×

প্রথম পাতা

সিইসি আউয়াল

উপজেলা ভোট সার্বিকভাবে সুষ্ঠু

Icon

প্রকাশ: ১০ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : সার্বিকভাবে উপজেলা নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে দাবি করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, কিছু কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেই। অর্থের লেনদেন হয়। অনৈতিকভাবে অর্থের লেনদেনের খবরও আমরা পেয়ে থাকি। এগুলো বাস্তবতা। আমরা আলাপ-আলোচনা করে এগুলো কীভাবে উত্তরণ করা যায় তা ঠিক করবো। গতকাল রবিবার শেষ ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শেষে সাংবাদিকদের প্রতিক্রিয়া জানানোর সময় তিনি এসব কথা বলেন।

কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, চারটি ধাপে উপজেলা নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় রেমালের কারণে আরেকটি ধাপ বেড়েছে। আজ পঞ্চম ধাপে ১৯টি উপজেলায় নির্বাচন হলো। ৪৯৫টি উপজেলার মধ্যে ৪৬৯টিতে নির্বাচন সম্পন্ন করলাম। ২৬টি উপজেলা নির্বাচন বাকি আছে। এর মধ্যে কয়েকটির এখনো মেয়াদপূর্তি হয়নি। কয়েকটি আদালতের নির্দেশনার কারণে স্থগিত রেখেছি। যথাসময়ে সেগুলো করা হবে। তবে উপজেলা নির্বাচন মোটামুটি শেষ হয়েছে।

গতকালের ভোট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ১১৮০টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ২৩৫টি ভোটকেন্দ্রের হিসাব পেয়েছি। সেদিক থেকে ভোট পড়েছে ৪৩ দশমিক ৯১ শতাংশ। কাজেই নিশ্চিত করে বলা যাবে না কত ভোট পড়েছে। ভোটে অনিয়মের অভিযোগে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে দুইজন পোলিং অফিসার নির্বাচনী অপকর্মে লিপ্ত ছিলেন। এদিক থেকে আমরা কঠোর ছিলাম। চারজন আহত হয়েছেন। দুজনের অবস্থা গুরুতর। সেখানে মোটামুটি বলা যায় কোপাকুপি হয়েছে। খুব যে গুরুতর ওরকম কিছু নয়। ভোটের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ ছিল।

ভোটার উপস্থিতি কম নিয়ে সিইসি বলেন, রাজনৈতিকভাবে তো ব্যাপক অংশগ্রহণ হয়নি। যখন রাজনৈতিকভাবে ব্যাপক অংশগ্রহণ হয়, তখন ভোটারদের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা বেড়ে যায়। স্বাভাবিকভাবে সেদিক থেকে এটি একটি কারণ হয়ে থাকতে পারে। আর ভোটারদের কেন্দ্রে আনার দায়িত্ব হচ্ছে প্রার্থীর। প্রার্থীরা তাদের কাছে আবেদন জানাতে পারে। এতে ভোটাররা কতটুকু সাড়া দেবে, এটা তাদের ওপর নির্ভর করে। তবে আমাদের জন্য সেটা বিবেচ্য নয়। আমাদের জন্য বিবেচ্য হচ্ছে ভোটটা যেন শান্তিপূর্ণভাবে, সুষ্ঠুভাবে হয় এবং ভোটার যারা তারা যেন শান্তিপূর্ণভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। এখন যদি তারা ওখানে জোর করে ভোট দিয়ে থাকে তাহলে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে না। সেই দিকটা আমরা বিশেষ করে জোর দিয়েছি। কোনো কিছুই স্থির থাকে না। আশা করি এটা ইম্প্রুভ হবে।

নির্বাচন নিয়ে ইসি কতটা সন্তুষ্ট জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা সন্তুষ্টি-অসন্তুষ্টির বিষয় না। চট করে বলতে পারব না। আমরা হতাহতের খবর পাইনি। ভোটাররা ভোট দিতে পারেনি এমনটা হয়নি। সেদিক থেকে এটা ইতিবাচক এবং আমরা সন্তুষ্ট বোধ করছি। ভোটার পড়ার সংখ্যা ৬০ শতাংশ, ৭০ শতাংশ যদি হতো তাহলে আপনাদের মতো আমরাও আরো সন্তুষ্ট হতাম।

এদিকে গতকাল বাগেরহাটের মোংলা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এক আনসার সদস্যকে দায়িত্ব পালনে বাধা ও মারধরের অপরাধে শাকিল শেখ (২১) নামে এক যুবককে ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। গতকাল দুপুরে মোংলা পৌর শহরের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মহাসিনিয়া আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রে নির্বাচন চলার সময় আনসার সদস্যকে মারধর করেন শাকিল। পরে তাকে ছয় মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেন বাগেরহাট জেলা অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ড. আতিকুস সামাদ।

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাচনে দায়িত্বে অবহেলা ও ভোটারের কাছ থেকে চেয়ারম্যান প্রার্থীর ব্যালট নিয়ে নিজেদের কাছে রেখে দেয়ার দায়ে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার আমড়াতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। আটক তিনজন হলেন- পাথরঘাটা কে এম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও আমড়াতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার মো. জাকির হোসেন; পোলিং অফিসার ও এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ঝুমুর রাণী বিশ্বাস এবং কালমেঘা মুসলিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. রবিউল করিম।

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার কেওতা কেন্দ্রে চেয়ারম্যান পদের প্রতিদ্ব›দ্বী দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষে দুজন আহত হয়েছেন। এছাড়া কাঠিপাড়া কেন্দ্রে মোবাইল নিয়ে প্রবেশ করায় প্রার্থীর এক এজেন্টকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়াও বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App