×

খবর

ওবায়দুল কাদের

মন্ত্রী-এমপির স্বজনরা প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে ব্যবস্থা

Icon

প্রকাশ: ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, উপজেলা নির্বাচনে মন্ত্রী-এমপির স্বজনদের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ব্যাপারে দলের পক্ষ থেকে যে ঘোষণা আছে, তা অমান্য করলে সময়মতো ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতকাল বুধবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, দলের যারা মন্ত্রী-এমপি এমন পর্যায়ে আছেন, তাদের সন্তান ও স্বজনেরা যেন উপজেলা নির্বাচনে না আসেন- সেই নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু অনেক সংসদ সদস্যের সন্তান ও স্বজনেরা যে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেননি, সেই প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, প্রথম পর্যায়ের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় চলে গেছে। কেউ কেউ বলেছেন, আমরা বিষয়টি আরো আগে জানলে সিদ্ধান্ত নিতে আমাদের সুবিধা হতো। এরপরও কেউ কেউ প্রত্যাহার করেছেন, কেউ কেউ করেননি। আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন কমিশনের যে সময়সীমা, তারপরও ইচ্ছা করলে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে পারতেন। তবে নির্বাচনের আগের দিন পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সুযোগ আছে। তাই নির্বাচন কমিশনের (ইসি) আনুষ্ঠানিক প্রত্যাহারের সময়সীমা ছাড়াও, নিজে নিজেই প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা সম্ভব। তাই শেষ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করবে দল। দলীয় নির্দেশনা অমান্য করলে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ব্যবস্থা নেয়ার ব্যাপারে চিন্তা করা হবে। সময়মতো এ সিদ্ধান্ত অবশ্যই নেয়া হবে। মাঠে থাকবে আওয়ামী লীগ : বিএনপি কর্মসূচির নামে যেন আবার সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করতে না পারে, সে কারণেই মাঠে থাকবে আওয়ামী লীগ। তবে নির্বাচনের আগে রাজধানীতে দুদলই একই দিনে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করেছে। তাই ভবিষ্যতেও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির পথেই থাকবে আওয়ামী লীগ। ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি একতরফা কোনো সমাবেশ করতে গেলে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিষয়টি এসে যায়। বিএনপি একতরফা কোনো সমাবেশ করতে অগ্নিসন্ত্রাস করে। আওয়ামী লীগও একই সময়ে সমাবেশ ডেকে থাকে। জনগণের জানমালের নিশ্চয়তা, সম্পদ রক্ষায় সরকারি দল হিসেবে আওয়ামী লীগের একটা দায়িত্ব আছে। এজন্য তো কোনো সংঘাত হয়নি। সমস্যা কোথায়? তিনি বলেন, আমরা কি বাধা দিয়েছি? আমাদের সমাবেশ আমরা করছি, তাদের সমাবেশ তারা করেছে। আমরা শান্তি সমাবেশে শান্তি বজায় রাখছি। বিএনপি রাজপথের দখল নিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন কি না- এই প্রশ্নে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, এখন নির্বাচন হয়ে গেছে। নির্বাচন যারা বয়কট করেছে, তারা নির্বাচন করতে দেবে না- সেই স্বপ্ন মাঠে মারা গেছে। নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করতে পারবে না, ৫ দিনের মাথায় পড়ে যাবে। এমন দুঃস্বপ্ন তারা দেখেছিল। সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, এস এম কামাল হোসেন, সুজিত রায় নন্দী, সাংস্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App