×

খবর

প্রধান বিচারপতি

আব্দুল গাফফার চৌধুরী জাতির বিবেক ছিলেন

Icon

প্রকাশ: ২০ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেছেন, মানব কল্যাণবোধ ও দেশপ্রেম জড়িত বিভিন্ন লেখা ও কর্মের কারণে সুদূর প্রবাসে বসবাস করেও আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী জীবদ্দশায় জাতির বিবেকে পরিণত হয়েছিলেন। নিজেকে অধিষ্ঠিত করেছিলেন বাঙালি জাতির পথনির্দেশক হিসেবে।

গতকাল রবিবার বিকালে প্রখ্যাত সাংবাদিক-সাহিত্যিক ও কলামিস্ট আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে এ স্মরণ সভা আয়োজন করে আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী স্মৃতি সংসদ।

প্রধান বিচারপতি বলেন, আজ আমরা এমন এক মহান ব্যক্তিত্বের স্মরণে এখানে সবাই সমবেত হয়েছি, যিনি স্বাধীন জাতিসত্তা হিসেবে বাঙালির যে উন্মেষ, তার প্রারম্ভ হতে শুরু করে সাফল্যে-সংকটে সবসময় বাঙালিকে তার চিন্তা, লেখনি ও কর্মের মাধ্যমে আমৃত্যু পথনির্দেশ দিয়ে গেছেন। যদিও সাধারণের কাছে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারির’ গীতিকার হিসেবেই তিনি বেশি পরিচিত। আমার কাছে মনে হয় তার এই পরিচয়টি বরং আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর প্রতিভার সামগ্রিকতাকে আড়াল করে দেয়।

তিনি বলেন, ৮৮ বছরের বর্ণাঢ্য জীবন শেষে ২০২২ সালের এই দিনে আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী। তার প্রস্থানে যে শূন্যতা তৈরি হয়েছে তা আজো আমরা প্রতিনিয়ত অনুভব করি। সাধারণ চোখে ৮৮ বছরকে সুদীর্ঘকাল মনে হলেও, কিছু কিছু মানুষ আছেন, যারা তাদের কর্মের ডালিতে জীবনকে এমনভাবে সাজান যে দীর্ঘ জীবনও তার কর্ম ও অবদানকে ধারণ করার জন্য যথেষ্ট মনে হয় না। আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী তেমনই একজন মানুষ। পরবর্তী প্রজন্মের কাছে গাফ্ফার চৌধুরীর জীবনাদর্শ সম্পর্কে জানতে তার জীবন ও কর্ম সম্পর্কে একটি সংকলন বের করতে আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী স্মৃতি সংসদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

স্মরণসভায় আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী স্মৃতি সংসদের আহ্বায়ক আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্মৃতি সংসদের উপদেষ্টা প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী স্মারক বক্তৃতা উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট লেখক, গবেষক ও রাজনীতিবিদ মোনায়েম সরকার। আরো বক্তব্য রাখেন, সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন, সংসদ সদস্য অ্যারোমা দত্ত, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য আবদুল মান্নান চৌধুরী, একুশে টেলিভিশনের সিইও নাট্যকার পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়, বিশিষ্ট সাংবাদিক আবেদ খান, ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসির মামুন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস। সভা শেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী স্মৃতি সংসদের সদস্য সচিব সৈয়দ সামাদুল হক।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App