×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

প্রথম পাতা

বৈঠক পেছাল

বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মবিরতি চলছে

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : সর্বজনীন পেনশন স্কিমসংক্রান্ত ‘বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন’ প্রত্যাহারের দাবিতে চতুর্থ দিনের মতো সর্বাত্মক কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন দেশের ৩৫টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের সামনে কেন্দ্রীয়ভাবে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন কর্মবিরতিতে থাকা শিক্ষকরা। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন এ কর্মসূচির ডাক দেয়। এদিকে চলমান পরিস্থিতি নিয়ে গতকাল আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে শিক্ষক নেতাদের বৈঠক হওয়ার কথা থাকলেও পরে তা স্থগিত করা হয়। সাক্ষাতের নতুন সময়সূচি পরবর্তী সময়ে নির্ধারণ করা হবে।

ফেডারেশনের মহাসচিব ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল হক ভূঁইয়া জানান, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে শিক্ষক নেতাদের বৃহস্পতিবার যে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল বিশেষ কারণে তা স্থগিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর সমাপনী অনুষ্ঠান নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের একটি জরুরি সাক্ষাৎ ছিল গতকাল। তাছাড়া শুক্রবারের সুধী সমাবেশ নিয়েও তিনি ব্যস্ত সময় পার করছেন। তাই আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আমাদের সময় দিতে পারেননি। আগামীকাল (আজ) তিনি আমাদের জানাবেন কবে হবে বৈঠকটি। আমরা আন্দোলন ও আলোচনা দুটোই চালিয়ে যাব।

প্রসঙ্গত, সর্বজনীন পেনশন স্কিম সংক্রান্ত ‘বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন’ প্রত্যাহার ও পূর্বের পেনশন স্কিম চালু রাখার দাবিতে গত ২০ মে সংবাদ সম্মেলন করে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন। তার ধারাবাহিকতায় ২৬ মে বেলা সাড়ে ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারাদেশের ৩৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে মানববন্ধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। এরপর ২৮ মে দুই ঘণ্টা এবং ২৫ থেকে ২৭ জুন তিনদিন সারাদেশে অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করেন শিক্ষকরা। পরবর্তীতে সময়ে ৩০ জুন পূর্ণ কর্মবিরতি পালন করেন তারা। এরপর ১ জুলাই থেকে সর্বাত্মক কর্মবিরতি শুরু করেন শিক্ষকরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল টানা কর্মবিরতির চতুর্থ দিন। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রমে অচলাবস্থা বিরাজ করছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App