×

খবর

হাজীগঞ্জ

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে শিশুসন্তানসহ নারীর আত্মহত্যা

Icon

প্রকাশ: ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক, চাঁদপুর : দেড় বছর বয়সি শিশুসন্তান আব্দুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে তাহমিনা আক্তার (২৪) সাগরিকা এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে চাঁদপুর-লাকসাম রেলপথের হাজীগঞ্জ কাজীগাঁও এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাহমিনা হাজীগঞ্জ উপজেলার ধড্ডা গ্রামের দেওয়াঞ্জি বাড়ির মো. রফিকুল ইসলামের মেয়ে। তার মুনতাহা (৫) নামে কন্যাসন্তানও আছে। ২০১৯ সালে একই উপজেলার সন্না গ্রামের হাওলাদার বাড়ির মো. নুরুল ইসলাম হাওলাদারের ছেলে মো. মাসুদুজ্জামান হাওলাদারের সঙ্গে সামাজিকভাবে তাহমিনার বিয়ে হয়। আত্মহত্যার ঘটনার পর হাজীগঞ্জ থানাপুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। এরপর বিকালে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করেন চাঁদপুর রেলওয়ে (জিআরপি) থানাপুলিশ। চাঁদপুর রেলওয়ে থানার ওসি মাসুদুর রহমান বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে সুরাতহাল তৈরি করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্তসাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাহমিনা তার ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এর আগে তাহমিনা গত ২৮ মার্চ তার স্বামী ও পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে হাজীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগের পর স্বামী দেশে এলেও কোনো সুরাহা না পাওয়ায় আত্মহত্যা করেছেন বলে স্থানীয়দের ধারণা। অভিযোগ থেকে জানা গেছে, তাহমিনা আক্তার বিয়ের পর থেকেই তার বাবার বাড়িতে থাকতেন। কারণ বিয়ের পরে বাবার কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা ধার নিয়ে স্বামীকে কুয়েত পাঠান। স্বামী প্রবাসে থাকা অবস্থায় তাহমিনার সঙ্গে পারিবারিক বিষয় নিয়ে মোবাইল ফোনে বাকবিতণ্ডা হয়। তার স্বামী তাকে বাবার বাড়ি থেকে অন্যত্র থাকতে বলে। যে কারণে সে হাজীগঞ্জ মকিবাদ চৌধুরী পাড়া দুই সন্তানকে নিয়ে বাসা ভাড়া করে থাকতেন। সেখানে থাকা অবস্থায় স্বামী তাকে নানা অপবাদ দিয়ে মোবাইল ফোনে অকথ্য ভাষায় গাল মন্দ করতেন এবং তাদের ভরণপোষণ দিতেন না। যে কারণে স্বামী প্রবাসে থাকা অবস্থায় তাকে তালাক দেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App