×

শেষের পাতা

সিপিডির সেমিনারে তথ্য উপস্থাপন

১০ বছরে খেলাপি ঋণ বেড়েছে এক লাখ কোটি টাকারও বেশি

Icon

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 ১০ বছরে খেলাপি ঋণ বেড়েছে এক লাখ কোটি টাকারও বেশি

কাগজ প্রতিবেদক : দেশে গত ১০ বছরে খেলাপি ঋণ এক লাখ কোটি টাকার বেশি বেড়েছে বলে জানিয়েছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ (সিপিডি)। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশের ব্যাংকিং সেক্টরের জন্য সামনে কী আছে’ শীর্ষক এক সেমিনারে মূল প্রবন্ধে এ তথ্য তুলে ধরা হয়। এটি উপস্থাপন করেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন।

ড. ফাহমিদা বলেন, গত ১০ বছরে খেলাপি ঋণ ৪২ হাজার ৭২ কোটি টাকা থেকে বেড়ে এক লাখ ৪৫ হাজার ৬৩ কোটি টাকা হয়েছে। আর দেশে মন্দ ঋণের পরিমাণ এখন পাঁচ লাখ ৫৬ হাজার ১৯৯ কোটি টাকা। এছাড়া ব্যাংকে মধ্যবিত্ত মানুষের জমা অর্থ কমছে। ব্যাংকে সুশাসনে প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতা ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণে স্বাধীনতা না থাকায় এ নেতিবাচক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ব্যাংক খাতে তথ্য সরবরাহে বড় ধরনের অভাব রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, বিভিন্ন গোষ্ঠীর যোগসাজশে যে প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতা তৈরি হয়েছে, তার শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। আর প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতার জন্যই তারল্য সংকটে পড়েছে ইসলামী ব্যাংকগুলো।

ব্যাংক মার্জার প্রসঙ্গে সিপিডির নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘ব্যাংক মার্জার চাপিয়ে দেয়ার বিষয় নয়। এটা কতটা ইতিবাচক হলো, কোন নীতিমালায় খারাপ ব্যাংককে ভালো ব্যাংকে একীভূত করা হলো, তা নিয়ে

প্রশ্ন রয়েছে। পাশাপাশি, ডলারের দাম বাড়ানো ও সুদের হার বাজারে ছেড়ে দেয়া নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। ব্যক্তিস্বার্থ উদ্ধারেই ব্যাংক খাতে এ দুরবস্থার তৈরি হয়েছে।’ এ অবস্থা থেকে উত্তরণে ব্যাংকিং কমিশন করে এ খাতে ‘শিষ্টের পালন ও দুষ্টের দমনের’ উদ্যোগ নেয়ার পরামর্শ দেন ফাহমিদা খাতুন।

সিপিডির বিশেষ ফেলো ড. মোস্তাফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদে বিরোধী দলীয় উপনেতা ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, সাবেক পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংক দুষ্টের পালন, শিষ্টের দমন করছে। ভুল পলিসি তৈরির কারণেই বাংলাদেশ ব্যাংক ঘন ঘন সার্কুলার দেয়। ব্যাংক খাত ভঙুর অবস্থায় এসে দাঁড়িয়েছে। এ অবস্থার উন্নতি না হলে, প্রবৃদ্ধি বাড়লেও কোনো লাভ হবে না। কারণ ব্যাংক খাত ঠিক না হলে, কর্মসংস্থান না বাড়লে, ভোগান্তিতে থাকবে সাধারণ মানুষ।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App