×

খবর

দীর্ঘ যানজটে দুর্ভোগ

বনানীতে গার্মেন্টস বন্ধের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

Icon

প্রকাশ: ০৫ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই গার্মেন্টস বন্ধের প্রতিবাদে রাজধানীর বনানীতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন পোশাক শ্রমিকরা। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বিক্ষোভ শুরু হয়। প্রায় দেড়ঘণ্টা পর পুলিশের মধ্যস্থতায় সড়ক ছেড়ে দেন শ্রমিকরা। এতে রাজধানীর ব্যস্ততম এই সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়েন মহাখালী-বিমানবন্দর রুটে চলাচলকারী সাধারণ মানুষ। বিশেষ করে যারা বিমানবন্দরের উদ্দেশে বের হয়েছিলেন তাদের ভোগান্তিতে পড়তে হয় বেশি। বিক্ষোভকারীরা সড়ক ছেড়ে দেয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেও তীব্র যানজট ছিল সড়কটিতে। পুলিশ বলছে, মালিকপক্ষ আজ (রবিবার) শ্রমিকদের সঙ্গে বসে সমঝোতা করবেন। আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, বিনা নোটিসে সৈনিক ক্লাবের সামনে নেপারেল গার্মেন্টস লিমিটেড বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তাদের বেতন বকেয়া রয়েছে এখনো। এ কারণে তারা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। দাবি মানা না হলে আবারো তারা বিক্ষোভে নামবেন। পোশাক কারখানাটির সুপারভাইজার ইসমাইল হোসেন বলেন, ৭-৮ বছর ধরে আমরা কাজ করছি। ঈদের আগে শেষ মুহূর্তে বেতন-বোনাস দিয়ে ছুটি দিয়েছে। লম্বা বন্ধের পর গত ২ মে কারখানা খুলে দেয়। গতকাল সকালে গিয়ে দেখি তালা দেয়া। কারখানা বন্ধ করে দিলে আমাদের দেনা-পাওনা মিটিয়ে দিক। আমরা অন্য কোথাও কাজ খুঁজে নেব। কারখানার শ্রমিক মো. সেতু ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেন, গত পাঁচ বছর ধরে ভালোভাবে ঈদ বোনাস দেয়নি। বেতন দিতেও ঘুরিয়েছে। তারপরও আমরা কাজ করে গেছি। ঈদুল আজহার আগে এভাবে গার্মেন্টস বন্ধ করে দেয়া হলে আমরা কোথায় যাব? গার্মেন্টস বন্ধ করতে হলে তিন মাসের বেতন আর কোরবানি ঈদের বোনাস মালিককে দিতে হবে বলেও দাবি করেন তারা। এ বিষয়ে বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী সাহান হক বলেন, নেপারেল গার্মেন্টস লিমিটেড নামের একটি কারখানা বন্ধের প্রতিবাদ করেন শ্রমিকরা। তাদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ঘটনাস্থলে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। আমরা গার্মেন্টসটির মালিকপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তারা শ্রমিকদের সঙ্গে সমঝোতার জন্য আজ বসবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App