাজের বিভিন্ন স্তরে প্রান্তিক কিশোর-কিশোরীদের লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধ ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, যৌতুক সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদের অবস্থান শক্তিশালী করার লক্ষ্যে বর্তমানে ৪৮৮৩টি ক্লাব এবং ১৫০০টি হাব গঠন করা হয়েছে।

সভায় মহিলা ও শিশুবিষয়ক সচিব নাজমা মোবারেক, মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কেয়া খান, খাদিজাতুল আনোয়ার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বিজ্ঞপ্তি

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App