×

প্রথম পাতা

মালয়েশিয়াকাণ্ড

আরো ৫ দিন সময় নিয়েছে কমিটি

Icon

প্রকাশ: ১২ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কয়েক হাজার কর্মী যেতে না পারার বিষয়টি অনুসন্ধানে গঠিত তদন্ত কমিটির রিপোর্ট জমা দেয়ার সময় আরো ৫ কার্যদিবস বাড়ানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী। তিনি বলেন, মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোয় বির্পযয়ের ঘটনায় তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল গতকাল মঙ্গলবার। তবে রিপোর্ট জমা দিতে পারেনি তদন্ত কমিটি। তাই তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়ার সময় আরো ৫ কার্যদিবস বাড়ানো হয়েছে। এ ঘটনায় দেশের ভাবমূর্তি নষ্টকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করেন প্রতিমন্ত্রী।

এর আগে গত ২ জুন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নূর মো. মাহবুবুল হককে প্রধান করে ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সাত কর্ম দিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছিল। তদন্ত কমিটি কী করবে, তার ব্যাখ্যায় সে সময় প্রতিমন্ত্রী বলেছিলেন, কর্মানুমতি ও বিএমইটির ক্লিয়ারেন্স কার্ড পাওয়ার পরও মালয়েশিয়াতে কর্মী পাঠাতে না পারার কারণ চিহ্নিত করা, নির্ধারিত সময়ে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে ব্যর্থ রিক্রুটিং এজেন্সি চিহ্নিত করা, মালয়েশিয়া যেতে পারেননি এমন কেউ অভিযোগ করলে তা আমলে নিয়ে ভবিষ্যতে এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলায় করণীয় নির্ধারণ করবে কমিটি। যেসব কর্মী নির্ধারিত সময়ে মালয়েশিয়া যেতে পারেননি, তাদের কাছে তথ্যও চেয়েছিল প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি। যেতে না পারা কর্মীদের অভিযোগ জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল গত ৮ জুন।

প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়া সরকারের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী গত ৩১ মে পর্যন্ত দেশটিতে ৫ লাখ ২৬ হাজার ৬৭৬ জন বাংলাদেশি কর্মীকে পাঠানোর অনুমতি দেয়া হয়। কিন্তু, বাংলাদেশ জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি) ছাড়পত্র দেয় প্রায় ৪ লাখ ৯৪ হাজার ৬৪২ জনকে। মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য জনপ্রতি ৭৮ হাজার ৯৯০ টাকা করে খরচ নির্ধারণ করে দেয় সরকার। পাসপোর্ট খরচ, স্বাস্থ্য পরীক্ষা, নিবন্ধন ফি, কল্যাণ ফি, বিমা, স্মার্ট কার্ড ফি ও সংশ্লিষ্ট রিক্রুটিং এজেন্সির সার্ভিস চার্জ এর মধ্যেই থাকার কথা। আর কর্মীদের ঢাকা থেকে মালয়েশিয়া যাওয়ার উড়োজাহাজ ভাড়াসহ ১৫টি খাতের খরচ বহন করার কথা ছিল নিয়োগকারী কোম্পানির। কিন্তু কর্মীপ্রতি গড়ে ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা নেয়ার অভিযোগ ওঠে। ওই রুটে উড়োজাহাজ ভাড়াও ৩০ হাজার টাকা থেকে বেড়ে ১ লাখ টাকা ছাড়িয়ে যায়। এরপরও কোটার অন্তত ৩২ হাজার ৩৪ জন কর্মী দেশটিতে যেতে পারেননি। তাদের কেউ-কেউ উড়োজাহাজের টিকেট পাননি। আবার কেউ এজেন্সির প্রতারণার শিকার হয়ে যেতে পারেননি।

এদিকে মালয়েশিয়ায় কর্মী নেয়ায় সিন্ডিকেটের অভিযোগ তুলে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিজের (বায়রা) একাংশ অন্য অংশকে দায়ী করেছে। এ নিয়ে সোমবার সকালে সংগঠনের ৩৩তম বার্ষিক সাধারণ সভায় বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়। সেখানে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। পরে বিকালে এ নিয়ে হামলা ও নাজেহাল করার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করে বায়রার সিনিয়র সহসভাপতি রিয়াজ-উল-ইসলামের নেতৃত্বে একাংশ।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App