×

গ্যালারি

আগামীর তারকা লুকমান

Icon

ওয়ায়েজ আহমেদ মাহিম

প্রকাশ: ২৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

আগামীর তারকা লুকমান

ডাবলিনের আভিভা স্টেডিয়ামে জমজমাট ইউরোপা লিগের ফাইনালে শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল স্বপ্নবাজ দুই দল বায়ার লেভারকুসেন ও আতালান্তা। চলতি মৌসুমে একের পর এক ম্যাচ জয়ে অপরাজেয় হয়ে উঠেছিল জার্মান চ্যাম্পিয়ন ক্লাব বায়ার লেভারকুসেন। কোনোভাবেই থামানো যাচ্ছিল না জাভি আলোনসোর দলকে। নিশ্চিতভাবে ধরে নেয়া হয়েছিল ইউরোপা লিগের শিরোপাও তাদের হতে যাচ্ছে। কিন্তু তাদের ইউরোপা জয়ের স্বপ্ন চুরমার করে দিয়েছে আতালান্তা, আরও সুনির্দিষ্টভাবে বলতে গেলে লেভারকুসেনের শিরোপা কেড়ে নিয়েছে আদেমোলা লুকমান। ফাইনালে লেভারকুসেনকে ৩-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইতালিয়ান দলটি। এই জয়ে ৬১ বছর পর কোনো ট্রফি জিতল আতালান্তা। ক্লাবের ইতিহাসে এটিই প্রথম ইউরোপিয়ান শিরোপা। অন্যদিকে চলতি মৌসুমে জাভির দল বায়ার লেভারকুসেনের এটাই প্রথম হার। ৩৬১ দিন ধরে টানা ৫১ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর গতকাল ইউরোপা লিগের ফাইনালে হেরেছে জার্মান ক্লাবটি। এই ম্যাচে লেভারকুসেনের রক্ষণকে ফাঁকি দিয়ে ম্যাচের ১২, ২৬ ও ৭৫ মিনিটে গোল করে হ্যাটট্রিক পূরণ করে আতালান্তাকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান ওয়াটারলুর বয়সভিত্তিক ক্লাব থেকে উঠে আসা নাইজেরিয়ান বংশোদ্ভূত ফরোয়ার্ড আদেমোলা লুকমান। এই হ্যাটট্রিকে রেকর্ড বইয়ে নাম লিখিয়েছেন তিনি। ইউরোপা লিগের ফাইনালে প্রথম ফুটবলার হিসেবে হ্যাটট্রিক করেছেন লুকমান। ১৯৮৮ সালে ইউরোপা লিগে এক ম্যাচের ফাইনাল শুরুর পর এই কীর্তি এত বছরে কেউ করে দেখাতে পারেননি। তার একক নৈপুণ্যে ভর করেই শিরোপা উৎসবে মাতে আতালান্তা।

ওয়াটারলুর বয়সভিত্তিক ক্লাব থেকে উঠে আসা নাইজেরিয়ান বংশোদ্ভূত ফরোয়ার্ড আদেমোলা লুকমান ইউরোপা লিগ ফাইনালে আতালান্তাকে তার জীবনের সেরা পারফরম্যান্স উপহার দিয়েছেন। ৫১ ম্যাচে অপরাজিত থাকা লেভারকুসেনের বিপক্ষে এই ম্যাচে লুকমান হ্যাটট্রিক করেছেন। লুকমানের এই অসাধারণ পারফরম্যান্সে আতালান্তা তাদের ১১৬ বছরের ইতিহাসে দ্বিতীয় শিরোপা জিতেছে। ম্যাচ শেষে লুকমান বলেছেন, এটা আমার জীবনের অন্যতম সেরা রাত। উৎসব করতে হবে আমাদের। ফাইনালে আমরা ইতিহাস গড়েছি। ওয়াটারলুতে থাকাকালে সানডে লিগে খেলে বড় হওয়া লুকমান স্বপ্ন দেখেছিলেন একদিন বড় মঞ্চে নিজের প্রতিভা দেখানোর। চার্লটন, এভারটন, লাইপজিগ, ফুলহাম এবং লেস্টার সিটির মতো ক্লাবে খেলার পর লুকমান ২০২২ সালে আতালান্তায় যোগদান করেন। এই দুই বছরে তিনি তার খেলায় নতুন মাত্রা যোগ করেছেন এবং ধারাবাহিকতা অর্জন করেছেন। লুকমান আশা করেন এমন আরো অনেক রাত তার জন্য অপেক্ষা করছে। লুকমানের এই অসাধারণ কীর্তি ইতালিকে ব্যাপক উল্লাসের এক রাত উপহার দিয়েছে। এমনকি এক ইতালীয় সংবাদকর্মী দাবি করেছেন, বেরগামোর একটি রাস্তার নামকরণ করা হবে লুকমানের নামে। লুকমান এই প্রশংসায় নম্র থাকলেও বেরগামোর সমর্থকদের প্রতি তার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। লুকমানকে ক্যারিয়ারে কিছু হতাশার মুখোমুখিও হতে হয়েছে। ২০২০ সালে ফুলহামের হয়ে খেলার সময় তিনি একটি গুরুত্বপূর্ণ পেনাল্টি মিস করেছিলেন। কিন্তু সেসব হতাশাকে পেছনে ফেলে লুকমান আতালান্তার ইতিহাসে নিজের নাম অমর করে রেখেছেন। লুকমানের এই অসাধারণ সাফল্য আফ্রিকান ফুটবলের জন্যও একটি অনুপ্রেরণা। তিনি প্রমাণ করেছেন যে, সঠিক পরিশ্রম ও নিষ্ঠার মাধ্যমে যে কেউ তার স্বপ্ন পূরণ করতে পারে। এদিন ডাবলিনের গ্যালারিতে ছিলেন লুকমানের বাবা ও মা। দুজনের সামনে ঐতিহাসিক হ্যাটট্রিকে লুকমান এনে দিলেন আতালান্তার ১১৬ বছরের ইতিহাসে প্রথম ইউরোপিয়ান শিরোপা।

লুকমানের জন্ম ইংল্যান্ডের দক্ষিণ লন্ডনের জেলা ওয়ান্ডারাসওয়ার্থে। কিন্তু বাবা-মা নাইজেরিয়ান। ইংল্যান্ডের বয়সভিত্তিক দলেও (অনূর্ধ্ব-১৯, অনূর্ধ্ব-২০ ও অনূর্ধ্ব-২১) খেলেছেন তিনি। কিন্তু বাবা-মা নাইজেরিয়ান হওয়ায় নাইজেরিয়াকেই জাতীয় দল হিসেবে বেছে নিয়েছেন লুকমান। ২০২২ সালে নাইজেরিয়া জাতীয় দলে অভিষেক হয় তার। চলতি বছর আনুষ্ঠানিক আফ্রিকান নেশন্স কাপে (আফকোন) তৃতীয় স্থান অর্জনকারী নাইজেরিয়া দলে তিনি ছিলেন নিয়মিত মুখ। জাতীয় দলের হয়ে ২১ ম্যাচে ৬ গোল আছে তার। ওয়াটারলু ও চার্লটন অ্যাথলেটিকের বয়সভিত্তিক দলে বেড়ে ওঠেন আদেমোলা লুকমান। ওয়াটারলুতে থাকতে ইংল্যান্ডের বিভিন্ন পার্কে সানডে লিগেও খেলেছেন তিনি। সিনিয়র ক্যারিয়ারে চার্লটন, এভারটন, লাইপজিগ, ফুলহাম ও লেস্টার সিটির মূল দলে খেলেছেন লুকমান।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App