×

শেষের পাতা

আইনশৃঙ্খলার অবনতি

রামুতে ডাকাতের গুলিতে এক গরু পাচারকারীর মৃত্যু

Icon

প্রকাশ: ১০ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কামাল হোসেন, রামু (কক্সবাজার) থেকে : রামুতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি চরম অবনতি হয়েছে। গরু পাচারকালে ডাকাতের গুলিতে আবুল কাশেম নামে আরো একজন মারা গেছেন। এ নিয়ে গত ৪ মাসে গরু পাচারকে কেন্দ্র করে পৃথক ঘটনায় মারা গেল ৫ জন। এলাকাবাসীর সূত্রে জানা জায়, গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে রামু উপজেলার গর্জনিয়া ও জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকায় ডাকাতরা আবুল কাশেমকে (৪৮) হত্যা করে। নিহত কাশেম রামুর গর্জনিয়া ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডের বড়বিল এলাকার মৃত আলী আহমদের ছেলে। কাশেম গরু পাচারে সঙ্গে যুক্ত বলে জানা গেছে। গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান চৌধুরী বাবুল বলেন, রাতের আঁধারে গরু পাচারকালে ডাকাতদল আবুল কাশেমকে গুলি করে হত্যা করে। প্রথমে ওই স্থানে গরু পাচারকারীরা ডাকাতদলের আক্রমণের শিকার হন। তখন উভয়পক্ষের মধ্যে গুলাগুলি হলে গুলিবিদ্ধ হয়ে আবুল কাশেম ঘটনাস্থলে প্রাণ হারায়। চেয়ারম্যান বাবুল আরো বলেন, গত কয়েক মাসের ব্যবধানে এ ইউনিয়নে গরু পাচারকে কেন্দ্র করে ৫ জনকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি ইউনিয়নের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়মিত ডিউটির দাবি করেন। রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ান বলেন, মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার অভিযান চলছে। জড়িত কেউ ছাড় পাবে না। উল্লেখ্য গত ২১ এপ্রিল গরু পাচারকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের গোলাগুলি ও সংঘর্ষে বাবা-ছেলে প্রাণ হারান। গর্জনিয়া ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়ার্ডের থোয়াইঙ্গাকাটা মৌলভীরঘোনা এলাকায় সংগঠিত ওই ঘটনায় নিহতরা ছিলেন, গর্জনিয়া ইউনিয়নের থোয়াইঙ্গাকাটা এলাকার জাফর আলম (৫২) এবং তার ছেলে মোহাম্মদ সেলিম (৩৩)।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App