×

প্রথম পাতা

জনপদে উৎসবের আবহ আছে উত্তেজনা-উদ্বেগও

Icon

প্রকাশ: ০৭ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

জনপদে উৎসবের আবহ আছে উত্তেজনা-উদ্বেগও
এন রায় রাজা : উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ঘিরে সারাদেশেই উৎসবের আবহ। চার ধাপের এই নির্বাচনে প্রথম ধাপের প্রচারণা শেষ হয়েছে গতরাতে। দ্বিতীয় ধাপের প্রচারণা চলছে। তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপের প্রচারণা এখনো শুরু না হলেও অনানুষ্ঠানিক প্রচারণা থেমে নেই। প্রার্থীরা নানা কৌশলে চষে বেড়াচ্ছেন ভোটের মাঠ। ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন জনসংযোগে। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে প্রস্তুতিপর্ব। এবার ভোট নেয়ার পালা। রাত পোহালেই সেই মহেন্দ্রক্ষণ। প্রথম ধাপে ১৫০টি উপজেলা পরিষদে ভোট গ্রহণ আগামীকাল বুধবার। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে এ ভোট নেয়া চলবে। এই ধাপে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৬ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭ জন চেয়ারম্যান, ৯ জন ভাইস চেয়ারম্যান ও ১০ জন নারী ভাইস চেয়ারম্যান রয়েছেন। এই নির্বাচন ঘিরে গ্রামীণ জনপদে এখন উৎসবের আমেজ। তবে একইসঙ্গে রয়েছে উত্তেজনা-উদ্বেগও। প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে রেষারেষির জেরে বিভিন্ন স্থানে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। নির্বাচনী আচরণবিধির তোয়াক্কা করছেন না অনেকেই। কোনো কোনো প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা অব্যাহত রেখেছেন হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন। এসব কারণে সংশ্লিষ্ট এলাকার ভোটাররাও আছেন কিছুটা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায়। এসবের মধ্যেই ষষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনের প্রথম ধাপের এ ভোট নিয়ে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইতোমধ্যে নির্বাচনী সরঞ্জাম মাঠ পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। আজ মঙ্গলবার রিটানিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মালামাল কেন্দ্রে কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হবে। তবে দূরের কয়েকটি কেন্দ্র বাদে অন্যসব কেন্দ্রে আগামীকাল বুধবার ভোরে ব্যালট পেপার সরবরাহ করা হবে। এ ধাপে মোট ২২টি উপজেলায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএমে) ব্যবহার করা হবে। এর আগেই গত সপ্তাহেই ১৪১ জন বিচারিক ম্যাজিট্রেটসহ মাঠে আছেন প্রায় ৫ শতাধিক ম্যাজিট্রেট। সঙ্গে আছে র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, কোস্ট গার্ড, আনসারের বিশাল টিম। নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে অনেক প্রার্থীকে জরিমানা করা হয়েছে। আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ইতোমধ্যে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী রফিকুল ইসলামের প্রার্থিতা বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এবারে প্রতিটি কেন্দ্রে ১৬ জনের নিরাপত্তা টিম কাজ করবে। আর ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১৮ জন সদস্য নিরাপত্তা বিধান করবে। এদিকে গত রাত ১২টা থেকে প্রথম ধাপের এ নির্বাচনের প্রচারণা শেষ হয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করেছে ইসি। আজ থেকে নির্বাচনী এলাকায় সব ধরনের মোটরযান চলাচলও নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। প্রথম ধাপের ১৫০ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠানের সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ। তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচনের সময়ই উপজেলা নির্বাচনের জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের সরঞ্জাম কেনা হয়েছিল। ইতোমধ্যে রিটানিং কর্মকর্তার অফিসে সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে। আজ সেগুলো কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে যাবে। আর ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ করা হবে যেসব উপজেলায়; সেখানকার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণও দেয়া হয়েছে। ইভিএমও সুরক্ষিত অবস্থায় রাখা হয়েছে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে। আজ এগুলো সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে যাবে, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি। এবারে উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীরা অনলাইনে মনোনয়ন জমা দেয়ার সুযোগ পান। অশোক কুমার দেবনাথ জানান, এরই মধ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকদের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এ নির্বাচনে বিএনপি ও সমমনা দল, সিপিবি প্রার্থী দেয়নি। আওয়ামী লীগ দলীয় প্রতীক দেয়নি। প্রার্থিতাও উন্মুক্ত রেখেছে। জাতীয় পার্টি এ নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিলেও প্রার্থী সংকটে রয়েছে দলটি। বিএনপি বর্জন করলেও দলটির অনেক নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন ভোটের মাঠে। সব মিলিয়ে প্রথম ধাপের ১৫০ উপজেলায় ভোটে অংশ নিচ্ছেন ১ হাজার ৮০০ জন প্রার্থী। এদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয় ২৩ এপ্রিল। উল্লেখ্য, দেশের মোট ৪৯৫টি উপজেলার মধ্যে বর্তমানে নির্বাচনযোগ্য উপজেলা রয়েছে ৪৮৪টি। চার ধাপে ৮ মে থেকে ৫ জুন পর্যন্ত ২৮ দিনে পর্যায়ক্রমে এসব উপজেলায় নির্বাচন হবে। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহণের জন্য প্রায় ৭ লাখ কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষিত করেছে নির্বাচন কমিশন। সম্প্রতি উপজেলা নির্বাচনে জামানতের পরিমাণ ১০ গুণ বাড়িয়ে চেয়ারম্যান পদের জামানত ১ লাখ টাকা এবং ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭৫ হাজার টাকা করেছে ইসি। সংশোধিত বিধি অনুযায়ী, নির্বাচনে প্রদত্ত ভোটের ১৫ শতাংশ ভোট পাওয়া প্রার্থীরা জামানতের টাকা ফেরত পাবেন। আর সেই পরিমাণ ভোট না পাওয়া প্রার্থীদের জামানতের টাকা বাজেয়াপ্ত করা হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App