×

খবর

একনেক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

বিদেশি ঋণের প্রকল্প বাস্তবায়নে বিশেষ নজর দিতে হবে

Icon

প্রকাশ: ১৭ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

বিদেশি ঋণের প্রকল্প বাস্তবায়নে  বিশেষ নজর দিতে হবে
কাগজ প্রতিবেদক : দেশের উন্নয়ন কার্যক্রমে বৈদেশিক ঋণ নির্ভর প্রকল্প বাস্তবায়নে বিশেষ নজর ও বাড়তি পরিশ্রম করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, যেসব প্রকল্পে বৈদেশিক ঋণ ও অনুদান আছে সেগুলো বাস্তবায়নে বিশেষ নজর দিতে হবে। এছাড়া প্রতি তিন মাস পরপর এসব প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে একনেকে একটি প্রতিবেদন দিতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে এমন নির্দেশ দেন তিনি। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও এনইসি চেয়ারম্যান শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের কাছে বিস্তারিত তুলে ধরেন পরিকল্পনামন্ত্রী অবসরপ্রাপ্ত মেজর আব্দুস সালাম, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী মো. শহীদুজ্জামান সরকার ও পরিকল্পনা বিভাগের সিনিয়র সচিব সত্যজিত কর্মকার। এ সময় পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ও অন্যান্য সচিবরা উপস্থিত ছিলেন। ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, প্রকল্প বাস্তবায়নের দক্ষতা বাড়াতে প্রকল্প পরিচালকরা প্রশিক্ষণ নিয়ে যেন একই স্থানে কাজে যোগ দিতে পারেন সেই নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, প্রকল্পের শুরুতেই সম্ভাব্যতা সমীক্ষা সঠিকভাবে করতে হবে। সেজন্য যেসব প্রতিষ্ঠান সম্ভাব্যতা সমীক্ষার কাজ করে তাদের নিবন্ধন করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া মানসম্মত উন্নয়ন কার্যক্রম নিশ্চিতের পাশাপাশি প্রকল্প বাস্তবায়নে দেরি হওয়ার প্রবণতা ও ব্যয় বৃদ্ধি এড়াতে দক্ষ প্রকল্প পরিচালক নিয়োগে প্রকল্প পরিচালকদের একটি পুল গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রকল্প না নিয়ে গুচ্ছ ভিত্তিতে জেলাভিত্তিক প্রকল্প নেয়ারও নির্দেশ দেন। এক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়া জেলাগুলো অগ্রাধিকার দিতে বলেছেন। এ বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য জেলাভিত্তিক মাস্টার প্ল্যান করতে হবে। এজন্য অনুমোদন দিয়েছে এনইসি। আগামীতে সুষম উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে। আগামীতে পশ্চাদপদ বলতে কোনো কথা থাকবে না। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে দারিদ্র্য ছিল ৭০ শতাংশ। এখন সেটা কমে হয়েছে ১৮ দশমিক ৭ শতাংশ। অতিদারিদ্র্য ছিল ৫০ শতাংশ। এখন সেটি কমে ৫ দশমিক ৬ শতাংশে নেমে এসেছে। গ্রামীণ উন্নয়নে গুরুত্ব দেয়ার মাধ্যমে দারিদ্র্য আরো কমে আসবে। তিনি বলেন, আমরা যে বৈদেশিক ঋণ নিচ্ছি সেগুলো বিচার বিশ্লেষণ করেই নেয়া হয়। আগের মতো সুতা লাগানো ঋণ নেয়া হয় না। কারণ ঋণ দিয়ে এটা করতে হবে ওটা করতে হবে এসব থাকলে আমরা সেই ঋণ নেই না। দ্রুত প্রকল্প বাস্তবায়নেও জোর দিতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ বিষয়ে আইএমইডি সচিব আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন জানান, গত জুলাই থেকে এপ্রিল পর্যন্ত ১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন হয়েছে ৪৯ দশমিক ২৬ শতাংশ। গত অর্থবছরের একই সময়ে এ হার ছিল ৫৫ দশমিক ৩৩ শতাংশ। এনইসি বৈঠকে সব সচিবদের সামনে এ তথ্য তুলে ধরে এডিপি বাস্তবায়ন বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App