×

প্রথম পাতা

অভিজ্ঞতায় ভারত এগিয়ে

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

অভিজ্ঞতায় ভারত এগিয়ে

নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ সকাল সাড়ে ৬টায় আয়ারল্যান্ডের মোকাবিলা করবে ভারত। এ ম্যাচে রোহিত শর্মা-বাহিনী অভিজ্ঞতা, ব্যাটিং-বোলিং ও পরিসংখ্যান সব দিক দিয়ে এগিয়ে। এবার টিম ইন্ডিয়া দলটি বেশ ব্যালান্সড। দলে ব্যাটিং লাইনআপ বেশ গভীর। ৭ থেকে ৮ জন ব্যাটার রয়েছে। হার্দিক পান্ডিয়া ও রবীন্দ্র জাদেজার মতো অলরাউন্ডার রয়েছে। যারা যে কোনো দলের বিপক্ষে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। পেস আক্রমণে আর্শদীপ সিং, জাসপ্রিত বুমরাহ ও মোহাম্মদ সিরাজ দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে। আজকের ম্যাচে ভারত বেশ দাপটের সঙ্গে জিতবে।

২০০৯ সালে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত-আয়ারল্যান্ড। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে সেটি ছিল দুই দলের প্রথম মোকাবিলা। ইংল্যান্ডের নটিংহামে অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচে ভারত ৮ উইকেটে হারিয়েছিল আইরিশদের। এরপর ছয়টি বিশ্বকাপ চলে গেলেও সংক্ষিপ্ত ভার্সনের মেগা ইভেন্টে দেখা হয়নি তাদের। অবশেষে বিশ্বকাপের নবম আসরে গ্রুপপর্বের ম্যাচে একে অন্যের বিপক্ষে আজ মাঠে নামছে।

২০০৯ সালের বিশ্বকাপের পর তিন দফায় আয়ারল্যান্ড সফরে ৬টি টি-টোয়েন্টি খেলেছে ভারত। সবগুলোতেই জয় পেয়েছে টিম ইন্ডিয়া। তাই আইরিশদের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ৭ ম্যাচ খেলে শতভাগ জয় আছে ভারতের।

আইরিশদের বিপক্ষে শতভাগ জয়ের রেকর্ড অব্যাহত রাখার মিশন ভারতের। আজও ফেবারিট হিসেবেই মাঠে নামবে উপমহাদেশের দলটি।

গত দুই মাস আইপিএল নিয়েই

ব্যস্ত সময় পার করেছে ভারত। বিশ্বকাপ শুরুর আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৮২ রান করে ভারত। জবাবে ৯ উইকেটে ১২১ রান করে বাংলাদেশ। ৬১ রানের জয়ে প্রস্তুতি পর্ব শেষ করে টিম ইন্ডিয়া। এর আগে এ বছর মাত্র ১টি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে ম্যান ইন ব্লুরা। গত জানুয়ারিতে ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতেছিল ভারত।

এদিকে চলতি বছর দুটি দ্বিপক্ষীয় ও একটি ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নেয় আইরিশরা। আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের কাছে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হারলেও, নেদারল্যান্ডস ও স্কটল্যান্ডকে নিয়ে হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হয় আইরিশরা।

২০০৯ থেকে সবগুলো বিশ্বকাপে খেলেছে আয়ারল্যান্ড। এর মধ্যে ২০২২ সালে সর্বশেষ আসরেই সবচেয়ে বেশি ৩ ম্যাচ জিতেছিল তারা। গ্রুপপর্বে দুই ম্যাচ ও সুপার টুয়েলভে ১টি ম্যাচ জিতেছিল আইরিশরা। এর মধ্যে গ্রুপপর্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৯ উইকেটে এবং সুপার টুয়েলভে ইংল্যান্ডকে বৃষ্টি আইনে ৫ রানে হারায় তারা। পাকিস্তান-ভারত ম্যাচটি নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়াম অনুষ্ঠিত হবে। এ ম্যাচের আগে একই ভেন্যুতে আইরিশদের বিপক্ষে খেলার মধ্য দিয়ে উইকেট সম্পর্কে ভালোই ধারণা পাবে রোহিত-কোহলিরা। নাসাউর কাউন্টি স্টেডিয়ামের উইকেটে নতুন বলে রান উঠলেও বল পুরান হওয়ার পর রানের গতি সেøা হয়ে যায়। তাই প্রথম ৫-৬ ওভারে দলগুলোর লক্ষ্য থাকবে রান তোলার দিকে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App