×

প্রথম পাতা

কালবৈশাখী ঝড় ক্রমশ বাড়ছে

Icon

প্রকাশ: ০৭ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে কালবৈশাখী ঝড়। এ ঝড় ক্রমশ বাড়ছে। মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রায় থাকা যশোর-চুয়াডাঙ্গায়ও বইছে ঝড়-বৃষ্টি। চুয়াডাঙ্গায় গতকাল সোমবার বৃষ্টিপাত হয়েছে ২৯ মিলিমিটার। আর সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে-১৩৮ মিলিমিটার ফেনীতে। দীর্ঘদিনের টানা ভয়াবহ তাপপ্রবাহ থেকে স্বস্তি পেতে মানুষ বৃষ্টির প্রত্যাশা করেছিল। কিন্তু কালবৈশাখী ঝড় অব্যাহত থাকায় উল্টো বিপাকে পড়ার আশঙ্কা করছেন তারা। গত দুই দিনে কালবৈশাখী ঝড়ে বিভিন্ন স্থানে ঘর-বাড়িসহ ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। বিশেষ করে বোরো ধানের ক্ষতি হচ্ছে বেশি। কারণ অধিকাংশ এলাকার বোরো ধানে এখন থোর বা ফুল ধরেছে। ধান শুয়ে পড়লে চিটা হয়ে যাবে বলে বলছেন কৃষি কর্মকর্তারা। এছাড়া অন্যান্য ফসলের ক্ষতি হাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী ১১ মে পর্যন্ত গোটা দেশের উপর দিয়ে কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যাবে। ঝড়-বৃষ্টি শুরু হওয়ায় দেশের চলমান তাপপ্রবাহ কমে গেছে। তাপমাত্রা নেমেছে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল যশোরে ৩৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত রবিবার চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠেছিল ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল সন্ধ্যায় আবহাওয়ার পূর্বাভাস পর্যালোচনা করে দেখা যায়, দেশের অন্তত ২৯ অঞ্চলে ঝড়-বৃষ্টির পরিমাণ রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে ফেনীতে ১৩৮ মিলিমিটার। আর চট্টগ্রামে ১২৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। ঢাকা মহানগরীতে গতকাল প্রায় সারা দিনই মেঘলা ছিল। আগের রাতে ঝড়-বৃষ্টি হয়েছে প্রচণ্ড। গতকাল ঢাকায় ৩৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হেয়ছে। এছাড়া নিকলীতে ৩৩, ময়মনসিংহে ২১, রংপুরে সামন্য, সিলেটে ৬৫, শ্রীমঙ্গলে ৯০, মাদারীপুরে ৬৯, চাঁদপুরে ৬১, স›দ্বীপে ৬০, কুতুবদিয়ায় ৬৫, বান্দরবানে ৪৬, রাঙ্গামাটিতে ৪০, ভোলায় ২৭ এবং বরিশালে ১৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাদ রেকর্ড করা হয়। রবিবার সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে ময়মনসিংহে ৮৩ মিলিমিটার। এদিন ৯-১০টি অঞ্চলের ওপর কালবৈশাখী বয়ে যায়। মূলত পূর্বাভাস অনুযায়ী রবিবার থেকেই শুরু হয় কালবৈশাখী ঝড়। পূর্বাভাসে বলা হয়, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিমাল, চট্টগ্রাম, ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়ামহ বৃষ্টি বা বজ্যবৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মিলা বৃষ্টি হতে পারে। গোপালগঞ্জ, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা জেলাগুলোরর উপর দিয়ে মৃদু ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে এবং তা প্রশমিত হতে পারে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App