×

প্রথম পাতা

বাজেট পেশ কাল

সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু আজ

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : দ্বাদশ জাতীয় সংসদের তৃতীয় তথা ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট অধিবেশন শুরু হচ্ছে আজ বুধবার ৫ জুন। বিকাল ৫টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ অধিবেশন শুরু হবে। অধিবেশন শুরুর আগে বিকাল ৪টায় বসবে কার্যনিবাহী কমিটির বৈঠক। সেখানে স্পিকারের সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, চিফ হুইপ, ডেপুটি স্পিকারসহ আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান নেতারা উপস্থিত থাকবেন। এ বৈঠকে অধিবেশনের দিনক্ষণ ও সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যদের মনোনয়ন দেয়া হবে। ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার ভারতের কলকাতায় খুন হয়েছেন, সে বিষয়ে আলোচনা হবে বলে সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে।

সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে, অধিবেশন শুরুর পরদিন আগামীকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। বাজেট অধিবেশনে হওয়ায় এইবারের অধিবেশন দীর্ঘ হবে বলে জানা গেছে। ২০২৪-২০২৫ অর্থবছরের জন্য প্রায় আট লাখ কোটি টাকার বাজেট উত্থাপনের সব প্রস্তুতি শেষ। এটি হবে বর্তমানে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর প্রথম বাজেট।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণই হবে আগামী বাজেটের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার। চলতি অর্থবছরের মতো আগামী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেটকেও ব্যয় সংকোচনমুখী করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাছাড়া বাজেটে করের আওতা বাড়ানো হচ্ছে। টিনধারী হলেই এবার কর দিতে হবে। বাজেটে বিলাসপণ্য আমদানিকে নিরুৎসাহিত করার পক্ষে মত দিয়েছেন তিনি। সে কারণে বাজেটে বিদেশি পণ্যের দাম বাড়তে পারে। এ বাজেট প্রণয়নে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) পরামর্শকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। তার অংশ হিসেবে কিছু ক্ষেত্রে করছাড় এবং অব্যাহতি কমানো হবে। সরকার আগামী বাজেটে খাদ্য মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, ঘাটতি রোধ, রাজস্ব আদায় বাড়ানো এবং গ্রামীণ অর্থনীতিতে বিনিয়োগ ও কৃষকদের জন্য সহায়তা কর্মসূচির মাধ্যমে সবার জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্য ঠিক করেছে।

বৈশ্বিক এবং স্থানীয় সামষ্টিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে ব্যয় সাশ্রয়ের ওপর গুরুত্ব দিয়ে অর্থ মন্ত্রণালয় ২০২৪-২৫ অর্থবছরের জন্য সাত লাখ ৯৬ হাজার ৯০০ কোটি টাকার বাজেটের রূপরেখা চূড়ান্ত করেছে, যা জিডিপির ১৪ দশমিক ২০ শতাংশ।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকা আয়শা খান বলেছেন, সামগ্রিকভাবে বলা যায়, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, ব্যয় সংকোচনমুখী করা, করের আওতা বাড়ানো, রপ্তানিপণ্যের বৈচিত্র্যকরণ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও প্রান্তিক মানুষের সুযোগ সুবিধা বাড়ানো এবারের বাজেটের অগ্রাধিকারে থাকবে। তিনি বলেন, নতুন বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় উপকারভোগীর সংখ্যা আরো বাড়বে। তবে এবার বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ অগ্রাধিকার পাচ্ছে। পাশাপাশি নি¤œ আয়ের মানুষকে স্বস্তি দিতে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে।

নতুন বাজেটে মোট রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হচ্ছে ৫ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ৪ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা এনবিআরকে আদায় করতে হবে। আইএমএফের শর্ত অনুযায়ী, আগামী অর্থবছরে ৪ লাখ ৭৮ হাজার কোটি টাকার কর রাজস্ব এনবিআরকে আদায় করতে হবে। সে কারণে শুল্কছাড় ও কর অব্যাহতি কমিয়ে আনাসহ নতুন বেশ কিছু খাতে ভ্যাট ও কর বাড়িয়ে রাজস্ব বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

দেশি-বিদেশি উৎসে এখন সরকারের মোট ঋণ রয়েছে ১৮ লাখ কোটি টাকার মতো। চলমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সামাল দিতে আগামীতে ঋণ আরও বাড়ানো হচ্ছে। এতে সুদ পরিশোধে সরকারের খরচ বাড়ছে। আগামী অর্থবছরের বাজেটে শুধু সুদ পরিশোধেই সরকারের ব্যয় প্রস্তাব করা হচ্ছে ১ লাখ ৮ হাজার কোটি টাকা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App