×

প্রথম পাতা

পশ্চিমবঙ্গে মোদি

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক নষ্ট হচ্ছে মমতায়

Icon

প্রকাশ: ১৩ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : ভারতের লোকসভা নির্বাচনের চতুর্থ ধাপ অনুষ্ঠিত হবে আজ। তার আগে পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনী প্রচারণায় আসেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকাল রবিবার উত্তর ২৪ পরগণা জেলার ব্যারাকপুরে অনুশোচনার সুরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, একসময় বাংলাদেশের অর্থব্যবস্থাকে শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখত এই পশ্চিমবঙ্গ। তৃণমূল কংগ্রেস নিজেদের দুর্নীতির কারণে এই সিস্টেম পুরো নষ্ট করে দিয়েছে। এর আগে গত ৪ এপ্রিল কোচবিহার থেকে মোদি বলেছিলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ব্যবসাবাণিজ্য আরো সহজভাবে করার জন্য বিজেপি সরকার কাজ করে চলেছে। দুই দেশের মানুষ যাতে অতি সহজে যাতায়াত করতে পারে, এর জন্যও আমরা নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল সরকার, বামদল আর কংগ্রেসের ইন্ডিয়া জোট মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে। মূলত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সব জনসভায় বলছেন, নাগরিকত্ব সংশোধিত আইন অর্থাৎ সিএএ-এর মাধ্যমে এনআরসি আনতে চায় মোদি সরকার। সংশ্লিষ্টদের চিহ্নিত করে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়া হবে। যদিও রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অবৈধ অনুপ্রবেশ (যার কাছে বৈধ নাগরিকপত্র নেই) ছাড়া ভারতে এমন কোনো আইন নেই যে, সংশ্লিষ্টকে দেশ থেকে বিতাড়িত করে দেয়া হবে। ফলে সিএএ যেমন মোদির সরকারে রাজনৈতিক চাল তেমনি মমতার মুখে রাজনৈতিক বাণী ছাড়া কিছুই নয়। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, এই মুহূর্তে বাংলায় জাঁকিয়ে বসেছে মোদি হাওয়া। আর তাই বাংলায় এসে এক ঢিলে দুই পাখি মারার চেষ্ট করছেন মোদি। ভোট প্রচারণা এবং প্রতিবেশী দেশের পাশে আছে ভারত- এই দুই বার্তাই তুলে ধরতে চাইছেন। গতকাল ব্যারাকপুরে মোদি বলেন, ভারতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ। যেখানে খনিজ, কয়লা, উর্বর জমি, সমুদ্রবন্দর পর্যটন সব ধরনের রসদ আছে। অথচ তা সত্ত্বেও পূর্ব ভারতের উন্নতি হচ্ছে না। কংগ্রেস, সিপিএম, তৃণমূলের সরকার সেই উন্নতিতে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তাই বিজেপিকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে নরেন্দ্র মোদি বলেন, বাংলায় এবারে অন্যরকম পরিস্থিতি। গতবারের সাফল্যকে ছাপিয়ে যাবে বিজেপি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App