×

শেষের পাতা

গানে-কথায় স্মরণ

শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চা করেছেন ওস্তাদ মিহির

Icon

প্রকাশ: ০৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

শুদ্ধ সংস্কৃতির  চর্চা করেছেন  ওস্তাদ মিহির
চট্টগ্রাম অফিস : গান ও বর্ণাঢ্য জীবনের নানা দিক আলোচনার মধ্য দিয়ে স্মরণ করা হল বরেণ্য সংগীতজ্ঞ ওস্তাদ মিহির কুমার নন্দীকে। তার সপ্তম প্রয়াণ দিবসে গত সোমবার জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদ চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এ স্মরণানুষ্ঠানের আয়োজন করে। বৈরী আবহাওয়া, ভারি বর্ষণের মধ্যেও ‘তোমার পরশ আসে’ শিরোনামের এ অনুষ্ঠানে অংশ নেন ওস্তাদজির শিষ্য ও ভক্তরা। কথামালায় অংশ নেন অধ্যাপক রীতা দত্ত, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক জাহেদ আলী চৌধুরী যুবরাজ, শিল্পী রতœা ধর, শিল্পী প্রদীপ দাশ, নাট্যজন দুলাল দাশগুপ্ত, বাংলাদেশ রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী সংস্থা চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক শুভাগত চৌধুরী এবং ওডিসি অ্যান্ড টেগোর ডান্স মুভমেন্টের প্রধান প্রমা অবন্তী। বক্তারা বলেন, ওস্তাদ মিহির কুমার নন্দী ছিলেন সত্যিকারের একজন সংস্কৃতির অনুরাগী মানুষ। চট্টগ্রামে বড় পরিসরে পহেলা বৈশাখ আয়োজনে যে কয়জন ভূমিকা রেখেছেন তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম। তারও আগে তিনি মাতৃভূমিকে শত্রæমুক্ত করতে যুক্ত হয়েছিলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে। ১৯৭৪ সালে মিহির কুমার নন্দী যুক্ত ছিলেন রণেশ দাশগুপ্তের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত সংস্কৃতি সম্মেলনে। তার কর্মই এই সংগীতগুরুকে বাঁচিয়ে রাখবে। মিহির কুমার নন্দীর অগণিত শিষ্য আজ বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছেন। তিনি আলাউদ্দিন ললিতকলা কেন্দ্র, অগ্রণী সংঘ সংগীত শিক্ষাকেন্দ্র, আনন্দধ্বনির প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ। তিনি জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদ চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠাতা সহসভাপতি ছিলেন। তাই বলা যায় সংগীতই ছিল তার ধ্যান-জ্ঞান। আমৃত্যু তিনি সুস্থ ও শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চা করে গেছেন। আলোচনার ফাঁকে ফাঁকে এই বরেণ্য সংগীতজ্ঞকে নিবেদিত একক ও সম্মেলক গান পরিবেশন করেন শিষ্যরা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App