×

প্রথম পাতা

ঢাকায় এবার কুরবানির পশুর হাট বসবে ২০টি

Icon

প্রকাশ: ০৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকায় এবার কুরবানির  পশুর হাট বসবে ২০টি
মুহাম্মদ রুহুল আমিন : এবারের ঈদুল আজহায় রাজধানীতে কুরবানি পশুর অস্থায়ী হাট বসবে ২০টি। এর মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় বসবে ১১টি আর উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় বসবে ৯টি। এছাড়া ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের গাবতলী ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সারুলিয়ার ২টি স্থায়ী হাটেও কুরবানির পশু কেনাবেচা হবে। সেক্ষেত্রে অস্থায়ী আর স্থায়ী মিলে দুই সিটিতে হাট বসবে ২২টি। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসব হাটে কুরবানির গরু, ছাগল বিক্রির জন্য আনা হয়। কোনো কোনো হাটে আসে উট-দুম্বাও। ডিএসসিসিতে বসবে ১১ হাট : এবার ডিএসসিসি এলাকায় ১১টি অস্থায়ী পশুর হাট বসানোর ইজারা বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে সংস্থাটি। তিন পর্যায়ে চূড়ান্ত করা হবে এসব হাট। প্রথম পর্যায়ে গত ২৯ এপ্রিল দুইটি হাটের ইজারা চূড়ান্ত করেছে নগর কর্তৃপক্ষ। দ্বিতীয় পর্যায়ে আগামী ১৩ মে এবং তৃতীয় পর্যায়ে ২৮ মে হাটের ইজারা চূড়ান্তের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। এবার যে ১১টি হাট ইজারা দেবে ডিএসসিসি, সেগুলো হলো- উত্তর শাহজাহানপুর খিলগাঁও রেলগেট বাজার মৈত্রী সংঘ ক্লাবসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা। হাটটির ইজারা মূল্য ধরা হয়েছে ১ কোটি ৩০ লাখ ২৩ হাজার ৮৬৭ টাকা। হাটটির সিডিউল মূল্য ধরা হয়েছে ২৬ হাজার ৮০০ টাকা। পাশাপাশি হাটের পরিচ্ছন্নতা ফি ধরা হয়েছে ৬ লাখ ৫১ হাজার ১৯৪ টাকা। ইনস্টিটিউট অব লেদার টেকনোলজি কলেজসংলগ্ন উন্মুক্ত এলাকার হাটের মূল্য ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৩১ লাখ ১১ হাজার ৬১১ টাকা। হাটটির সিডিউল মূল্য ৬৭ হাজার এবং পরিচ্ছন্নতা ফি ১৬ লাখ ৫৫ হাজার ৫৮১ টাকা। পোস্তাগোলা শ্মশানঘাটসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গায় হাটের সরকারি মূল্য ধরা হয়েছে ২ কোটি ২৩ লাখ ৩১ হাজার ২৫৬ টাকা, হাটের সিডিউল মূল্য ধরা হয়েছে ৪৫ হাজার ৪০০ টাকা এবং পরিচ্ছন্নতা ফি ১১ লাখ ১৬ হাজার ৫৬৩ টাকা। মেরাদিয়া বাজারসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গায় হাটের মূল্য ধরা হয়েছে ২ কোটি ৩৬ লাখ ৪ হাজার ৪৩৪ টাকা এবং সিডিউল মূল্য ৪৮ হাজার টাকা ও পরিচ্ছন্নতা ফি ১১ লাখ ৮০ হাজার ২২২ টাকা। লিটল ফ্রেন্ডস ক্লাবসংলগ্ন খালি জায়গাসহ কমলাপুর স্টেডিয়ামসংলগ্ন বিশ্বরোডের আশপাশের খালি জায়গায় হাটের মূল্য ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৬৭ লাখ ২৯ হাজার টাকা, সিডিউল মূল্য ৭৪ হাজার ২০০ টাকা এবং পরিচ্ছন্নতা ফি ১৮ লাখ ৩৬ হাজার ৪৫০ টাকা। দনিয়া কলেজসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গায় হাটের দাম ৪ কোটি ১৭ লাখ ৬৪ হাজার ৫৫৬ টাকা, সিডিউল মূল্য ৮৪ হাজার ২০০ টাকা ও পরিচ্ছন্নতা ফি ২০ লাখ ৮৮ হাজার ২২৮ টাকা। ধোলাইখাল ট্রাক টার্মিনালসংলগ্ন উন্মুক্ত এলাকার হাটের সরকারি দাম ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৯১ লাখ ৭২ হাজার ৩০০ টাকা, সিডিউল মূল্য ৭৯ হাজার টাকা ও পরিচ্ছন্নতা ফি ১৯ লাখ ৫৮ হাজার ৬১৫ টাকা। আফতাব নগর (ইস্টার্ন হাউজিং) ব্লক ই, এফ, জি, এইচ, সেকশন ১ ও ২ এর খালি জায়গায় হাটের মূল্য ২ কোটি ৫৫ লাখ ৯৯ হাজার টাকা, সিডিউল মূল্য ৫১ হাজার ৮০০ টাকা ও পরিচ্ছন্নতা ফি ১২ লাখ ৭৯ হাজার ৯৫০ টাকা। আমুলিয়া মডেল টাউনের আশপাশের খালি জায়গায় হাটের দাম ৪৫ লাখ ৫০ হাজার, সিডিউল মূল্য ৯ হাজার ৬০০ টাকা ও পরিচ্ছন্নতা ফি ২ লাখ ২৫ হাজার ৪৮৫ টাকা। রহমতগঞ্জ ক্লাবসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গায় হাটের দাম ৫০ লাখ ২৯ হাজার ৭০০ টাকা, সিডিউল মূল্য ১০ হাজার ৮০০ টাকা ও পরিচ্ছন্নতা ফি ২ লাখ ৫১ হাজার ৪৮৫ টাকা। শ্যামপুর কদমতলী ট্রাক স্ট্যান্ডসংলগ্ন খালি জায়গায় হাটের দাম ৬৭ লাখ ৩১ হাজার টাকা, সিডিউল মূল্য ১৩ হাজার ৮০০ টাকা এবং পরিচ্ছন্নতা ফি ৩ লাখ ৩৬ হাজার ৫৫০ টাকা। ডিএনসিসিতে বসবে ৯টি হাট : এবার ডিএনসিসি এলাকায় বসবে ৯টি অস্থায়ী পশুর হাট। এজন্য হাটগুলোর ইজারা বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করেছে সংস্থাটি। চার পর্যায়ে হাটগুলি চূড়ান্ত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রথম পর্যায় ছিল ২৯ এপ্রিল। ওইদিন কোনো হাটের ইজারা চূড়ান্ত হয়নি বলে জানা গেছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে দরপত্র দাখিলের শেষ দিন আগামী ১৫ মে। ওইদিন সব হাট ইজারা চূড়ান্ত না হলে ২৮ মে তৃতীয় পর্যায়ে এবং আগামী ৪ জুন চতুর্থ পর্যায়ে ইজারা চূড়ান্তের শেষদিন নির্ধারণ করা হয়েছে। ডিএনসিসি প্রতিটি হাটের ইজারা মূল্যের ১০ ভাগ হারে পরিচ্ছন্নতা ফি নির্ধারণ করেছে। ডিএনসিসিতে এবার যে ৯টি অস্থায়ী হাট ইজারা দেবে সেগুলো হলো- ভাটারা সুতিভোলা খালসংলগ্ন খালি জায়গা। হাটটির সরকারি ইজারা মূল্য ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৭০ লাখ, সিডিউল মূল্য ধরা হয়েছে ৭৪ হাজার ৬০০ টাকা। কাওলা শিয়ালডাঙ্গাসংলগ্ন খালি জায়গার হাটের মূল্য ধরা হয়েছে ১ কোটি ৩৭ লাখ ৫০০ টাকা, সিডিউল মূল্য ২৮ হাজার ১০০ টাকা। উত্তরা দিয়াবাড়ী ১৬ ও ১৮ নম্বর সেক্টর বউ বাজার এলাকার খালি জায়গার হাটের মূল্য ধরা হয়েছে ৬ কোটি টাকা, হাটটির সিডিউল মূল্য ধরা হয়েছে ১ লাখ ২০ হাজার ৬০০ টাকা। বাড্ডা ইস্টার্ন হাউজিং আফতাবনগর ব্লক ই, এফ, জি, এইচ, এল, এম, এন এবং আশপাশের জায়গার হাটের দাম ধরা হয়েছে ১ কোটি ৭৪ লাখ ২ হাজার ৭২৭ টাকা, আর সিডিউল মূল্য ৩৫ হাজার ৫০০ টাকা। মিরপুর সেকশন ৬ ওয়ার্ড নম্বর ৬ (ইস্টার্ন হাউজিং) এর খালি জায়গার হাটের দাম ইজারা দাম ১ কোটি ৩৭ লাখ ৬২ হাজার ৪৬০ টাকা এবং সিডিউল মূল্য ২৮ হাজার ২০০ টাকা। মোহাম্মাদপুর বছিলার ৪০ ফুট রাস্তাসংলগ্ন খালি জায়গার হাটের ইজারা দাম ২ কোটি ২০ লাখ ও সিডিউল মূল্য ৪৪ হাজার ৬০০ টাকা। ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউউটসংলগ্ন খালি জায়গার হাটের দাম ৬০ লাখ ৭০ হাজার টাকা ও সিডিউল মূল্য ১২ হাজার ৮০০ টাকা। ৪৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাঁচকুড়া বেপারীপাড়া রাহমান নগর আবাসিক প্রকল্পের জায়গার হাটের দাম ১৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও সিডিউল মূল্য ৩ হাজার ৯০০ টাকা। খিলক্ষেত থানার ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের মস্তুল চেকপোস্টসংলগ্ন পাড়ার খালি জায়গার হাটের দাম ৩০ লাখ ২১ হাজার টাকা আর সিডিউল মূল্য ৬ হাজার ৭০০ টাকা। দুই সিটি করপোরেশনের সম্পত্তি বিভাগসূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিকভাবে যেসব হাটের ইজারা বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে, কর্তৃপক্ষ চাইলে যে কোনো হাট বাতিল বা সংযোজন করতে পারে। এছাড়া পশুর হাটে ক্রেতা ও বিক্রেতার অনলাইনে পশু কেনা-বেচার জন্যও উৎসাহিত করা হবে। অন্যদিকে এবারো সীমানা কেন্দ্রিক সমস্যায় আফতাবনগর হাট নিয়ে ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন আলাদাভাবে ইজারা বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। কয়েকটি ব্লকে পশুর হাট বসাতে দুটি সংস্থায়ই টেন্ডার দিয়েছে। ফলে আফতাব নগরের হাটটি নিয়ে দুই সিটি করপোরেশনের মধ্যে এবারো টানাটানি শুরু হয়েছে। অপরদিকে এখানে পশুর হাট বসালে এলাকায় নানা রকমের নাগরিক সমস্যার সৃষ্টি হয়- এমন কারণ উল্লেখ করে আফতাব নগরে হাট না বসাতে বা হাটের অনুমতি না দিতে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের কাছেই চিঠি দিয়ে অনুরোধ জানিয়েছে আফতাবনগর সোসাইটি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App