×

খবর

চিরকুট উদ্ধার

দোহারে শিশুকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

Icon

প্রকাশ: ১০ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

দোহার-নবাবগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি : ঢাকার দোহারে শ্বশুর বাড়ির নিজ বসতঘরে শিশুকন্যাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর এক গৃহবধূ ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। গত বুধবার সন্ধায় উপজেলার বিলাসপুর ইউনিয়নের দেবীনগর এলাকা থেকে মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহতরা হলেন ওই গ্রামের সৌদি প্রবাসী সিরাজ শেখের স্ত্রী কাজল (২৯) ও তার দেড় বছরের মেয়ে তাবাসুম। নিহতের শাশুড়ি আসমা আক্তার বলেন, বুধবার বিকালে কাজলের ঘরের দরজা বন্ধ থাকায় তাকে ডাকাডাকি করলেও সাড়া দেয়নি। পরে প্রতিবেশীদের ডেকে এনে দরজা ভেঙে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত কাজলের এবং খাট থেকে তার মেয়ের নিথর দেহ উদ্ধার করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে দোহার থানায় নিয়ে যায়। তিনি বলেন, আমাদের পারিবারিক কোনো দ্ব›দ্ব ছিল না। তবে সকালে কাজলের মন খারাপ ছিল। কী কারণে, কেন আত্মহত্যা করেছে বলতে পারব না। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়। এতে লেখা ছিল, ‘সবার কাছে একটি অনুরোধ আমার লাশটি পোছমাউনে দিয়েন না আর আমার সামীরে আমার লাসটা দেখাইয়েন না। যদি দেখান তাহলে আমি মরেও সান্তি পাবো না। সবার কাছে আমি খমা চাইতেছে যদি কুনু ভুল করে থাকি তাহলে আমাকে মাপ করে দিবেন। মা আমার খাদিজাকে দেখে রেখ আর তোমার কাছে রেখ.... আমার মরার লাসটা যেনো আমার বাবা বাড়ি থেকে দাফন কাফন করা হয়।’ তবে এলাকাবাসীর ধারণা স্বামীর সঙ্গে অভিমান করেই আত্মহত্যা করেছে কাজল। তা না হলে এমন চিরকুট লিখবে কেন। তদন্ত সাপেক্ষে রহস্য উদঘাটনের দাবি জানান তারা। দোহার থানার এসআই মিন্টু লস্কর জানান, ওই গৃহবধূর স্বামী প্রায় ৭-৮ বছর ধরে সৌদি আরবে থাকেন। বৃদ্ধা শাশুড়ি ও দুই শিশু সন্তান নিয়ে শ্বশুর বাড়িতেই থাকতেন কাজল। তদন্তের পর ঘটনার বিস্তারিত জানা যাবে বলে জানান তিনি। এ বিষয়ে দোহার সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল আলম বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাটি হত্যা না আত্মহত্যা তা মাথায় নিয়ে তদন্ত করা হবে বলে জানান তিনি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App