×

খবর

আইসিজে গণহত্যা মামলা

এবার যোগ দিচ্ছে মিসর

Icon

প্রকাশ: ১৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : ইসরায়েলের বিরুদ্ধে দক্ষিণ আফ্রিকা আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে দায়ের করা মামলায় যোগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে মিসর। দক্ষিণ আফ্রিকার করা ওই মামলায় গাজা উপত্যকায় গণহত্যা কনভেনশনের অধীনে ইসরায়েলকে তার বাধ্যবাধকতা লঙ্ঘনের জন্য অভিযুক্ত করা হয়েছে। গত রবিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে মিসর বলেছে, ফিলিস্তিনি বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে ইসরায়েলি আগ্রাসনের কারণে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। মিসর এমন সময়ে এই পদক্ষেপের কথা জানাল- যখন কাতার ও মিসরের মধ্যস্থতায় কয়েক দফা আলোচনা হয়েও হামাস ও ইসরায়েলের যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়নি। ধারণা করা হচ্ছে যুদ্ধবিরতির আলোচনায় ইসরায়েলের অনমনীয় ও অপেশাদার আচরণের কারণেই ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে মিসর। ইসরায়েলের প্রধান মিত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যেখানে মিসরের সঙ্গে বৈরিতা হোক তা কোনোভাবেই চাইছে না এমন অবস্থায় মিসরের এই পদক্ষেপ ইসরায়েলের জন্য কঠোর কূটনৈতিক বার্তা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। মিসরের এই ঘোষণার পর ইসরায়েলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক পরিচালক অ্যালন লিয়েল এক প্রতিক্রিয়ায় আল জাজিরাকে বলেন, এই পদক্ষেপটি ইসরায়েলের জন্য একটি ‘অবিশ্বাস্য কূটনৈতিক আঘাত’। ‘সুতরাং, দ্য হেগের আদালতে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে মিসর যোগদানের ঘোষণা একটি সত্যিকারের কূটনৈতিক ধাক্কা। ইসরায়েলকে বিষয়টি খুব গুরুত্ব সহকারে নিতে হবে’ বলেন অ্যালন লিয়েল। মিসরে সফররত স্লোভেনীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী তানজা ফাজনের সঙ্গে বৈঠকের পর রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে মিসরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। অন্যদিকে স্লোভেনীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী তানজা ফাজন বলেন, রাফাতে আরো উত্তেজনা রোধ করতে এবং সীমান্ত ক্রসিংগুলো পুনরায় চালু করার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করা উচিত। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার স্লোভেনিয়ান সরকার গাজা যুদ্ধের অবসানের জন্য একটি ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের স্বীকৃতির প্রক্রিয়া শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রী রবার্ট গোলবারের বরাতে তিনি বলেন, ‘তার দেশ ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিতে চায়।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App