×

শেষের পাতা

ভোরের কাগজ পরিবারে শোকের ছায়া

সাংবাদিক আতিকুর রহমানের চিরবিদায়

Icon

প্রকাশ: ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সাংবাদিক আতিকুর  রহমানের চিরবিদায়
কাগজ প্রতিবেদক : ভোরের কাগজের যুগ্ম বার্তা সম্পাদক মো. আতিকুর রহমান হাবিব (৪৮) আর নেই। গতকাল মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্স অ্যান্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তিনি ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত ছিলেন। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ভোরের কাগজ সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল দত্ত। এছাড়াও বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন ও সহকর্মীরা প্রয়াতের কফিনে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান। সবার প্রিয় সহকর্মীর অকাল মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ভোরের কাগজ পরিবারে। এদিকে গতকাল বাদ জোহর ভোরের কাগজ কার্যালয়, জাতীয় প্রেস ক্লাব ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আতিকুর রহমানের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে তার মরদেহ গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলে নিয়ে যাওয়া হয়। চতুর্থ দফা জানাজার পর সেখানে তাকে দাফন করা হয়েছে। নিঃসন্তান আতিকুর রহমান অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আতিকুর রহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) পড়ার সময় ১৯৯৬ সালে দৈনিক আলআমিন পত্রিকার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি হিসেবে যোগদানের মাধ্যমে তার সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি। ১৯৯৭ সালে দৈনিক মানবজমিন পত্রিকার জাবি প্রতিনিধি হিসেবে যোগদান করেন। একই বছর সাপ্তাহিক অন্বেষা পত্রিকায় স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কাজ শুরু করেন। ২০০১ সালে মানবজমিনে স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে যোগ দেন। ২০০৫ সালে পদোন্নতি পেয়ে সিনিয়র রিপোর্টার হন। ২০০৬ সালে সান্ধ্যকালীন দৈনিক দিনের শেষেতে যোগ দিয়ে ডেপুটি চিফ রিপোর্টার হন। পরবর্তী সময়ে চিফ রিপোর্টার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। এরপর কিছুদিন চিফ রিপোর্টার হিসেবে দৈনিক আজকালের খবর পত্রিকায় কর্মরত ছিলেন তিনি। ২০১৫ সালে যোগ দেন ভোরের কাগজে। সবশেষ যুগ্ম বার্তা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। ২০০৩ সালে বাংলাদেশ কালচারাল রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের বেস্ট কালচারাল রিপোর্টার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন তিনি। ১৯৭৬ সালের ১২ নভেম্বর টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল থানার কদমতলী ইউনিয়নের গারাট্টা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন মো. আতিকুর রহমান হাবিব। তার বাবার নাম মোহাম্মদ আবু তালেব। চার ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়। ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত হয়ে গত ১২ এপ্রিল রাজধানীর আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্স অ্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি হন আতিকুর রহমান। গত ১৫ এপ্রিল তার মস্তিষ্কে অস্ত্রপচার সম্পন্ন হয়। সবশেষ হাসপাতালটির পোস্ট অপারেটিভ ইউনিটে চিকিৎসকদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে ছিলেন তিনি। জাতীয় প্রেস ক্লাব, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে), ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ), ঢাকা সাব এডিটরস কাউন্সিল (ডিএসইসি), বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) ও টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক সমিতি ঢাকার সদস্য ছিলেন মো. আতিকুর রহমান হাবিব। ডিআরইউ বহুমুখী সমবায় সমিতির বর্তমান কমিটির কোষাধ্যক্ষ ছিলেন তিনি। সহকর্মীদের অশ্রæসিক্ত বিদায় : মো. আতিকুর রহমান হাবিবের মৃত্যুর পর গতকাল দুপুরে তার মরদেহ ভোরের কাগজ কার্যালয়ে নেয়া হয়। এ সময় সহকর্মীরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। বেলা ২টার দিকে তার প্রথম জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয় সেখানে। জানাজা শেষে ভোরের কাগজ পরিবারের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। ভোরের কাগজের বার্তা সম্পাদক ইখতিয়ার উদ্দিন এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, আতিকুর রহমান হাবিব একজন দক্ষ ও প্রতিভাবান সাংবাদিক ছিলেন। পেশাগত জীবনে তার সততা ও কর্মনিষ্ঠা ছিল অনুরণীয়। প্রিয় সহকর্মীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে আতিকের পরিবার ও স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানান তিনি। এ সময় ভোরের কাগজের প্রধান প্রতিবেদক খোন্দকার কাওছার হোসেন, যুগ্ম বার্তা সম্পাদক মুকুল শাহরিয়ার, হেড অব অনলাইন মিজান সোহেল, প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ও অর্থ ব্যবস্থাপক মো. আবদুল করিম (সোহাগ), বিজ্ঞাপন ব্যবস্থাপক এস এম এ রাজ্জাক, প্রশাসনিক ব্যবস্থাপক সুজন নন্দী মজুমদার, সার্কুলেশন ইনচার্জ তছলিম চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। ভোরের কাগজ কার্যালয়ে জানাজা শেষে আতিকের মরদেহ জাতীয় প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে নেয়া হয়। বেলা আড়াইটার দিকে সেখানে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জাতীয় প্রেস ক্লাব, বিএফইউজে, ডিইউজে ও টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক সমিতি ঢাকার নেতারা। এ সময় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সহসভাপতি হাসান হাফিজ, যুগ্ম সম্পাদক মো. আশরাফ আলী, বিএফইউজে সভাপতি ওমর ফারুক, কোষাধ্যক্ষ খায়রুজ্জামান কামাল, ডিইউজের সভাপতি সাজ্জাদ আলম তপু, সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সভাপতি কামরুজ্জামান খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবে অশ্রæসিক্ত বিদায়ের পর আতিকুর রহমানের মরদেহ নেয়া হয় ডিআরইউ প্রাঙ্গণে। দুপুর ৩টায় সেখানে জানাজা শেষে ফুলেল শ্রদ্ধায় তাকে শেষ বিদায় জানানো হয়। ডিআরইউর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুল ইসলাম শামীম ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমানের (মিজান রহমান) নেতৃত্বে আতিকুর রহমানের কফিনে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করে কার্যনির্বাহী কমিটি। এরপর লাশ গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলে নেয়া হয়। এদিকে আতিকুর রহমানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছে বিএনপির মিডিয়া সেল। এক শোকবার্তায় সেলের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. মওদুদ হোসেন আলমগীর পাভেল আতিকুর রহমানের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবার, আত্মীয়স্বজন, সতীর্থ ও শুভাকাক্সক্ষীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App