×

শেষের পাতা

সপ্তাহ শেষে ফের শুরু হচ্ছে তাপপ্রবাহ

Icon

প্রকাশ: ১৩ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : কালবৈশাখী কমে আসছে পূর্বাভাস অনুসারে। গতকাল রবিবার দেশের ১৪ অঞ্চলে বৃষ্টি হয়েছে। সর্বোচ্চ বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৩৩ মিলিমিটার। পাশাপাশি আস্তে আস্তে বাড়ছে তাপমাত্রা। একদিনের ব্যবধানে গতকাল আবার তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছে। এদিন দেশের তাপামত্রা উঠেছিল ৩৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। চলতি সপ্তাহের শেষে আবার শুরু হতে পারে সাময়িক তাপপ্রবাহ। অন্যদিকে আপাতত ঘূর্ণিঝড় হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা। আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ ড. মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক ভোরের কাগজকে বলেন, চলমান বজ্রঝড় ১৫ মের মধ্যে কমে যাবে। ১৬ মে থেকে তাপমাত্রা আস্তে আস্তে বাড়তে পারে। পশ্চিমাঞ্চলে আবার শুরু হতে পারে তাপপ্রবাহ। অবশ্য তা বেশি দিন স্থায়ী হবে না। গতকাল সন্ধ্যায় আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, রবিবার পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ৩৩ মিলিমিটার। নোয়াখালীর হাতিয়ায় ৩১ এবং বরিশালে ২৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এছাড়া গোপালগঞ্জ, বগুড়া ও ভোলাসহ কয়েকটি এলাকায় কিছু বৃষ্টি হয়েছে। পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ময়মনসিংহ, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। একই সঙ্গে কোথাও কোথাও হতে পারে শিলাবৃষ্টি। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। গতকাল রবিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে চুয়াডাঙ্গা ও পাবনার ঈশ্বরদীতে ৩৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় তাপমাত্রা উঠেছিল ৩৪ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। এছাড়া রাজশাহীতে ৩৪ দশমিক ৮, রংপুরে ৩৪ দশমিক ৫, ময়মনসিংহে ৩৪, সিলেটে ৩৪ দশমিক ৬, চট্টগ্রামে ৩৩ দশমিক ৪, খুলনায় ৩৪, মোংলায় ৩৪ দশমিক ৫, সাতক্ষীরায় ৩৩ দশমিক ৮, যশোরে ৩৩ দশমিক ৪ এবং বরিশালে ৩২ দশমিক ৭ ও খেপুপাড়ায় ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর চলতি মাসেই বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টির আশঙ্কার কথা জানিয়েছিল এক পূর্বাভাসে। এছাড়া আমেরিকান ও ইউনিরোপিয়ান ইউনিয়নের আবহাওয়ার পূর্বাভাস মডেলের পূর্বাভাস অনুসারে ২০ থেকে ২৭ মের মধ্যে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রিমাল সৃষ্টির আশঙ্কার কথা জানিয়েছিলোন আবহাওয়া গবেষক মোস্তফা কামাল পলাশ। এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ ড. মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, এখনই বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টির সম্ভাবনার কথা বলা যাচ্ছে না। কারণ এখন পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপই তৈরি হয়নি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App