×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

প্রথম পাতা

আমি কেন আসামি

সেলেস্টির হাউমাউ কান্না

Icon

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 সেলেস্টির হাউমাউ কান্না

কাগজ প্রতিবেদক : ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডের মামলায় গ্রেপ্তার তিন আসামিকে ৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল শুক্রবার রিমান্ড শুনানির সময় গ্রেপ্তার আসামি সেলেস্টি রহমান আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে হাউমাউ করে কেঁদে দেন। তিনি বলেন, আমি ছিলাম সাক্ষী। আমাকে কেন আসামি করা হলো। গতকাল আদালতে রিমান্ড শুনানির সময় সেলেস্টির পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। একপর্যায়ে একজন আইনজীবী ওকালতনামায় সেলেস্টির স্বাক্ষর নিতে যান। এসময় তিনি ওই আইনজীবীকে বলেন, আমি কেন স্বাক্ষর করব? আমি কি আসামি নাকি? আমাকে এখানে কেন আনা হয়েছে, আমি জানতে চাই। আমাকে বলেছে সাক্ষী দিয়ে চলে যাবা। আসামি কেন করা হলো। আমি কিছু জানি না। এসব বলে কাঁদতে থাকেন তিনি।

এজলাসে থাকা সবার নজর তখন সেলেস্টির দিকে চলে যায়। শুনানি শেষে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দিলরুবা আফরোজ সেলেস্টি রহমানসহ তিন আসামির ৮ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বাকি দুই আসামি হলেন- আমানুল্লাহ ওরফের শিমুল ভূঁইয়া ও ফয়সাল আলী ওরফে সাজি। শুনানি শেষে মুখে মাস্ক ও মাথায় ওড়না দিয়ে বড় করে ঘোমটা টানা অবস্থায় সেলেস্টিকে হাজতখানায় নিয়ে যান দায়িত্বরত পুলিশ ও ডিবি কর্মকর্তারা। মুখে মাস্ক পরা ছিল অপর দুই আসামিরও। এরপর দুটি সাদা মাইক্রোবাসে করে তিন আসামিকে রিমান্ডের জন্য নিয়ে যায় ডিবি পুলিশ।

এর আগে গত ২২ মে শেরেবাংলা নগর থানায় নিহত সংসদ সদস্যের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন বাদী হয়ে অপহরণ মামলাটি দায়ের করেন। তদন্ত প্রতিবেদন আগামী ৪ জুলাইয়ের মধ্যে দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App