×

প্রথম পাতা

প্রশাসনকে সহায়তা করতে প্রস্তুত : সেলিম

মেয়র সেলিমকে আইনের আওতায় চার এমপিকন্যা

Icon

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 মেয়র সেলিমকে আইনের  আওতায় চার এমপিকন্যা

কালীগঞ্জ ও কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ‘আমার বাবার হত্যাকারী অভিযুক্ত আখতারুজ্জামান শাহিন এর আগেও কোটচাঁদপুরে তার প্রতিপক্ষ অনেককেই মারধর ও কুপিয়ে জখম করেছেন। ক্ষমতার দাপট থাকায় কেউ এ ঘটনায় প্রতিবাদ করতে সাহস পাননি। তার বড় ভাই সহিদুজ্জামান সেলিম কোটচাঁদপুর পৌরসভার মেয়র। তার উচিত ছিল ছোট ভাইকে এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড থেকে নিবৃত করা। কিন্তু তিনি তা করেননি। আমি মেয়র সহিদুজ্জামান সেলিমকে আইনের আওতায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য দাবি জানাচ্ছি। আমার বাবার সঙ্গে শাহিনের ব্যবসায়িক দ্ব›দ্ব নাকি রাজনৈতিক কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে- বিষয়টিও খতিয়ে দেখা দরকার।’

নৃশংসভাবে হত্যার শিকার ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন গতকাল শনিবার বিকালে কালীগঞ্জ শহরের ভুষন সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়-সংলগ্ন বাসভবনে গণমাধ্যমের কর্মীদের সঙ্গে এসব কথা বলেন। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জীবন কুমার বিশ্বাস, কালীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শিবলী নোমান, পৌর মেয়র আশরাফুল আলমসহ উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগের বিষয়ে মেয়র সহিদুজ্জামান সেলিম ভোরের কাগজকে বলেন, ডরিন আমার ছোট মেয়ের চেয়েও বয়সে ছোট। আমি তার আবেগের প্রতি সম্মান করি। আমার ভাই এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকলে দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার হোক, একজন নাগরিক হিসেবে আমি এটা আশা করি।

তিনি আরো বলেন, শাহিন ব্যবসায়িক কাজে অধিকাংশ সময় দেশের বাইরে ও ঢাকায় থাকে। কোটচাঁদপুরে আসলেও তার সঙ্গে খুব একটা দেখা সাক্ষাৎ হয় না।

ডরিনের দাবি করা ‘আইনের আওতায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ’ প্রসঙ্গে মেয়র সহিদুজ্জামান সেলিম বলেন, আমি প্রশাসনকে এ ব্যাপারে সার্বিক সহায়তা করতে প্রস্তুত। প্রশাসন চাইলে তাদের যে কোনো সময় আমি তাদের মুখোমুখি হতে রাজি আছি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App