×

শেষের পাতা

যাত্রীদের ভোগান্তি

রেমালের প্রভাবে দুই দফা বন্ধ মেট্রোরেল

Icon

প্রকাশ: ২৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : শুধু উপকূলেই নয়, ঘূর্ণিঝড় রেমেলের প্রভাব পড়েছে রাজধানীতেও। গতকাল সোমবার সকাল থেকে দমকা বাতাসের সঙ্গে হয়েছে ভারি বৃষ্টি। প্রতিকূল আবহাওয়া থাকা সত্ত্বেও জীবিকার তাগিদে যারা ঘরের বাইরে বের হয়ে মেট্রোরেলে গন্তব্যে যেতে স্টেশনে পৌঁছেছেন তারা পড়েন বিড়ম্বনায়।

মেট্রোরেল চলাচলে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থায় ত্রæটির কারণে স্বাভাবিক চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। সিগন্যাল সিস্টেম সঠিকভাবে কাজ করছিল না। সকাল ৭টায় চালু করা হলেও তা কিছুক্ষণ পর বন্ধ হয়ে যায়। ২ ঘণ্টা পর আবার চালু হয় এবং সন্ধ্যার পর আবারো চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

গতকাল সকাল ১০টা ৮ মিনিটের দিকে উত্তরা উত্তর স্টেশন থেকে একটি মেট্রোরেল ছাড়ে। তবে সেটি চলাচলেও বিঘœ ঘটে বলে কর্তৃপক্ষ ও যাত্রীরা জানান। ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিটের (এমআরটি) জনসংযোগ কর্মকর্তা নাজমুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, ঘূর্ণিঝড় রেমেলের কারণে বিদ্যুৎ সরবরাহে সমস্যা হচ্ছিল। কিন্তু সেই ট্রেনটি মিরপুর ১০ নম্বর স্টেশনে পৌঁছার পর বন্ধ হয়ে যায়। এরপর ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে। দুই ঘণ্টায় সমস্যা সমাধানের পর উত্তরা থেকে আবার চালু হয়।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের কোম্পানি সচিব (যুগ্ম সচিব) মোহাম্মদ আবদুর রউফ জানিয়েছেন, মেট্রোরেল চলাচলের জন্য যে ইলেকট্রিক পাওয়ার সাপ্লাই রয়েছে টেকনিক্যাল কারণে সেটিতে সমস্যা দেখা দেয়। শেওড়াপাড়া থেকে বিজয় সরণি অংশে এ সমস্যা দেখা দেয়ায় সকালে মেট্রোরেল চলাচল বন্ধ রাখতে হয়। তবে ইঞ্জিনিয়াররা অতি দ্রুত সমস্যার সমাধান করেন।

যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পরে আবারো রেল চালু করা হয়। তখন স্টেশনগুলোতে কিছুক্ষণ পর পর মাইকিং করে ‘সাময়িক বিলম্ব হবে’ বলে যাত্রীদের জানানো হয়। যান্ত্রিক ত্রæটির কারণে ট্রেন ২০ মিনিট পর পর চলবে বলেও জানানো হয়। ৪৫ মিনিট পর উত্তরা থেকে মিরপুর-১০ নম্বরে একটি ট্রেনে আসতে দেখা যায়, তবে খুবই ধীর গতিতে চলেছে। প্রাথমিকভাবে আগারগাঁও থেকে মতিঝিলের উভয় অংশে মেট্রো চলাচল বন্ধ রেখে উত্তরা থেকে আগারগাঁওয়ের উভয় লাইনে সচল রাখা হয়। সন্ধ্যার পর আবার মেট্রোরেল বন্ধ করে দেয়া হয়। তাড়াতাড়ি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সন্ধ্যার পরও যাত্রীরা বিপাকে পড়ে।

বৃষ্টিতে রাজধানীর সড়কে পানি জমে যাওয়ায় সকাল থেকেই বিভিন্ন স্টেশনে আসতে থাকে যাত্রীরা। হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যাত্রীরা বিপাকে পড়ে। হাঁটু সমান পানি মাড়িয়ে অনেকে স্টেশনে পৌঁছার পর আবার অনেকে ফিরে যান। আবার অনেক যাত্রী মেট্রোরেলের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা যায়। স্টেশনের কাউন্টারে দায়িত্বরত ব্যক্তিরা মেট্রোরেল কখন ছাড়বে ও কী কারণে বন্ধ তা জানাতে পারেননি। উত্তরা উত্তর স্টেশনে কার্ড পাঞ্চ কাউন্টারেও দীর্ঘ লাইন হয়।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App