×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

খবর

পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কলকাতার ফ্ল্যাটে এমপি আনারের লাশ মেলেনি

Icon

প্রকাশ: ২৩ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কলকাতার ফ্ল্যাটে এমপি আনারের  লাশ মেলেনি

কাগজ প্রতিবেদক : ভারতের কলকাতায় যে ফ্ল্যাটে সংসদ-সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে, সেখানে গিয়ে কলকাতার পুলিশ মরদেহ পায়নি বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, কীভাবে হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে, সে বিষয়ে তদন্ত চলছে। গতকাল বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠান শেষে কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনের বরাতে এ তথ্য দেন তিনি।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘এমপি আনার সাহেবের হত্যাকাণ্ডটি অত্যন্ত দুঃখজনক, মর্মান্তিক, অনভিপ্রেত। কলকাতা পুলিশ যে ফ্ল্যাটে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে, সেখানে ঢুকেছিল, কোনো লাশ সেখানে পায়নি। তবে, হত্যাকাণ্ডের মূল হোতাকে এবং কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, ডিবি গ্রেপ্তার করেছে এবং কলকাতা পুলিশও দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে।’

তিনি আরো বলেন, আমরা আমাদের মিশনের মাধ্যমে খোঁজখবর রাখছি এবং মিশন থেকেও কলকাতা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। বিষয়টি তদন্তাধীন, তাই এর বেশি কিছু বলা সমীচীন নয়। আমাদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে আরো যোগাযোগ রাখছে।

সেনাবাহিনীকে সরকার ব্যবহার করায় সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা এসেছে- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় হাছান মাহমুদ বলেন, যে ডিপার্টমেন্ট বা আইনের অধীনে তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে, তা তো দুর্নীতির কারণে। এটা তার ব্যক্তিগত দায়। এটি তো কোনো ইনস্টিটিউশনাল বিষয় নয় এবং সেখানে তা বলাও হয়েছে।

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব এনার্জি এবং গ্রিনটেক ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ২৪তম জাতীয় নবায়নযোগ্য শক্তি সম্মেলন উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পরিবেশবিদ ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, বাংলাদেশ উচ্চ কার্বন নিঃসরণকারী দেশ নয় বরং আমরা শিল্পপ্রধান দেশগুলোর উচ্চ কার্বন নিঃসরণজনিত কারণে জলবায়ু পরিবর্তনের অসহায় শিকার। মন্ত্রী জানান, কার্বন নিঃসরণ কমানোর কোনো বাধ্যবাধকতা আমাদের না থাকলেও বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় পরিবেশ সংরক্ষণের অন্যতম পথিকৃৎ বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা অনুযায়ী আমাদের দেশ ২০৪১ সালের মধ্যে মোট ব্যবহার্য শক্তির ৪০ শতাংশ সবুজ শক্তি ব্যবহারের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের দিকে এগিয়ে চলেছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমুদ্রবিজ্ঞান বিভাগের খণ্ডকালীন অধ্যাপনায় নিয়োজিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান স্মরণ করিয়ে দেন- বিপুল মহাবিশ্বে প্রাণের একমাত্র ধারক-বাহক এই পৃথিবীকে বাঁচিয়ে রাখতে এর পরিবেশ-প্রকৃতিকে সবুজ-শ্যামল জীবন্ত রাখার কোনো বিকল্পই নেই। আর এজন্য প্রয়োজন সব মানুষের সচেতন ভূমিকা। এ সময় ড. হাছান এ সম্মেলন আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান এবং শক্তির নবায়নযোগ্য উৎস যেমন সৌর-শক্তি, বায়ু-শক্তি, পানি-শক্তিসহ যেসব শক্তি উৎপাদনে কার্বন নিঃসরণ হয় না, সেই সবুজ শক্তি ব্যবহার করে পরিবেশ রক্ষায় ভূমিকা রাখতে সবাইকে উৎসাহিত করার আহ্বান জানান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালের সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজিবিষয়ক সমন্বয়ক মোহাম্মদ আখতার হোসেন, ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের (ইডকল) মো. আলমগীর মোর্শেদ, বাংলাদেশ সোলার রিনিউয়েবল এনার্জি অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. নূরুল আকতার এবং সাসটেইনেবল অ্যান্ড রিনিউয়েবল এনার্জি ডেভেলপমেন্ট অথরিটির চেয়ারম্যান মুনিরা সুলতানা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন। গ্রিনটেক ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা খন্দকার মোর্শেদ মিল্লাত ও নির্বাহী পরিচালক লুৎফর রহমান যথাক্রমে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব এনার্জির সহযোগী অধ্যাপক ড. নাফিস শামস স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App