×

মেলা

মুখ খুললেন তারিন

Icon

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

মুখ খুললেন তারিন

নন্দিত অভিনেত্রী তারিন জাহানের উপস্থাপনায় ‘রাঁধুনী এপার ওপারের রান্না’ অনুষ্ঠানের একটি এপিসোডে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের রন্ধনশিল্পী সুদীপা চ্যাটার্জী। গত মঙ্গলবার থেকে সেই অনুষ্ঠানের একটি ভিডিও ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওতে তারিনকে বলতে দেখা যায় ‘তুমি যখন গেস্ট, আমি হোস্ট হিসেবে তোমায় রান্না করে খাওয়াব, তোমার উপলক্ষে দর্শকদের রান্না করে দেখাব গরুর মাংসের কোফতা।’ আর সেই ভিডিওর ঝলক ছড়িয়ে পড়তেই সুদীপা তুমুল রোষানলে পড়েছেন। সামাজিক মাধ্যমে তাকে নিয়ে আলোচনা চলছে। তীব্র কটাক্ষের মুখে পড়েছেন তিনি। এমনকি ‘জ্যান্ত পুড়িয়ে মারা’র হুমকিও শুনতে হচ্ছে তাকে। বিতর্কের মুখে পড়ে গরুর মাংস রান্না নিয়ে ক্ষমাও চেয়েছেন সুদীপা। সেই প্রসঙ্গে উঠে এসেছে বাংলাদেশের অভিনেত্রী তারিনের নামও। এবার মুখ খুললেন তারিনও। তারিন ভারতীয় গণমাধ্যমকে বলেন, বেশ কিছু দিন ধরে দেখছি সুদীপা চট্টোপাধ্যায়ের গরুর মাংস বিতর্ক নিয়ে উত্তপ্ত ওপার বাংলা। সমাজমাধ্যমে আক্রমণ করা হয়েছে আমাকেও। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত লাগলে মানুষ অবশ্য নিজের মত দেবেন, এটা স্বাভাবিক। এপার বাংলা, ওপার বাংলার নানা পদ নিয়ে রান্নার অনুষ্ঠান ‘রাঁধুনী এপার ওপারের রান্না’। কোন পর্বে, কী পদ রান্না হবে তার চিত্রনাট্যে আগে থেকেই ঠিক করা হয়ে যায়। এই রান্নার অনুষ্ঠানকে ঘিরে যত বিতর্ক। আর আমি এই বিতর্কে না চাইতে জড়িয়ে পড়লাম। মনে হলো নিজের কথাগুলো পরিষ্কার বলি। ঈদের সময় দর্শকের কথা মাথায় রেখে গরুর মাংসের একটি পদ চূড়ান্ত করা হয়েছিল। সেই অনুযায়ী আমরা দর্শকদের জন্য ওই রান্না দেখিয়েছিলাম। আমি কিন্তু ওই অনুষ্ঠানে সুদীপাদিকে গোমাংস খেতে বলেছি বা আমি গোমাংস খাওয়াব বলেছি- এমন নয়। খাওয়া তো দূর, ছুঁয়েও দেখিনি। ওই অনুষ্ঠানের ভিডিও যে কেউ দেখতে পারেন। তারিন আরো বলেন, ব্যক্তিগতভাবে আমি প্রত্যেকের ধর্ম, সংস্কৃতি এবং মূল্যবোধকে সম্মান করি। এভাবেই মা-বাবা বড় করেছেন আমায়। বাংলাদেশেও অসাম্প্রদায়িক চেতনার চর্চা হয়। এখানেও হিন্দু সম্প্রদায়ের বহু মানুষ আছে। দুর্গাপূজা হয়। আমরা মণ্ডপে যাই। ধর্ম নিজস্ব। কিন্তু উৎসব সবার। তারিন বলেছেন, ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সুদীপাদি যখন আমাকে জিজ্ঞেস করছেন, ‘তুমি আজ আমাকে কী রান্না করে খাওয়াবে?’ আমি কিন্তু একবারও বলিনি আমি তোমাকে গরুর মাংসের পদ রান্না করে খাওয়াব! আমি বলেছি ঈদ উপলক্ষে দর্শকের জন্য এই পদের রন্ধনপ্রণালি দেখাব। কুরবানির ঈদে আমরা গরুর মাংসের পদ রান্না করি। কিন্তু একজন অতিথিকে ঈদের সময় তো বলতে পারব না, আমি তোমাকে খাওয়াব না! তাই ‘খাওয়াব না’ কথাটা বলিনি, আবার ‘গরুর মাংস খাওয়াব’ও বলিনি। তাও আমাকে ভুল বোঝা হলো।

- মেলা প্রতিবেদক

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App