×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

প্রথম পাতা

কর্মসূচি রয়েছে আজও

কোটাবিরোধীরা সড়কে চলাচলে বাড়ছে দুর্ভোগ

Icon

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কোটাবিরোধীরা সড়কে চলাচলে বাড়ছে দুর্ভোগ

কাগজ ডেস্ক : ২০১৮ সালে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনকে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে পুনর্বহালের দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠেছে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। ‘বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন’-এর ব্যানারে পদযাত্রা, মিছিলসহ টানা আন্দোলনে প্রতিদিনই নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে রাখছেন শিক্ষার্থীরা। এর ধারাবাহিকতায় গতকাল বুধবারও রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ শাহবাগ মোড়, পুরান ঢাকার তাঁতীবাজারে অন্যতম ব্যস্ত সড়ক, সাভারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করেন কোটাবিরোধীরা। অন্যদিকে অবস্থান এবং অবরোধ কর্মসূচি পালন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষার্থীরাও। গতকাল তারা চট্টগ্রাম-হাটহাজারী আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করেন।

কর্মসূচি থেকে চার দফা দাবি জানান আন্দোলনকারীরা। দাবিগুলো হলো- ২০১৮ সালে ঘোষিত সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি বাতিল ও মেধাভিত্তিক নিয়োগের পরিপত্র বহাল রাখা; ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠন করে দ্রুত সরকারি চাকরিতে (সব গ্রেডে) অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাদ দেয়া এবং সংবিধান অনুযায়ী শুধু অনগ্রসর ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর কথা বিবেচনা করা; সরকারি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা সুবিধা একাধিকবার ব্যবহার করা যাবে না এবং কোটায় যোগ্যপ্রার্থী পাওয়া না গেলে শূন্য পদগুলোতে মেধা অনুযায়ী নিয়োগ দেয়া এবং দুর্নীতিমুক্ত, নিরপেক্ষ ও মেধাভিত্তিক আমলাতন্ত্র নিশ্চিত করতে কার্যকরব্যবস্থা নেয়া।

ঢাবি, জবি, জাবি প্রতিনিধি ও চট্টগ্রাম অফিস থেকে পাঠানো খবর-

ঢাবি : ২০১৮ সালে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনকে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে পুনর্বহালের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি পালন ও পদযাত্রা শেষে চার দফা দাবিতে শাহবাগ মোড় অবরোধ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। গতাকাল বুধবার দুপুর আড়াইটায় পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের ব্যানারে মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করেন শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি ভিসি চত্বর, টিএসসি, দোয়েল চত্বর, হাইকোর্টের সামনে মৎস্য ভবন মোড় ঘুরে বিকাল সাড়ে ৩টায় শাহবাগ মোড়ে আসে। সেখানে অবস্থান নেন আন্দোলনকারীরা। বিকাল ৫টা পর্যন্ত শাহবাগ মোড় অবরোধ করে রাখেন তারা। পরবর্তী কর্মসূচির ঘোষণা দিয়ে অবরোধ তুলে নেন আন্দোলনকারীরা।

অবরোধের কারণে প্রায় দেড়ঘণ্টা শাহবাগ মোড় দিয়ে যান চলাচল বন্ধ থাকে। ফলে শাহবাগ, এলিফ্যান্ট রোড, মৎস্য ভবন ও এর আশপাশ এলাকায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়।

আন্দোলনকারীদের অন্যতম সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম বলেন, কোটা বৈষম্যমূলক ব্যবস্থা। আমরা গতকাল (গত মঙ্গলবার) পদযাত্রা করেছি। আগামীকালও (আজ বৃহস্পতিবার) ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে অবস্থান করব।

জবি : গতকাল দুপুর আড়াইটায় তাঁতীবাজারে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীরা। ফলে দক্ষিণাঞ্চল থেকে ঢাকায় প্রবেশের অন্যতম ব্যস্ত এ সড়কটিতে প্রায় ৪০ মিনিট যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে দীর্ঘ যানজট দেখা দেয়।

জবির ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সোহান বলেন, আমরা মেধাভিত্তিক বাংলাদেশ চাই। সব শিক্ষার্থীর জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করা হোক। অবিলম্বে কোটা পদ্ধতি স্থায়ীভাবে বাতিল ঘোষণা করতে হবে। আমরা মনে করি, কোটাব্যবস্থা মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ প্রক্রিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে।

শিক্ষার্থী মেহেরুন্নেসা হিমু বলেন, আমরা চাই আমাদের দেশে নারী কোটাসহ যত ধরনের কোটা আছে সব বাতিল করা হোক। কারণ আমরা নারীরা এখন আর মেধার দিক থেকে পিছিয়ে নেই।

সড়ক অবরোধকালে শিক্ষার্থীরা ‘চাকরিতে কোটা, মানি না, মানব না’, ‘শেখ হাসিনার বাংলায়/শেখ মুজিবের বাংলায়, কোটার ঠাঁই নাই’সহ নানা সেøাগান দেন।

জাবি : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীরা ‘বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন’-এর ব্যানারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করেছেন। এ সময় সড়কের দুদিকে যানবাহনের দীর্ঘ সারির সৃষ্টি হয়।

পূর্বঘোষণা অনুযায়ী গতকাল বুধবার বেলা ৩টা ২০ মিনিট থেকে ৪টা ৫৩ পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধ করেন তারা। বিকাল ৫টা পর্যন্ত অবরোধ করার কথা থাকলেও শান্তিপূর্ণ আন্দোলন শেষে পুলিশের অনুরোধে ১০ মিনিট আগেই শিক্ষার্থীরা যানবাহন ছেড়ে দেন। পরে যানচলাচল স্বাভাবিক হয়ে যায়। তবে দীর্ঘক্ষণ অবরোধ করার কারণে ঢাকাগামী যানবাহন চন্দ্রা পর্যন্ত এবং ঢাকা থেকে আরিচাগামী যানবাহন আমিনবাজার পর্যন্ত যানজটে আটকা পড়ে।

এদিকে সাভারের হেমায়েতপুরে আওয়ামী লীগের জনসভায় যাওয়ার পথে শিক্ষার্থীদের অবরোধের মুখে পড়েন ঢাকা-১৯ আসনের সংসদ সদস্য সাইফুল ইসলাম। শিক্ষার্থীরা তার অনুরোধ উপেক্ষা করে কর্মসূচি অব্যাহত রাখেন। তারা বলেন, যদি আমরা একজন সংসদ সদস্যের গাড়ি যেতে দিই, তাহলে সব গাড়িই ছেড়ে দিতে হবে।

তবে কোনো অ্যাম্বুলেন্স আটকাননি শিক্ষার্থীরা। ভেতরে প্রকৃত রোগী থাকলে তা চেক করে তাৎক্ষণিকভাবে সেগুলো ছেড়ে দেয়া হয়।

অবরোধ কর্মসূচিতে জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের যুগ্ম সম্পাদক ওমর ফারুক বলেন, বাংলাদেশের মেধাকে ধ্বংস করে দেয়ার জন্য সরকারের এটি একটি চক্রান্ত। তারা বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতে চায়। একটি জাতিকে পিছিয়ে পড়ার জন্য এই বৈষম্য সৃষ্টি করেছে সরকার। আমরা ছাত্রসমাজ কখনো এই বৈষম্য মেনে নেব না। আমরা চাই ২০১৮ সালের মতো এই আন্দোলন সফল হোক।

ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী হাবিবুল্লাহ সিফাত বলেন, আগামীকাল (আজ বৃহস্পতিবার) হাইকোর্টের রায় ছাত্রসমাজের বিরুদ্ধে গেলে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরোধ করা হবে।

এর আগে বেলা ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রধান ফটকে এসে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা। কর্মসূচি শেষে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী তৌহিদ মোহাম্মদ সিয়াম পরবর্তী কর্মসূচি সম্পর্কে বলেন, আমরা আজকের (গতকাল বুধবার) কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে শেষ করেছি। আপিল বিভাগের রায় ছাত্র সমাজের পক্ষে না এলে আমরা কঠোর আন্দোলনে যাব।

চট্টগ্রাম : সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি বাতিল ও মেধাভিত্তিক নিয়োগের পরিপত্র বহাল রাখার দাবিতে এবার মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষার্থীরা। গতকাল বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। এরপর দুপুরে চট্টগ্রাম-হাটহাজারী আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করেন তারা।

এদিকে শিক্ষার্থীদের অবরোধে সড়কে আধঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকায় দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়।

শিক্ষার্থীরা জানান, আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার চত্বরে একই দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি ও ছাত্র সমাবেশ করা হবে। দাবি আদায় না হলে পুনরায় মহাসড়ক অবরোধ করবেন তারা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App