×

প্রথম পাতা

২৮৫ বিজিপি সদস্য ফিরবে আজ

Icon

প্রকাশ: ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সৈয়দুল কাদের, কক্সবাজার থেকে : মিয়ানমার কারাগার থেকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ভোগ শেষে গতকাল বুধবার বাংলাদেশে ফিরে এসেছেন ১৭৩ জন বাংলাদেশি। গতকাল বেলা দেড়টার দিকে কক্সবাজার নুনিয়াছড়ার বিআইডব্লিউটিএ ঘাটে পৌঁছে বাংলাদেশের নাগরিকদের বহনকারী মিয়ানমারের জাহাজটি। ঘাটে তাদের স্বাগত জানান হুইপ সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি। এ সময় বিজিবি, কোস্ট গার্ড, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, জেলা প্রশাসন ও মিয়ানমার দূতাবাসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। আজ বৃহস্পতিবার মিয়ানমার ফিরে যাবে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ২৮৫ জন মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি) সদস্য। সকাল থেকেই মিয়ানমার থেকে ফিরে আসা লোকদের স্বজনরা ঘাটে ভিড় জমাতে শুরু করে। ১৭৩ জনের মধ্যে ছিলেন গত ৮ বছর আগে হঠাৎ নিখোঁজ হয়ে যাওয়া ল²ীপুরের রামগঞ্জের ভাটরা ইউনিয়নের নন্দিয়ারা গ্রামের মানসিক প্রতিবন্ধী মোহাম্মদ শাহেদ। এরপর দীর্ঘদিন খুঁজলেও তার কোনো সন্ধান পায়নি পরিবার। কয়েকদিন আগে স্থানীয় থানা থেকে ফোন করে জানানো হয় শাহেদ মিয়ানমারের কারাগারে। অল্প দিনের মধ্যে তাকে ফিরিয়ে আনবে সরকার। দীর্ঘ ৮ বছর পর সন্তানের দেশে ফেরার খবরে বুধবার সকাল থেকে কক্সবাজারের নুনিয়ারছড়ায় বিআইডব্লিউটিএ ঘাটে অপেক্ষা করেন শাহেদের মা খুরশিদা বেগম। সঙ্গে এসেছেন শাহেদের চাচাতো ভাইও। অপেক্ষার প্রহর শেষে দুপুর আড়াইটার দিকে শাহেদকে তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। সন্তানকে কাছে পেয়ে দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান হলেও মায়ের যন্ত্রণা এতটুকুও কমেনি। কারণ মানসিক ভারসাম্যহীন সন্তান তার মাকে চিনতে পারছে না। ঘাটে জাহাজ ভিড়লে শাহেদের মতো ১৭৩ জন বাংলাদেশির স্বজনরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। এর আগে সকাল থেকে ঘাটে ভিড় জমায় তারা। প্রিয়জনকে কেউ কাছে পেয়েছেন ৫ বছর পর, কেউ কেউ ফিরছেন ১৫ বছর পর। কেউ নিতে এসেছেন বাবাকে, কেউ স্বামীকে আবার কেউ কেউ ভাইকে। এদিকে যারা ফিরেছেন তাদের কেউ মানবপাচারকারীর ফাঁদে পড়ে, কেউ বা সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে, আবার কেউ কেউ ঝড় জলোচ্ছ¡াসে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মিয়ানমারের সীমানায় প্রবেশ করে বছরের পর বছর কারাভোগ করেছেন। বন্দিদের দেশে ফেরা নিয়ে জেলা প্রশাসন ও বিজিবির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমের সঙ্গে কেউ কথা বলেনি। তবে বন্দিদের স্বাগত জানাতে ঘাটে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন হুইপ সাইমুম সরওয়ার কমল। হুইপ বলেন, দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টার পর ১৭৩ বন্দিকে ফেরত আনা সম্ভব হয়েছে। তবে আটকের সময় নাম ঠিকানা সম্পর্কে ভুল তথ্য দেয়ার কারণে অনেক বন্দিকে ফেরানো যাচ্ছে না। সেখানে এখনো অনেক বাংলাদেশি বন্দি রয়ে গেছে। মিয়ানমার নৌবাহিনীর যে জাহাজে করে ১৭৩ বন্দি দেশে ফেরত এসেছেন সেটি বর্তমানে বাংলাদেশের জলসীমায় অবস্থান করছে। আজ সেই জাহাজে করে যুদ্ধক্ষেত্র থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ২৮৫ জন মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির সদস্য ফেরত যাবে। সূত্রমতে মিয়ানমারে ফেরত যাওয়াদের মধ্যে গত ১৯ এপ্রিল একদিনে নতুন ২৪ জন, ১৬ এপ্রিল ৬৪ জন, ১৪ এপ্রিল ১৪ জন, গত ৩০ মার্চ ৩ জন ও ১ মার্চ ১৭৭ জন বিজিপি ও সেনা সদস্য পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। এরও আগে ফেব্রুয়ারির শুরুতে কয়েক দফায় বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন আরো ৩৩০ জন। যাদের গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ৩৩০ জনকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হয়েছিল। ছবি : মিয়ানমারে বন্দি থাকা ১৭৩ জন বাংলাদেশিকে নিয়ে কক্সবাজার বিআইডব্লিউটিএ ঘাটে মিয়ানমারের জাহাজ

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App