×

খবর

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় একজনের প্রার্থিতা বাতিল

যশোর সদর ও নরসিংদীর রায়পুরায় নির্বাচন স্থগিত

Icon

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : ভাইস চেয়ারম্যান পদে বৈধ প্রার্থীর মৃত্যু হওয়ায় তৃতীয় ধাপে আগামী ২৯ মে অনুষ্ঠেয় নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল বৃহস্পতিবার নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে নিয়োজিত উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়। নিহত সুমন মিয়া (৪০) উপজেলার চরসুবুদ্ধি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিনের ছেলে। নির্বাচনে তালা প্রতীকের প্রার্থী ছিলেন তিনি।

বুধবার দুপুরে নির্বাচনের প্রচারণার জন্য রায়পুরা চরাঞ্চলে গণসংযোগে যাচ্ছিল প্রার্থী সুমন মিয়া। তার গাড়িবহর চরাঞ্চলের পাড়াতলী ইউনিয়নের মিরেরকান্দি এলাকায় পৌঁছালে প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী আবিদ হাসান রুবেল ও তার সমর্থকদের মুখোমুখি হয়। ওই সময় আবিদ ও তার সমর্থকরা সুমনের গাড়িবহরে হামলা চালায়। এ সময় তারা এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে। উভয় প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষ ও গুলাগুলির সময় প্রার্থী সুমন তার গাড়ি থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করেন।

এ সময় রুবেলের সমর্থকরা তালা প্রতীকের প্রার্থীকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। প্রাণে বাঁচতে আহত অবস্থায় সুমন বাশঁগাড়ি পুলিশ ফাঁড়িতে আশ্রয় নেন। সেখান থেকে সন্ধ্যা ৬টায় পুলিশ তাকে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, আইনি জটিলতা থাকায় যশোর সদর উপজেলা পরিষদের ভোট স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। তৃতীয় ধাপে এ উপজেলার ভোট হওয়ার কথা ছিল ২৯ মে। গতকাল বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনের উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ স্থগিতাদেশ দেয়া হয়েছে।

যশোরে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে যশোর সদর উপজেলা পরিষদ ভোটে চেয়ারম্যান পদে মো. শাহারুল ইসলাম উচ্চ আদালতে মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণার জন্য রিট পিটিশন করেন। উচ্চ আদালত গত ১৩ মে এক আদেশে শাহারুল ইসলামকে নির্বাচনে অংশগ্রহণসহ তাকে প্রতীক বরাদ্দের জন্য আদেশ দেন। পরে এ আদেশের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন আপিল বিভাগে আবেদন করে। ২০ মে আদালত ‘নো-অর্ডার’ আদেশ দেয়।

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের এ আদেশ বাস্তবায়নের জন্য পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ২৯ মে যশোর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সব পদের ভোট স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

এ বিষয়ে যশোর সদর উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আনিছুর রহমান বলেন, নির্বাচন কমিশন থেকে চিঠি পেয়েছি। পরবর্তী আদেশ না আসা পর্যন্ত সব প্রার্থীকে ভোটের প্রচারসহ সব কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া, নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে মঠবাড়িয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদের প্রার্থিতা বাতিল করেছে ইসি। গতকাল এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানিয়েছেন ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম।

জানা গেছে, গত ১৩ মে মঠবাড়িয়ার প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। ইসির পক্ষ থেকে ওই দিন প্রার্থীদের সব ধরনের সভা-সমাবেশ করতে নিষেধ করা হয়। কমিশনের আদেশ অমান্য করে মঠবাড়িয়া পৌরসভার সামনে বিশাল মিছিল-সমাবেশ করেন রিয়াজ। ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম বলেন, শুনানিতে দোষ স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন রিয়াজ। ভিডিও ফুটেজসহ অন্য তথ্যাদি পর্যালোচনা ও শুনানির পর কমিশন সর্বসম্মতভাবে এই প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করে। এদিকে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে কেন প্রার্থিতা বাতিল করা হবে না তা জানতে চেয়ে চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলায় ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু আহমেদ চৌধুরীকে তলব করেছে ইসি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App