×

খবর

নির্বাচনী মালামাল যাবে ৩ মে থেকে

ব্যস্ত সময় কাটছে ইসিতে

Icon

প্রকাশ: ২৯ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ব্যস্ত সময় কাটছে ইসিতে
এন রায় রাজা : চার ধাপে দেশের ৪৯৭টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আগামী ৮ মে প্রথম ধাপে ভোট হবে ১৫২ উপজেলায়। নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে যথাসাধ্য চেষ্টা করছে ইসি। এদিকে স্থানীয় সরকারের এ নির্বাচনে সহিংসতার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল। গত সপ্তাহে অনুষ্ঠিত ডিসি, এসপি, গোয়েন্দা বাহিনী ও বিভিন্ন বাহিনীর প্রতিনিধিদের নিয়ে এক আলোচনা সভায় এ ধরনের আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন যে সুষ্ঠু হয়েছে তারই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন। প্রথম ধাপে ১৫২ উপজেলায় মধ্যে মাত্র ২২টি উপজেলায় ইভিএমে ভোট হবে, বাকিগুলো ব্যালটে। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ চলবে। এদিকে উপজেলা নির্বাচন সুষ্ঠু ও সহিংসতা মুক্ত করতে দিন রাত বৈঠক করে চলেছেন সিইসিসহ অন্য চার কমিশনার। বাদ যাচ্ছেন না ইসি সচিবসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও। শুক্র-শনিবারও ইসিতে বিভিন্ন সেকশনের বৈঠক চলছে। নেয়া হচ্ছে নানা ধরনের কৌশল। রাত ৮টা পর্যন্ত ইসি সচিবালয় খোলা থাকছে- এমনও দেখা গেছে। এই তীব্র তাপদাহ উপেক্ষা করে সিইসিসহ অন্য চার কমিশনার, ইসি সচিব, অতিরিক্ত সচিব ছুটে বেড়াচ্ছেন এক জেলা থেকে অন্য জেলায়। ইসি রাশেদা সুলতানা ঘুরে বেড়াচ্ছেন গাইবান্ধায়; ইসি আহসান হাবিব খান রয়েছেন ফিরোজপুরেসহ বৃহত্তর বরিশালে। এদিকে টাঙ্গাইল অঞ্চলে আছেন ইসি মো. আলমগীর। তারা প্রতিদিন তিন থেকে চারটি বৈঠক করছেন ডিসি-এসপি, নির্বাচনী কর্মকর্তা, প্রার্থী, ভোটারসহ রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে। দিচ্ছেন সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রতিশ্রæতি। এ বিষয়ে ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ জানান, চার ধাপে উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। কোনো ধরনের অনিয়ম বরদাশত করা হবে না। গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্যরা মাঠজুড়ে পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছেন; তারা ইসিকে তা অবগত করছেন। এছাড়া আমাদের কমিশনারা দেশের বিভিন্ন জেলায় ছুটে বেড়াচ্ছেন। ইসিতে চলছে সর্বক্ষণ নানাবিধ বৈঠক। সুষ্ঠু নির্বাচনের কৌশল করতে সবার মতামত নেয়া হচ্ছে। বসা হচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা বাহিনীর সঙ্গে। এ নির্বাচনে কোনো হুমকি দেখছেন কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে এ অতিরিক্ত সচিব বলেন, কোনো হুমকি নেই। যেহেতু স্থানীয় সরকারের নির্বাচন; তাই এখানে বেশি আবেগ কাজ করে। তাছাড়া কোনো কোনো দল নির্বাচন বয়কট করেছে- তাদের দিক থেকে নির্বাচন প্রতিহতের কোনো আশঙ্কা আছে কিনা- এর জবাবে তিনি বলেন, এখনো পর্যন্ত তেমন কোনো তথ্য নেই। আমরা জানি, এ নির্বাচনে অনেক বেশিসংখ্যক প্রার্থী লড়ছেন। তাই কে কোন দলের সেটা তো মুখ্য বিষয় নয়। তবে আমাদের চ্যালেঞ্জ- ভোটাররা যাতে নির্বিঘেœ ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিতে পারেন এবং ভোট দিয়ে বাড়ি ফিরতে পারেন- সেটা নিশ্চিত করা। আর প্রচার প্রচরণা তো চলছে। এখনো পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর খবর পাওয়া যায়নি। ইসির অতিরিক্ত সচিব (নির্বাচন ব্যবস্থাপনা-২) ফরহাদ আহম্মদ খান জানিয়েছেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। এবার মাঠে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানোর প্রস্তুতি। সবকিছু প্রস্তুত। আমরা ২ মের পর থেকে রিটানিং কর্মকর্তা, ডিসি অফিস বা সহকারী রিটানিং কর্মকর্তার (ইউএনও অফিস) বরাবর নির্বাচনী মালামাল পাঠাব। প্রথমে ব্যালটবাক্স, সিল, গালা, কালি প্যাড, স্কেল, পেন, অমোছনীয় কালি প্রভৃতি যাবে। সবশেষে ব্যালট যাবে। তবে নির্বাচন স্বচ্ছ করতে এবং ব্যালট ছিনতাই বা রাতে সিল মারা রোধে আমরা ব্যালট পেপার সকালে সরবরাহের নির্দেশনা দিয়েছি। রিটার্নিং কর্মকর্তারা বলেছেন, দূর-দুরান্তের কেন্দ্রগুলোতে আগের রাতে ব্যালট পাঠানো প্রয়োজন। বাকি কেন্দ্রগুলোতে ভোটের দিন সকালে ব্যালট পাঠানো হবে। এর জন্য অতিরিক্ত বরাদ্দ চেয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। ইসি সেটা বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছে। এবার ৪ ধাপে কমবেশি ৪৯৭টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হচ্ছে। ইতোমধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় শেষ হয়েছে। প্রথম ধাপের প্রচার চলছে। এই ধাপে ১৫২টি উপজেলায় ভোট হবে আগামী ৮ মে। দ্বিতীয় ধাপে ১৬১টি উপজেলায় হবে ২১ মে, দ্বিতীয় ধাপের প্রচার ২ মের পর থেকে শুরু হবে। তৃতীয় ধাপে ১২৯টি উপজেলায় ২৯ মে এবং চতুর্থ ধাপে ৫৫টি উপজেলায় ভোট হবে আগামী ৫ জুন। তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার এখনো সময় আছে। তবে পার্বত্য চট্টগ্রামে সহিংসতা চলায় আপাতত পার্বত্য কয়েকটি উপজেলায় ভোট স্থগিত করেছে ইসি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App