×

প্রথম পাতা

ফের বাড়ছে নদনদীর পানি

সিলেটের জকিগঞ্জ-কানাইঘাটে ভোট আজ, ৩০০ গ্রাম প্লাবিত

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ফের বাড়ছে নদনদীর পানি

সিলেট অফিস : দুদিন কমার পর গতকাল মঙ্গলবার থেকে আবারো বাড়তে শুরু করেছে সিলেটের নদনদীর পানি। গত রবিবার মধ্যরাতের ভারি বৃষ্টির কারণে পানি বাড়ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্যমতে, সিলেটে দুটি নদীর পানি চারটি পয়েন্টে বিপৎসীমার উপরে অবস্থান করছে। গতকাল দুপুর ১২টায় সুরমা নদীর পানি সিলেট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে এবং কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ৫৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। এছাড়া অমলশিদ পয়েন্টে কুশিয়ারা নদীর পানি বিপৎসীমার ১৫ দশমিক ৪০ সেন্টিমিটার এবং ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে বিপৎসীমার ৯ দশমিক ৪৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক রঞ্জন দাশ বলেন, বৃষ্টিপাতের কারণে সিলেটের নদনদীর পানি কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতোমধ্যে দুটি নদীর চারটি পয়েন্টে পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে। বিভিন্ন এলাকায় নদীর তীর উপচে পানি প্রবেশ করছে লোকালয়ে। শহরের পাশাপাশি গতকাল সিলেটের বিভিন্ন উপজেলাও পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। গত রবিবার অনেক উপজেলায় পানি কমে বিভিন্ন সড়কে যোগাযোগ শুরু হলেও সোমবার সকাল থেকে আবার বন্ধ হয়ে যায়।

এদিকে আকস্মিক বন্যায় ভাসছে সিলেটের অন্তত নয়টি উপজেলা। বন্যায় প্লাবিত এই ৯ উপজেলার মধ্যে কানাইঘাট ও জকিগঞ্জে আজ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। সরকারি হিসাবে এই দুই উপজেলার অন্তত ৩০০ গ্রাম প্লাবিত হলেও সেখানে আজ ভোটগ্রহণ হচ্ছে। যদিও বন্যার কারণে জকিগঞ্জের এক চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট গ্রহণ পেছানোর আবেদন করেছিলেন। তবে নির্বাচনসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, যথাসময়ে ভোট নেয়া হবে। বন্যা পরিস্থিতি আরো অবনতির আশঙ্কায় ভোট পেছানো হচ্ছে না।

সিলেটের জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ইমরুল হাসান বলেন, দুটি উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কে আমরা নির্বাচন কমিশনকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। কিন্তু কোনো সিদ্ধান্ত পাইনি। তাই বুধবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে, এমনটা ধরে নিয়েই সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে।

জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী মরতুজা আহমদ বলেন, তার উপজেলার ৭৭টি কেন্দ্রের মধ্যে ৩০টি কেন্দ্রেই বন্যার পানি আছে। উপজেলার অন্তত ১৫০টি গ্রাম প্লাবিত হওয়ায় সেসব গ্রামের বাসিন্দারা পানিবন্দি সময় কাটাচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে নির্বাচন স্থগিতের অনুরোধ জানিয়ে গত শনিবার তিনি সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আফসানা তাসলিমের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন। এ বিষয়ে আফসানা তাসলিম বলেন, আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী সামনে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হওয়ার আশঙ্কা আছে। তাই ভোট গ্রহণের বিষয়টি নির্দিষ্ট তারিখেই শেষ করার উদ্দেশ্যে কাজ চলছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App