×

শেষের পাতা

সুনামগঞ্জে ভেসে গেছে দুই হাজার পুকুরের মাছ, ক্ষতি ৫ কোটি টাকা

Icon

প্রকাশ: ২২ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সুনামগঞ্জে ভেসে গেছে দুই হাজার পুকুরের মাছ, ক্ষতি ৫ কোটি টাকা

মো. সাজ্জাদ হোসেন শাহ্, সুনামগঞ্জ থেকে : পাঁচ দিনের টানা বর্ষণ ও ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে ভেসে গেছে সুনামগঞ্জের ২ হাজার পুকুরের মাছ।

জেলা মৎস্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, আকস্মিক বন্যায় জেলা সদর, দোয়ারাবাজার, ছাতক, বিশ্বম্ভরপুর ও তাহিরপুরসহ বিভিন্ন উপজেলার নি¤œাঞ্চলের ছোটবড় ২ হাজার পুকুর বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

এতে প্রায় ২৫০ মেট্রিক টন মাছ ও মাছের পোনা ভেসে গেছে। ফলে মাছ চাষিরা ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়েছেন। ভেসে যাওয়া মাছের আর্থিক মূল্য ৫ কোটি টাকারও বেশি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে বন্যার পানিতে পুকুরের মাছ ভেসে যাওয়ায় আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন জেলার সহ¯্রাধিক মাঝারি ও ক্ষুদ্র পর্যায়ের মাছ চাষিরা। এতে অনেকের উপার্জনের মাধ্যম মাছ চাষ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় তারা হতাশ। ঘুরে দাঁড়াতে সরকারের সহায়তা প্রত্যাশা করেছেন।

ধর্মপাশা উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের মাছ চাষি সামছুল হক বলেন, আমার পুকুরে রুই, কাতল, মৃগেল ও তেলাপিয়ার চাষ করেছিলাম। কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টি ও ঢলের পানিতে পুকুরে থাকা প্রায় ৩ লাখ টাকার মাছ পানিতে ভেসে গেছে। অনেক চেষ্টা করেও মাছ রক্ষা করতে পারিনি। গতকাল (বৃহস্পতিবার) পানি কিছুটা কমেছে। কিন্তু যে ক্ষতি হয়েছে, তা, সরকারি সহায়তা ছাড়া কাটিয়ে উঠতে পারব না।

তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের মাছ চাষি নুরুল হক বলেন, বাড়ির পাশে ৫টি পুকুরে রুই, কাতল, গ্রাসকার্প ও তেলাপিয়া মাছের চাষ করেছিলাম। এবারের বন্যায় পাঁচটি পুকুরের মাছ বানের পানিতে ভেসে যাওয়ায় ক্ষতি ৫ লাখ টাকারও বেশি। মাছ রক্ষায় পুকুরের চারপাশে জালের বেষ্টনী দিয়েও কোনো লাভ হয়নি। এই জাল কিনতে খরচ হয়েছে ৫০ হাজার টাকা। সরকারি সহায়তা না পেলে পথে

বসতে হবে। কোনো উপায় দেখছি না।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার মাছ চাষি তারা মিয়া বলেন, বাড়ির সামনের পুকুরে শিং, মাগুর ও কই মাছ চাষ করেছিলাম। বানের পানিতে তা ভেসে যাওয়ায় প্রায় ২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. শামসুল করিম বলেন, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মাছ চাষিদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তাদের পুনর্বাসনের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলেও শুনেছি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App