×

গ্যালারি

ডাগআউটে দুই মহারথীর যুদ্ধ

Icon

রিয়াজ উল্লাহ

প্রকাশ: ১৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ডাগআউটে দুই মহারথীর যুদ্ধ
আগামী ২ জুন ইংল্যান্ডের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ইউরোপের মহারণ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল। মুখোমুখি হবে ইউরোপের সেরা দুই ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ ও বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। খেলোয়াড়দের লড়াই যদিও মাঠেই সীমাবদ্ধ। তবে কোচদের লড়াই একটু অন্যরকম। ক্লাবের কোচরাই নিজেদের বুদ্ধিমত্তা আর অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে খেলোয়াড়দের প্রস্তুত করেন মাঠের রণক্ষেত্রে নিজেদের সেরাটা দিয়ে জয় ছিনিয়ে আনতে। ইউরোপের আসন্ন মহারণে রিয়ালের বস হিসেবে ডগআউট ভূমিকা রাখবেন কোচ কার্লো আনচেলত্তি। রিয়াল মাদ্রিদের দায়িত্বে থাকা আনচেলত্তি ইতোমধ্যেই রিয়ালকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছেন। আনচেলত্তির অধীনে পাঁচ সিজনে রিয়াল সবমিলিয়ে ১০টি শিরোপা জিতেছে। যেখানে ২টি করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, ক্লাব বিশ্বকাপ, ইউরোপিয়ান সুপার কাপ ও কোপা দেল রে এবং একটি করে লা লিগা ও স্প্যানিশ সুপার কাপের শিরোপা উঠেছে তার হাতে। আনচেলত্তি একমাত্র কোচ যিনি ৪টি ইউরোপিয়ান কাপ জিতেছেন এবং এই প্রতিযোগিতায় সবচেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ডও তার। এছাড়া ইউরোপের পাঁচটি ভিন্ন লিগের ট্রফি জয়েও আনচেলত্তি প্রথম। রিয়ালের হয়ে বর্তমানে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্বে আছেন আনচেলত্তি। প্রথম মেয়াদে তিনি ২০১৩-১৫ পর্যন্ত সময়ে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ছিলেন। তার হাত ধরেই ২০১৪ সালে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দশম শিরোপা জেতে মাদ্রিদের ক্লাবটি। ওই বছর কোপা দেল রে, উয়েফা সুপার কাপ ও ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ ট্রফিও ঘরে তোলে ক্লাবটি। পরের মৌসুমে অবশ্য সময়টা খুব খারাপ কাটে রিয়ালের। ফলে ২০১৪-১৫ মৌসুমের শেষদিকে রিয়ালে চাকরি হারান আনচেলত্তি। দ্বিতীয় দফায় ২০২১ সালে রিয়ালের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে উপভোগ্য সময় কাটিয়েছেন ৬৪ বছর বয়সি এই কোচ। দ্বিতীয় মেয়াদে ফিরেই প্রথম মৌসুমে দলকে লা লিগা ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতান আনচেলত্তি। তার হাত ধরে ২০২২ সালে উয়েফা সুপার কাপ ও ক্লাব বিশ্বকাপ জেতে দলটি। নিজের কোচিং ক্যারিয়ারের বেলাভূমিতে দাঁড়িয়ে থাকা আনচেলত্তি শিরোপা জিততে নিজের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে দল সাজাবেন সেটা আগেই অনুমেয়। তবে এবার তার বিপরীত পার্শে^র ডাগআউটে আছেন ঠাণ্ডা মাথার এদিন তেরজিচ। তেরজিচ কতটা সুনিপুণভাবে পরিস্থিতিকে সামলাতে পারেন তা দেখা গিয়েছিল বুন্দেসলিগার গত আসরের ফাইনাল ম্যাচে। বায়ার্ন মিউনিখের কাছে শিরোপা হারার পর শোক পালনের পরিবর্তে উল্টো মাঠে নেমে দলের খেলোয়াড়সহ গ্যালারিতে থাকা শিরোপা বঞ্চিত দর্শকদের সঙ্গে নিয়ে আরো উদযাপন করেন। সেদিন তেরজিচ আরো একবার প্রমাণ করলেন যে কোচরা সহজে ভেঙে পড়ে না, আবেগকে একপাশে রেখে তারা ডাগআউটে নামেন। কোচ হিসেবে তেরজিচ ডর্টমুন্ডের ভক্ত থেকে স্কাউট, সহকারী কোচ এবং তারপর মূল দলের কোচ যেটাকে সোজা বাংলায় ‘জুতো সেলাই থেকে চণ্ডীপাঠ’! বললে ভুল বলা হবে না। ২০২১-২২ মৌসুমে অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হয়ে জামার্ন কাপ জেতান তিনি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App