×

খবর

পোশাক শিল্পে মামলার জট কমাতে প্রয়োজন ‘বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি’

Icon

প্রকাশ: ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পোশাক শিল্পে বিরোধের ধরন পরিবর্তন হচ্ছে। বাড়ছে মামলার সংখ্যা, জট ও দীর্ঘসূত্রিতা। দীর্ঘদিন একটি মামলা আটকে থাকা শুধু জনগণের জন্যই নয়, বরং রাষ্ট্রের জন্যও যথেষ্ট ভোগান্তির। তাই মামলায় দীর্ঘসূত্রতা, আর্থিক দিক এবং অন্যান্য বিষয় বিবেচনায় বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তি (অলটারনেটিভ ডিসপুট রেজল্যুশন) বা এডিআর প্রক্রিয়া নেয়া উত্তম ও সহজ পদ্ধতি- যা পোশাক শিল্পে দ্রুত ন্যায়বিচার নিশ্চিত করবে। ‘তৈরি পোশাক শিল্পের জন্য কার্যকর বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি ব্যবস্থার সম্ভাবনা ও করণীয়’ শীর্ষক এক কর্মশালায় এসব কথা বলেন বিশিষ্টজনরা। গতকাল সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে সলিডারিটি সেন্টার এই কর্মশালার আয়োজন করে। এতে প্রধান বক্তা ছিলেন অনুষ্ঠানে ঢাকার শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালের জেলা ও দায়রা জজ এম এ আওয়াল। সলিডারিটি সেন্টারের কান্ট্রি প্রোগ্রাম ডিরেক্টর এ কে এম নাসিমের সভাপতিত্বে কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সলিডারিটি সেন্টারের ডেপুটি কান্ট্রি প্রোগ্রাম ডিরেক্টর মনিকা হার্টসেল। এডিআর বিষয়ে গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মুস্তাফিজ আহমেদ। কর্মশালায় আরো আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র এসিট্যান্ট সেক্রেটারি নাভিলা আল মোনা, অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম খান, বাংলাদেশ পোশাক শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি তৌহিদুর রহমান প্রমুখ। কর্মশালায় জজ এম এ আওয়াল বলেন, শ্রম আদালতে মামলা চলমান আছে ২২ হাজার। এ সংখ্যা দেশের শ্রমিক সংখ্যার তুলনায় বেশি নয়। তবুও পোশাক শিল্পে এডিআর প্রক্রিয়া কার্যকর করতে হলে শ্রম আইন সংশোধন করতে হবে বলে জানান তিনি। মনিকা হার্টসেল বলেন, অবৈধভাবে বরখাস্ত হওয়া শ্রমিকদের মামলাগুলো বছরের পর বছর ধরে শ্রম আদালতে আটকে থাকতে পারে আর অন্যদিকে বরখাস্ত হওয়া শ্রমিকরা থাকে কর্মহীন। তারা লড়াই করে যায় পরিবারের অন্ন সংস্থানে। এ কে এম নাসিম বলেন, নিয়োগকর্তাদের সঙ্গে শ্রমিকদের ব্যক্তিগত বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য এডিআর প্রক্রিয়াটি অবশ্যই শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন উপযুক্ত আইনি বিধানগুলো বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এ অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। এডিআর প্রক্রিয়ায় শ্রমিকদের পাওনা নিশ্চিত করতে হবে এবং অন্যান্য অধিকার কার্যকরভাবে ও অল্প সময়ের মধ্যে নিশ্চিত করতে হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App