×

খবর

জাতিসংঘের তথ্য

গাজাকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিতে সময় লাগবে ৮০ বছর

Icon

প্রকাশ: ০৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : এই মুহূর্তে যদি গাজা উপত্যকায় যুদ্ধবিরতি হয় এবং স্বাভাবিক গতিতে সেখানে ঘর-বাড়ি, হাসপাতাল-পরিষেবা কেন্দ্র, রাস্তাঘাট ও আগেকার অন্যান্য অবকাঠামো পুনঃনির্মাণের কাজ শুরু হয়- সেক্ষেত্রে উপত্যকাকে ৭ অক্টোবরের হামলার পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে নিতে সময় লাগবে ৮০ বছর। যদি পুনঃনির্মাণ ও পুনর্গঠনের কাজের গতি স্বাভাবিকের চেয়ে ৫ গুণ বেশি উন্নীত করা হয় তাহলেও উপত্যকাকে আগের মতো বসবাসযোগ্য করে তুলতে ২০৪০ সাল পেরিয়ে যাবে। গত বৃহস্পতিবার একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচিবিষয়ক প্রকল্প ইউএন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম (ইউএনডিপি)। সেখানে এ তথ্য উল্লেখ করে বলা হয়েছে, ইসরায়েলি বাহিনীর গত ৭ মাসের গোলা ও বোমা বর্ষণে নজিরবিহীনভাবে তছনছ হয়ে গেছে গাজা। উপত্যকার অন্তত ৮০ হাজার ভবন সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে গেছে, হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে এবং গোটা উপত্যকায় দারিদ্র্য বেড়েছে ভয়াবহভাবে। ইউএনডিপির প্রতিবেদনে অবশ্য গাজার ভবনগুলো পুনঃনির্মাণের পাশাপাশি জনগণের আর্থিক অবস্থাকেও আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়টিকেও ধরা হয়েছে। ইউএনডিপির প্রশাসনিক কর্মকর্তা অ্যাশিম স্টেইনার রয়টার্সকে এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘অভূতপূর্ব মাত্রার প্রাণহানি, অবকাঠামো ও অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে যাওয়া এবং দারিদ্র্যের ব্যাপক উল্লম্ফণের কারণে গাজায় সার্বিক যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে- তা স্বল্প সময়ের মধ্যে কাটিয়ে ওঠা একেবারেই সম্ভব নয়। এই যুদ্ধ গাজার আগামী কয়েক প্রজন্মের ভবিষ্যৎকে বিপদে ফেলে দিয়েছে।’ গত ৭ অক্টোবর গাজার ইরেজ সীমান্তে উপত্যকা নিয়ন্ত্রণকারী গোষ্ঠী হামাসের যোদ্ধাদের অতর্কিত হামলা এবং ইসরায়েলের ভূখণ্ডে ঢুকে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ১ হাজার ২০০ মানুষকে হত্যার জবাবে ওই দিন থেকেই গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী, যা এখনো চলছে। প্রতিবেদনে ইউএনডিপি বলেছে, যুদ্ধের মধ্যে ২০২৩ সালের ডিসেম্বরে গাজার মোট জনসংখ্যার মধ্যে দরিদ্রের হার ছিল ৩৮ দশমিক ৮ শতাংশ। বর্তমানে যুদ্ধ ৬ মাস পেরিয়ে ৭ মাসে পা দিয়েছে; যদি ৯ মাস পর্যন্ত এই অবস্থা থাকে, তাহলে গাজায় দরিদ্রদের হার পৌঁছাবে ৬০ দশমিক ৭ শতাংশে। ‘এর অর্থ যুদ্ধ আর দুমাস অব্যাহত থাকলে গাজায় মধ্যবিত্ত বলে কোনো শ্রেণির অবস্থান আর থাকবে না’- প্রতিবেদনে বলেছে ইউএনডিপি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App