×

শেষের পাতা

চট্টগ্রামে জাতীয় গণসংগীত উৎসব শুরু

গণসংগীত বিশ্বের শক্তিশালী শিল্পমাধ্যম, মানুষকে জাগায়

Icon

প্রকাশ: ২৭ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

গণসংগীত বিশ্বের শক্তিশালী শিল্পমাধ্যম, মানুষকে জাগায়
চট্টগ্রাম অফিস : ‘সা¤প্রদায়িকতা ও শ্রেণি-বৈষম্যের বিরুদ্ধে জেগে ওঠো বাংলাদেশ’ স্লোগানে বর্ণাঢ্য আয়োজনে চট্টগ্রামে শুরু হয়েছে চতুর্থ জাতীয় গণসংগীত উৎসব। গতকাল শুক্রবার সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমির অনিরুদ্ধ মুক্তমঞ্চে একঝাঁক শিল্পীর কণ্ঠে জাতীয় সংগীত ও ‘আমার এ দেশ সব মানুষের’ গান দিয়ে শুরু হয় উৎসব। জাতীয় গণসংগীত উৎসব এর আগের তিনবার ঢাকায় আয়োজন করা হয়েছিল। প্রথমবারের মতো তিনদিনব্যাপী এই গণসংগীত উৎসব চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রখ্যাত সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেন। তিনি বলেন, গণসংগীত বিশ্বের শক্তিশালী শিল্পমাধ্যম। গণসংগীত মানুষকে জাগায়। অগ্নিবীণার গান মানুষকে জাগিয়েছিল। আমাদের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় বিশ্বের কয়েকটি দেশে যখন চক্রান্ত হচ্ছিল তখন বাংলাদেশ কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছিল। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উৎসব উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক আবৃত্তিশিল্পী আহকাম উল্লাহ, সংস্কৃতিজন ও উৎসব উদযাপন পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম সিরাজুল ইসলাম, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও উৎসবের প্রধান সমন্বয়কারী মানজার চৌধুরী সুইট, উৎসবের যুগ্ম সমন্বয়কারী শিল্পী শ্রেয়সী রায় ও চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার মোসলেম উদ্দিন শিকদার। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শিল্পী কাজী মিজানুর রহমান। গোলাম কুদ্দুছ বলেন, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে ভাষা আন্দোলন, গণঅভ্যুত্থান, স্বাধীনতাযুদ্ধে শিল্পীদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। সা¤প্রদায়িকতা, শোষণ, বঞ্চনা, ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে উদ্বুদ্ধ করে গণসংগীত। ঢাকার বাইরে প্রথম চট্টগ্রামে জাতীয় গণসংগীত উৎসব। আশা করি অন্য বিভাগগুলোতেও এ উৎসব করতে পারব। আজ শনিবার সকাল ১০টায় শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সেমিনারে মূল বিষয় ‘শিল্পীর নাগরিক দায়, জীবন ও সংগ্রাম’ শীর্ষক বক্তব্য উপস্থাপন করবেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ। আলোচনায় অংশ নেবেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ ও গবেষক শামসুল হক। সূচনা বক্তব্য রাখেন গণসংগীত সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মানজার চৌধুরী সুইট। সভাপতিত্ব করবেন সংগঠনের সভাপতি কাজী মিজানুর রহমান। বিকাল সাড়ে ৪টায় দলীয় সংগীত পর্বে হেমাঙ্গ বিশ্বাসের গান পরিবেশন করবে যশোরের দল পুনশ্চ, শাহ আব্দুল করিমের গান পরিবেশন করবে সিলেটের অন্বেষা শিল্পীগোষ্ঠী, কৃষক আন্দোলনের গান পরিবেশন করবে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী ঢাকা, শেখ লুৎফর রহমানের গান পরিবেশন করবে ঢাকার সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠী, সলিল চৌধুরীর গান পরিবেশন করবে ঢাকার বহ্নিশিখা, চাকমা ভাষার গণসংগীত পরিবেশন করবে রাঙামাটির গিরিসুর শিল্পীগোষ্ঠী, ভাষা আন্দোলনের গান পরিবেশন করবে চট্টগ্রামের ছন্দানন্দ সাংস্কৃতিক পরিষদ, আখতার হুসেন ও সেলিম রেজার গান পরিবেশন করবে খেলাঘর চট্টগ্রাম মহানগরীর শিল্পীরা। একক সংগীত পরিবেশন করবেন সাতক্ষীরার শিল্পী রোজ বাবু, পাবনার প্রলয় চাকী, সিলেটের গৌতম চক্রবর্তী, ঢাকার ফকির শাহাবুদ্দীন, সুরাইয়া পারভীন ও নবনীতা জাঈদ চৌধুরী এবং চট্টগ্রামের সুজিত চক্রবর্তী। দলীয় নৃত্য পরিবেশন করবে ঘুঙুর নৃত্যকলা কেন্দ্র। আগামীকাল রবিবার বিকেলে দলীয় সংগীত পর্বে গারো গান পরিবেশন করবে নেত্রকোনার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী কালচারাল একাডেমি, বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত গান পরিবেশন করবে চাঁদপুরের দল সপ্তসুর, মুকুন্দ দাসের গান পরিবেশন করবে মুন্সীগঞ্জের দল অন্বেষণ, মুক্তিযুদ্ধের গান পরিবেশন করবে ঢাকার দল স্বভূমি লেখক-শিল্পী কেন্দ্র, কাজী নজরুল ইসলামের সাম্যের গান পরিবেশন করবে ঢাকার ক্রান্তি শিল্পীগোষ্ঠী, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দেশের গান পরিবেশন করবে চট্টগ্রামের জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদ, চট্টগ্রাম অঞ্চলের ভাষায় গণমানুষের গান পরিবেশন করবে চট্টগ্রামের স্বরলিপি সাংস্কৃতিক ফোরাম এবং অশোক সেনগুপ্তের গান পরিবেশন করবে চট্টগ্রামের আওয়ামী শিল্পীগোষ্ঠী। একক সংগীত পরিবেশন করবেন ময়মনসিংহের শিল্পী দিল বাহার খান, মুন্সীগঞ্জের শিশির রহমান, ঢাকার অলক দাশগুপ্ত, চট্টগ্রামের কল্পনা লালা, জয়ন্তী লালা ও শ্রেয়সী রায়। দলীয় নৃত্য পরিবেশন করবে চট্টগ্রামের প্রাপন একাডেমি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App